ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ মাঘ ১৪২৮, ২০ জানুয়ারি ২০২২, ১৬ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

বিনোদন

প্রাণ রায়ের কুকুর খেতে গিয়ে ধরা ২ চীনা নাগরিক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৩০২ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৩, ২০১৮
প্রাণ রায়ের কুকুর খেতে গিয়ে ধরা ২ চীনা নাগরিক অভিনেতা প্রাণ রায় ও তার প্রিয় পোষা কুকুর

ঢাকা: ভিডিও গেমস সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার চীনা নাগরিক চিমিং ও লিয়ান। চাকরিসূত্রে বসবাস করেন রাজধানীর পিংক সিটি আবাসিক এলাকার একটি বাসায়। সোমবার (১২ নভেম্বর) দুপুরে বাসার সামনে একটি কুকুরকে ঘোরাঘুরি করতে দেখে লোভ সামলাতে পারেননি। খাওয়ার জন্য সেই কুকুরটিকে ধরে জবাই করেন তারা।

এতেই ঘটে বিপত্তি। কুকুরটির মালিক অভিনেতা প্রাণ রায়।

নিজের পোষা কুকুরটিকে খুঁজে পাচ্ছিলেন না তিনি। পরে পাড়া-প্রতিবেশীর কাছ থেকে কুকুর জবাইয়ের ঘটনা জানতে পেরে অভিযোগ করেন পুলিশের কাছে।  
ছবি: সংগৃহীত
এ প্রসঙ্গে প্রাণ রায় বাংলানিউজকে বলেন, দুপুর ২টার দিকে বাসার পাশের লেক পাড়ে আমার ছয়টি কুকুর খেলা করছিল। সেখান থেকে ১১ মাস বয়সী কুকিজকে (কুকুরের নাম) কয়েকজন চীনা নাগরিক চুরি করে নিয়ে যায়। তারা গলায় তার পেঁচিয়ে কুকিজকে জবাই করে চামড়া কল পাড়েই ফেলে রেখে যায়।

‘পাশের বাড়ির ড্রাইভার এসে আমাকে চীনা নাগরিকের কুকুর নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি বলেন। সঙ্গে সঙ্গে আমি খুঁজে দেখি আমার একটা কুকুর নেই। বিকেল ৩টার দিকে আমরা গিয়ে দেখি চীনা নাগরিকরা আমার কুকুরটাকে বার্নার দিয়ে পোড়াচ্ছে। সঙ্গে সঙ্গে তাকে আমরা ধরে ফেলি। এরপর থানায় জিডি করি।

ছবি: সংগৃহীত

প্রাণ রায়ের মোট ছয়টি কুকুর। কুকিজ ছিল দেশি প্রজাতির।  

পরে অভিযোগের ভিত্তিতে ওই চীনা নাগরিকদ্বয়কে ডেকে পাঠায় খিলক্ষেত থানা পুলিশ। নিজেদের ভুল বুঝতে পেরে বিষয়টি মীমাংসা করার চেষ্টা করলেও কুকুরের মালিক প্রাণ রায় থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) লিপিবদ্ধ করেছেন।

ছবি: সংগৃহীত

খিলক্ষেত থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাজিরুল রহমান বাংলানিউজকে জানান, অভিনেতা প্রাণ রায়ের পোষা কুকুর জবাইয়ের বিষয়টি চীনা দুই নাগরিক মীমাংসা করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু প্রাণ রায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি নম্বর- ৩০৭) লিপিবদ্ধ করেছেন। চীনা দুই নাগরিক থানায় এসেছিলেন এরপর মীমাংসা না হওয়ায় তারা চলে গেছেন।

বাংলাদেশ সময়: ২১৫০ ঘণ্টা, নভেম্বর ১২, ২০১৮
পিএম/জেআইএম/এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa