ঢাকা, সোমবার, ৫ মাঘ ১৪২৭, ১৮ জানুয়ারি ২০২১, ০৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

বিনোদন

প্রশাসনের বিরুদ্ধে কঙ্গনার বড় জয়, পাবেন ক্ষতিপূরণ

বিনোদন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৪৭ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৭, ২০২০
প্রশাসনের বিরুদ্ধে কঙ্গনার বড় জয়, পাবেন ক্ষতিপূরণ

মুম্বাই পৌরসভার বিরুদ্ধে স্বমহিমায় জয় পেলেন বলিউডের ‘কুইন’। শুক্রবার (২৭ নভেম্বর) বম্বে হাইকোর্ট রায় দেন, কঙ্গনা রনৌতের অফিস উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবেই ভেঙেছে বৃহন্মুম্বাই পৌরসভা (বিএমসি)।

উচ্চ আদালতের রায়ে বড় জয় পেলেন কঙ্গনা রনৌত। মুম্বাইয়ে অভিনেত্রীর পালি হিলের অফিস ভেঙে দেওয়ার জন্য বিএমসিকে চূড়ান্ত ভর্ৎসনা করেছেন আদালত। একইসঙ্গে কঙ্গনাকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশও দেন আদালত।

নাগরিক অধিকারের বিরুদ্ধে অন্যায়ভাবে এই কাজ করেছে বিএমসি। আইনের চোখে তা বিদ্বেষ ছাড়া আর কিছুই নয়। এমনটাই জানালেন বিচারপতি এস জি কাঠাওয়াল্লা এবং আর আই চাগলার ডিভিশন বেঞ্চ। কোনও নাগরিকের উপর প্রশাসনের পেশি শক্তির আস্ফালন আদালত সমর্থন করে না বলেও জানিয়ে দেওয়া হয়।

কঙ্গনাকেও নিজের মতামত প্রকাশের ক্ষেত্রে সংযত হওয়ার পরামর্শ দেন আদালত। পাশাপাশি সমস্ত ক্ষতিপূরণও পাবেন কঙ্গনা। হাইকোর্টের নির্দেশকে কঙ্গনার অনেক বড় একটি জয় হিসেবেই দেখা হচ্ছে।

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর সামাজিকমাধ্যমে বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর ছিলেন কঙ্গনা রনৌত। তবে ঘটনার সূত্রপাত হয় কঙ্গনার একটি মন্তব্যকে কেন্দ্র করে। মুম্বাই পুলিশের বিরুদ্ধে কথা বলতে গিয়ে মুম্বাইকে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের সঙ্গে তুলনা করেন অভিনেত্রী। এতেই রুষ্ট হয় শাসকদল শিব সেনা।  

মহারাষ্ট্রে ক্ষমতাসীন শিবসেনা সরকারের মন্ত্রী সঞ্জয় রাউত ও অভিনেত্রী কঙ্গনার মধ্যে বাকযুদ্ধ শুরু হয়ে যায়। গণমাধ্যমে তা ছিল আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে। পরিস্থিতি এমন পর্যায় পৌঁছায় বান্দ্রার পালি হিলে ৫ নম্বর বাংলোতে কঙ্গনার ‘মণিকর্ণিকা ফিল্মস’-এর অফিস অবৈধভাবে তৈরি করার অভিযোগ তুলে ৭ সেপ্টেম্বর অভিনেত্রীকে নোটিশ পাঠায় শিবসেনা প্রভাবিত বিএমসি। নোটিসে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তথ্য-প্রমাণস্বরূপ কাগজপত্র দেখাতে না পারলে ভেঙে দেওয়া হবে অবৈধ নির্মাণ। করাও হয় তাই।

এ ঘটনার বিরুদ্ধে সামাজিকমাধ্যমে ক্ষোভে ফেটে পড়েন বলিউডের ‘ক্যুইন’। সমালোচনা আর নিন্দার ঝড় বয়ে যায় টুইটারে। পরে বম্বে হাই কোর্টের দ্বারস্থ হন অভিনেত্রী।  

তার শুনানির খবর টুইটে শেয়ার করে লেখেন, ‘একজন মানুষ যখন প্রশাসনের বিরুদ্ধে লড়াই করে জয় পায়, সেটা শুধু তার জয় নয়, গণতন্ত্রের জয়। আমাকে যারা সাহস জুগিয়েছিলেন তাদের ধন্যবাদ। আর আমার স্বপ্ন ভেঙে যাওয়া নিয়ে যারা উপহাস করেছিলেন তাদেরকেও ধন্যবাদ। ’

‘তোমরা ভিলেন হয়েছ বলেই আমি হিরো হতে পেরেছি’, যোগ করেন কঙ্গনা।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৪৭ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৭, ২০২০
এমকেআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa