bangla news

মাইকেল জ্যাকসনের মৃত্যুর জন্য দায়ী ডা. কনরাড !

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১১-১১-০৮ ৮:০৯:১২ এএম

ওয়ার্ল্ড মিউজিকের কিংবদন্তী পপ সম্রাট মাইকেল জ্যাকসনের মৃত্যু রহস্য অবশেষে উন্মোচিত হয়েছে। জ্যাকসনের মৃত্যর ঘটনায় দোষী প্রমাণিত হয়েছেন তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক কনরাড মারে।

ওয়ার্ল্ড মিউজিকের কিংবদন্তী পপ সম্রাট মাইকেল জ্যাকসনের মৃত্যু রহস্য অবশেষে উন্মোচিত হয়েছে। জ্যাকসনের মৃত্যর ঘটনায় দোষী প্রমাণিত হয়েছেন তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক কনরাড মারে। চিকিৎসকের অবহেলার কারণে মাইকেল জ্যাকসন মৃত্যবরণ করেছেন বলে লস অ্যাঞ্জেলস আদালত রায় দিয়েছে। চিকিৎসক কনরাড মারেকে দায়ী করা হয়েঝে ‘অনিচ্ছাকৃত হত্যা’-এর অভিযোগে।

২০০৯ সালের ২৫ জুন লস এঞ্জেলেসের বাড়িতে আকস্মিকভাবে মৃত্যবরন করেন পঞ্চাশ বছর বয়সী  পপ তারকা মাইকেল জ্যাকসন। তার মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে আসে গোটা বিশ্বে। বিশ্বজয়ী এই পপতারকার মৃত্যু নিয়ে তৈরি হয় একধরণের রহস্য। জ্যাকসনের মৃতদেহ পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বেরিয়ে আসে মাত্রাতিরিক্ত বেদনাশক ওষধ সেবন করাই পপসম্রাটের মৃত্যুর কারণ।

মাইকেল জ্যাকসনের ব্যক্তিগত চিকিৎসক ছিলেন কনরাড মারে। তার তত্ত্বাবধানে থেকে কী করে পপ সম্রাট অতিমাত্রায় বেদনানাশক ওষধ সেবন করেন, তা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। প্রায় ২ বছর তদন্তের পর জ্যাকসনের চিকিৎসক কনরাড মারের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ দায়ের করা হয়।

গত অক্টোবর মাসের মাঝামাঝিতে ডা. কনরাড মারেকে গ্রেফতার করে দাঁড় করানো হয় আদালতের কাঠগড়ায়। জ্যাকসনের পরিবারের পক্ষে আইনজীবীরা অভিযোগ করেন, কনরাড অতিমাত্রায় প্রোপোফল দেওয়ার কারণেই জ্যাকসন মারা গেছেন। অসুস্থ জ্যাকসনের জন্য সঠিক ব্যবস্থা নিতেও ব্যর্থ হয়েছেন তিনি। ডা. কনরাড মারের আইনজীবিরা এই অভিযোগ অস্বীকার করে দাবি করেন, জ্যাকসন দীর্ঘদিন ধরেই নানারকম বেদনানাশক ওষুধে আসক্ত ছিলেন। চিকিৎসকের অজ্ঞাতে তাকে না জনিয়েই তিনি এইসব ওষুধ গোপনে সেবন করতেন। প্রোপোফল নেওয়ার কাজটিও তার অজ্ঞাতে হয়েছে বলে দাবী করেন ডা. কনরাড। তিনি নিজেকে নির্দোষ দাবী করে আদালতে বলেন, যে সময়টায় জ্যাকসন প্রোপোফল নেন, সে সময় তিনি ব্যক্তিগত কাজে বাইরে ছিলেন।

মাইকেল জ্যাকসনের মৃত্যু রহস্য বিষয়ক মামলার শুনানী চলে ছয় সপ্তাহ ধরে। উভয় পক্ষের শুনানী শেষে ১২ সদস্যের জুরি বোর্ড গত ৭ নভেম্বর সোমবার সর্বসম্মতি ক্রমে দায়িত্বে অবহেলার কারণ দোষী সাব্যস্ত করে ডা. কনরাড মারেকে। অসুস্থ জ্যাকসনের জন্য সঠিক ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থতার অভিযোগ প্রমানিত হয়েছে বলে আদালত কনরাডকে ‘অনিচ্ছাকৃত হত্যা’র শাস্তি প্রদান করবে উল্লেখ করা হয়। ২৯ নভেম্বর তার সাজা ঘোষণা করা হবে বলে জুরি বোর্ড জানিয়েছে।

রায়ের পর ডা. কনরাড মারেকে (৫৮) যখন হাতকড়া পড়িয়ে আদালত থেকে কারাগারে নেওয়া হচ্ছিল, বাইরে অপেক্ষমান জ্যাকসনভক্তরা তখন উল্লাসে ফেটে পড়ে। রায়ের সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন জ্যাকসনের পরিবারের সদস্যরাও।  তারা ডা, কনরাড মারেকে সর্বোচ্চ দণ্ড প্রদানের জন্য আদালতের কাছে লিখিত দাবী পেশ করে।

 

বাংলাদেশ সময় ১৭৩৫, নভেম্বর ৮, ২০১১

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2011-11-08 08:09:12