bangla news

বাদশা মেয়েদের নিয়ে নির্লজ্জের মতো গান বাঁধছেন: ঋদ্ধি সেন

বিনোদন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৫-১৬ ১:৩৫:৫০ পিএম
বাদশাহ’র সমালোচনা করলেন ঋদ্ধি সেন

বাদশাহ’র সমালোচনা করলেন ঋদ্ধি সেন

ব্যাপক আলোচিত গান ‘গেন্দা ফুল’ প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই বারবার সমালোচনার শিকার হয়েছেন জনপ্রিয় র‌্যাপার বাদশাহ। একদিকে প্রকৃত গীতিকারের স্বীকৃতি না দিয়ে নিন্দিত হয়েছেন তিনি। অন্যদিকে গানের কথায় অশ্লীল শব্দচয়নের পাশাপাশি নারী ও বাঙালি সংস্কৃতিকে অশালীনভাবে উপস্থাপনের অভিযোগে মামলা পর্যন্ত হয়েছে তার নামে।

শুধু গানে বা চলচ্চিত্রে নয়, বাস্তব সমাজেও নারীকে নিয়ে বিরূপ চিন্তাধারা বেড়ে যাচ্ছে, নারীর বিরুদ্ধে পারিবারিক সহিংসতাও দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে। এমনকি নারীর প্রতি নতুন প্রজন্মের চিন্তাধারাও অনেকের কপালে চিন্তার ভাজ ফেলে। কিন্তু নারীদের এই ‘ভোগ্যপণ্য’ হিসেবে দেখতে শেখানোর দায়টা কার? নারীর সম্মান ও মর্যাদা নিয়ে এমনই প্রশ্ন তুলেছেন ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত মঞ্চ ও চলচ্চিত্র অভিনেতা ঋদ্ধি সেন।

কিছুদিন আগে নন্দিত মঞ্চাভিনেতা ঋদ্ধি সেন সামাজিক মাধ্যমে অভিযোগ তুলে লেখেন, ‘নির্ভয়ার ধর্ষকদের ফাঁসি দিয়ে কিছু বদলে গেল কি? না, বদলায়নি কিছুই! আমাদের সমাজে এখনও অসংখ্য এমন লোক রয়েছেন যারা ‘সামাজিক মুখোশে’র পিছনে ধর্ষণ-গণধর্ষণের মতো চিন্তাধারা পোষণ করেন। এটা একপ্রকার রোগ! খুব শিগগিরই এর নিষ্পত্তি প্রয়োজন। স্থান-কাল-পাত্র নির্বিশেষে যেখানেই হোক না কেন, সবারই উচিত এর বিরুদ্ধে সরব হওয়া।

কোনও পণ্য বিক্রি করার জন্যেও মেয়েদের খোলামেলা চেহারার আশ্রয় নিতে হয়। মেয়েদের দেখলেই তার সঙ্গে একটা ‘হট’ কিংবা ‘সেক্সি’ তকমা জুড়ে দেওয়া হয়। রাস্তাঘাট, স্কুল-কলেজ তো বটেই, এমনকী কর্মস্থলেও ছাড় নেই। আজও ধর্ষণের জন্য যে দেশে মেয়েদের পোশাককে দায়ী করা হয়, সে দেশের সমাজে আর যাই হোক নারীদের অবস্থান কিংবা সম্মান কোনওটাই যে সুরক্ষিত নয়, তা বোধহয় আর আলাদা করে বলার দরকার পড়ে না। আট মাসের খুদে থেকে আশি বছরের বৃদ্ধাকেও লালসার শিকার হতে হয়।

এবার সমাজের সেই ঘুণেধরা মানসিকতার দিকেই আঙুল তুলেছেন ঋদ্ধি সেন। তিনি বলেন, বিনোদন ইন্ডাস্ট্রির একটা বড় অংশও এর জন্যে দায়ী! অনেক সিনেমা, ওয়েব সিরিজে অযৌক্তিকভাবে মহিলাদের আপত্তিকরভাবে দেখানো হয়। এমনকী, সিনেমাতেও নিদেনপক্ষে একটা আইটেম নম্বর বাধ্যতামূলক হয়ে গেছে! বাদশার মতো লোকেরা মেয়েদের নিয়ে নির্বোধ-নির্লজ্জের মতো গান বাঁধছেন! সেই গানগুলো আবার লক্ষ লক্ষ শ্রোতারা দেখছেন। আর পছন্দও যে করছেন, তা কমেন্ট সেকশনে চোখ রাখলেই বোঝা যায়! সেখানেই লোকের মুখোশ খুলে যাচ্ছে। তাদের আসল মন-মানসিকতা ঠিকরে বেরিয়ে আসছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৩৫ ঘণ্টা, মে ১৬, ২০২০
এমকেআর

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2020-05-16 13:35:50