ঢাকা, শনিবার, ৬ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯
bangla news

‘আশ্রয়’ আমার জীবনের অন্যতম সেরা কাজ: বান্নাহ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৮-১৮ ৯:৫২:১২ পিএম
(বা দিক থেকে) তিশা, তাহসান, মোশাররফ ও মম

(বা দিক থেকে) তিশা, তাহসান, মোশাররফ ও মম

সন্তানের জন্য মা-বাবা সবচেয়ে বড় আশীর্বাদ। কিন্তু কিছু সন্তান আছেন যারা তাদের মা-বাকে’কে বোঝা মনে করে বৃদ্ধাশ্রমে রেখে আসেন। কিন্তু যখন ওইসব সন্তান তাদের ভুল বুঝতে পারেন, তখন এত বড় ভুল থেকে ক্ষমা পাওয়ার আর সুযোগ থাকে না।

এবার ঈদুল আজহায় ‘আশ্রয়’ নাটকের মাধ্যমে এমনই মেসেজ দিয়েছেন নির্মাতা মাবরুর রশিদ বান্নাহ। নাটকটি প্রকাশের পর ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। দর্শকদের হৃদয় ছুঁয়ে প্রশংসায় ভাসছে। অনেককে আবেগতাড়িতও করেছে।

ইউটিউবে ‘আশ্রয়’র কমেন্ট বক্সে সাদ্দাম নামের এক দর্শক লেখেন, ‘নাটকটি দেখার পর ১০ মিনিট রাতে অঝোরে কাঁদলাম। এই প্রথম কোনও নাটক দেখে কাঁদলাম। আল্লার কাছে হাজারো শুক্রিয়া যে আমার বাবা মা এখনও বেঁচে আছেন, আর আমার কাছেই আছেন। নাটক তো এমনই হওয়া উচিৎ।’

মো. ইব্রাহিম খলিল নামের একজন লিখেছেন, ‘ভাষা হারিয়ে ফেললাম। কী লিখবো, নাটক নাকি বাস্তব জীবন। অদ্ভুত সুন্দর কাহিনী, আমি কাঁদতে ভুলে গিয়েছিলাম। আজ চোখের পানি ধরে রাখতে পারলাম না।’

নাটকটিতে বাবা-মা’র চরিত্রে অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম ও জাকিয়া বারী মম। আর মা-বাবা হারা দম্পতির চরিত্রে রয়েছেন তাহসান খান ও নুসরাত ইমরোজ তিশা।পরিচালক বান্নাহর সঙ্গে 'আশ্রয়' টিমের সদস্যরাদর্শকদের ভালো সাড়া পেয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন পরিচালক বান্নাহ। তিনি বাংলানিউজকে বলেন, ‘‘নাটকটির শুটিংয়ের সময় ইউনিটের অনেকে ইমোশনাল হয়ে পড়েছিল। ‘আশ্রয়’ যা দেখানো হয়েছে, এমনটা আমাদের সমাজে এখন অহরহ: ঘটছে। নাটকটি দেখে কেউ যদি নিজেদের ভুল বুঝতে পারে, সেটাই হবে আমাদের সার্থকতা।’’

‘‘আশ্রয়’ করতে গিয়ে সবাই অনেক কষ্ট করেছেন। তাদের পরিশ্রমের কারণে দর্শকদের আমরা ভালো কাজ উপহার দিতে পেরেছি। এটা আমার জীবনের অন্যতম সেরা কাজ হয়ে থাকবে,’’ যোগ করেন বান্নাহ।

‘আশ্রয়’র গল্প লিখেছেন আকবর হায়দার মুন্না। ঈদুল আজহা উপলক্ষে নাটকটি ঈদের দ্বিতীয় দিন আরটিভিতে প্রচারিত হয়েছে। ইউটিউবে প্রকাশ পেয়েছে ক্লাব ইলেভেন এন্টারটেইনমেন্ট চ্যানেলে। 

বাংলাদেশ সময়: ১৯৫০ ঘণ্টা, আগস্ট ১৮, ২০১৯
জেআইএম

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   নাটক
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-08-18 21:52:12