ঢাকা, রবিবার, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৯ মে ২০১৯
bangla news

কলকাতায় যে ভালোবাসা পাচ্ছি তাতে খুব কৃতজ্ঞ: অপু বিশ্বাস

ভাস্কর সরদার, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০২-১৮ ১০:৪৪:২৬ এএম
অপু বিশ্বাস (ফাইল ফটো)

অপু বিশ্বাস (ফাইল ফটো)

কলকাতা: অপু বিশ্বাস। ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেত্রী। কলকাতায় চলতে থাকা বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসবে একঝাঁক ঢালিউড তারকার সঙ্গে এসেছিলেন তিনিও। উৎসবের ফাঁকে বাংলানিউজের সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে কথা বলেছেন অপু। চলচ্চিত্রাঙ্গনের পাশাপাশি তার আলাপচারিতায় উঠে আসে রাজনীতিতে আগ্রহসহ অন্যান্য বিষয়াদিও। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন বাংলানিউজের সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট (কলকাতা) ভাস্কর সরদার।

বাংলানিউজ: কলকাতায় আসা এবং বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসবে যোগ দেওয়া কেমন লাগছে?
অপু: খুবই ভালো লাগছে।  এরকম একটা আন্তর্জাতিক উৎসবে আমাকে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য নিজেকে অসম্ভব ভাগ্যবতী মনে হচ্ছে। কারণ বাংলাদেশ এবং কলকাতার মধ্যে এতোটা ভাবসূত্র হয়ে গেছে, মনে হয় না বাংলাদেশ-কলকাতা আলাদা। আমরা এক ভাষার মানুষ, এক পরিবেশের মানুষ এবং এক রকমের শিল্পী। 
আমি নন্দনে এসে শুনতে পেলাম আমার একটি মুভি ‘রাজনীতি’ অনেক বেশি ভালো লেগেছে এখানকার দর্শকদের। কিছু কিছু দর্শককে বলতে শুনেছি পরিচালক ও শিল্পীদের সামনে পেলে জড়িয়ে ধরতাম। এটা আমার কাছে খুবই অনার। একজন শিল্পী হিসেবে এটাই প্রাপ্য। এরকম চলচ্চিত্র উৎসব যেন বেশি বেশি করে আয়োজন করা হয়। । আমি যেখানে দাঁড়িয়ে আছি (নন্দন) এখানে স্বনামধন্য শিল্পীরা এসেছেন, যাদের পদচারণ এখানে হয়েছে সেখানে আমি আসতে পেরেছি। এখানে এসে যে ভালোবাসা পাচ্ছি এবং উষ্ণ অভিনন্দন পাচ্ছি, তাতে আমি খুবই কৃতজ্ঞ।উৎসবে অপু বিশ্বাসকে উত্তরীয় পরিয়ে দেওয়া হয়। ছবি: বাংলানিউজবাংলানিউজ: এখন পর্যন্ত কতোগুলো সিনেমায় কাজ করেছেন?
অপু: আমার এ পর্যন্ত ৯৭টি ছবিতে করার সৌভাগ্য হয়েছে। আগামীতে আরও সিনেমা দর্শকদের উপহার দেওয়ার ইচ্ছা আছে। আরেকটি দুঃখের ঘটনা যেটা আগেই বলা উচিত ছিল। কাশ্মীরে ভারতীয় সৈনিকরা শহীদ হয়েছেন। তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি। সঙ্গে এও বলবো, এরকম সৌভাগ্য সবার হয় না দেশের জন্য আত্মত্যাগ করা।

বাংলানিউজ: আপনি শুধু বাংলাদেশ নয়, পশ্চিমবাংলারও পরিচিত মুখ, কী বলবেন?
অপু: আগেই বলেছি এখন আর কলকাতা-বাংলাদেশ বলে কিছু নেই। যোগসূত্রটা খুব কাছের হয়ে গেছে। যদিও আমি কলকাতায় একটা সিনেমা করেছি। সিনেমাটির নাম ‘শর্টকাট’। কিছু টেকনিক্যাল সমস্যা আছে সেটা মিটে গেলেই মুক্তি পাবে। এছাড়া আরও কিছু সিনেমার কথা চলছে, দেখা যাক কী হয়।

বাংলানিউজ: আপনার ছেলে আব্রাম খান জয় কেমন আছে?
অপু: আব্রাম খুব ভালো আছে। এখন সে তার বাবার (ঢালিউড তারকা শাকিব খান) কাছে আছে। আমি যখন ব্যস্ত থাকি তখন বাবার সঙ্গেই সময় কাটায়।ছেলে আব্রাম খান জয়ের সঙ্গে অপু বিশ্বাস (ফাইল ফটো)বাংলানিউজ: কানাঘুষা চলছে আপনাদের সম্পর্কটা নাকি আবার জোড়া লাগছে…
অপু: (প্রাণখোলা হাসি) সে প্রসঙ্গে আমরা না যাই। উৎসবের আমেজেই থাকি।

বাংলানিউজ: কোথাও গেলে বাঙালির আরেকটা আগ্রহ থাকে, শপিং। কেমন কেনাকাটা করলেন এখানে?
অপু: (হাসতে হাসতে) নায়িকাদের এটা বলাই বাহুল্য, যখনই যেখানে যাই শপিং না করতে পারলে রাতে ঘুমই আসবে না। তবে এখনো কিছু করা হয়নি। আমার দু’টি জায়গা পছন্দের; এক নিউমার্কেট, দুই কোয়েস্টমল।

বাংলানিউজ: শেষ প্রশ্ন, সরাসরি রাজনীতিতে যোগদান করবেন?
অপু: আমি কিন্তু সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন নিয়েছিলাম। আমি যেহেতু বেসিক চলচ্চিত্র জগতের মানুষ তাই রাজনীতিতে ওভাবে এখনও জড়াইনি। তবে চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন শেখ হাসিনা। নেত্রী আমাকে পছন্দ করেন এটা আমি জানি। দেখা যাক কী হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১০২৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৯
ভিএস/জিপি/এইচএ/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14