ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আষাঢ় ১৪২৬, ২৫ জুন ২০১৯
bangla news

গল্পে টুইস্ট দেওয়াটা আমার বিশেষত্ব: ভিকি জাহেদ

মো. জহিরুল ইসলাম, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৮-২৯ ১০:৫৪:৩৭ এএম
ভিকি জাহেদ/ ছবি: রাজীন চৌধুরী-বাংলানিউজ

ভিকি জাহেদ/ ছবি: রাজীন চৌধুরী-বাংলানিউজ

‘আমি প্রচার বিমুখ মানুষ, নিজেকে লুকিয়ে রাখতে পছন্দ করি। কাজ দিয়ে মানুষের কাছে বেশি পরিচিত হতে চাই’।

ঝলমলে রৌদ্রোজ্জ্বল এক পড়ন্ত দুপুরে বাংলানিউজের অফিসে আড্ডায় অল্পকথায় নিজেকে এভাবেই বর্ণনা করলেন তরুণ নির্মাতা ভিকি জাহেদ। স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের নির্মাতা হিসেবে তিনি সবার কাছে পরিচিত।

তার হাত ধরে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের নতুন ধারার শুরু হয়েছে। বড় পর্দা বা টেলিভিশন বাদ দিয়ে শুধুমাত্র অনলাইন প্ল্যাটফর্মে কাজ করেও যে শক্ত অবস্থান তৈরি করা যায়, ভিকি তা প্রমাণ করেছেন। তার নির্মিত প্রায় বেশিরভাগ কাজই জনপ্রিয়।

এবারে ঈদে ভিকির পরিচালনায় স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘বান্ধবি’ মুক্তি পেয়েছে অ্যাপসভিত্তিক প্ল্যাটফর্ম আইফ্লিক্সে। এতে অভিনয় করেছেন অভিনেত্রী অর্চিতা স্পর্শিয়া ও সাফা কবির।ভিকি জাহেদ/ ছবি: রাজীন চৌধুরী-বাংলানিউজভিকি বলেন, দুই বান্ধবীকে নিয়ে স্বল্পদৈর্ঘ্যটির গল্প। কাজটি মুক্তির পর ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। অনেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রশংসা করছেন। আবার অনেকে পজেটিভ রিভিউও দিচ্ছেন, বেশ ভালো লাগছে।

পরিচালনার পাশাপাশি তার সব কাজের গল্প ভিকি নিজেই লেখেন।  প্রতিটি গল্পেই ভিন্নরকম টুইস্ট বা বাঁকবদল থাকে। ভিকির স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র দেখতে গিয়ে শেষের দিকে দর্শককে ধাক্কা খেতে হয়। তার ভাষ্যে, ‘যে সিনেমার গল্পে হঠাৎ করে খেলা ঘুরে যায়, সে ধরনের সিনেমাই ছোটবেলা থেকে বেশি দেখি এবং তেমন গল্পই পড়ি। বিষয়টি আমি খুব উপভোগ করি। মূলত দর্শক আমাকে এই কারণেই বেশি পছন্দ করেন। গল্পে টুইস্ট দেওয়াটা আমার ‘সিগনেচার’ (বিশেষত্ব) বলা যায়। আমার কাজগুলোতে শুরুতে গল্প থাকে একরকম, শেষে গিয়ে দেখা যায় ভিন্নকিছু।

‘যদিও প্রতিটি কাজে টুইস্ট দেওয়াটা খুব কঠিন। অনেক সময় দেখা যায় গল্পের শেষটা ভাবতে ভাবতে এক মাসেরও বেশি সময় লেগে যায়। তবে জানি না, এটা আসলে কতদিন ধরে রাখতে পারবো। মাঝেমধ্যে মনে হয়ে এই বিষয়টি থেকে বেরিয়ে আসি। আবার দর্শকের কথা মাথায় এলে সাহস পাই না’।'বান্ধবি' স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের পোস্টারস্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে ব্যাপক পরিবর্তন এনেছেন ভিকি। বর্তমানে বাণিজ্যিকভাবে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণের পেছনে তার অনেক ভূমিকা রয়েছে। এই নির্মাতার মুখে, ‘আগেও আমাদের দেশে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মিত হতো। কিন্তু তখন সেটা বেশিরভাগই ছিল শুধু দেশ-বিদেশের বিভিন্ন চলচ্চিত্র উৎসবকেন্দ্রিক। কিন্তু ২০১৬ সাল থেকে আমাদের দেশেও বাণিজ্যিকভাবে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণের জোয়ার শুরু হয়। যে টার্মটার সঙ্গে বাংলাদেশ আগে পরিচিত ছিলো না।’

‘তখন নির্মাতাদের ভাবনা ছিলো স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র মানে এটা দিয়ে কোনো আয় হবে না, শুধু উৎসবে দেখানো হবে। কিন্তু এখন সে ধারণা পাল্টেছে। স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রও যে বাণিজ্যিকভাবে নির্মাণ করা যায় বা এটা থেকেও যে আয় করা যায়, নির্মাতারা এখন তা জানেন। অনেকে এখন এখান থেকে আয় করছেন। যেমন আমি কিন্তু স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণের উপরেই নির্ভর। আমার বিশ্বাস, স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণের পরিধি সামনে আরও বড় হবে’।

ভিকির প্রথম স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘মোমেন্টস’ মুক্তি পায় ২০১৬ সালে। প্রথম কাজেই তিনি বাজিমাত করেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চলচ্চিত্রটি ভাইরাল হয়। এরপর তাকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। ‘মায়া’, ‘অক্ষর’, ‘রূপ’, ‘জন্ম’, ‘আলো’সহ মোট ১৩টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র মুক্তি পেয়েছে তার। এছাড়া দু’টি ওয়েব সিরিজ ও আটটি মিউজিক ভিডিওর নির্মাতা তিনি। সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া তার ওয়েব সিরিজ ‘উষ্ণের আত্মহত্যা’ পেয়েছে বেশ প্রশংসা।

এছাড়া ইমরানের ‘এমন একটা তুমি চাই’ গানের মিউজিক ভিডিও নির্মাণ করেও প্রশংসিত হয়েছেন তিনি। গানটি এখন পর্যন্ত দেড় কোটির বেশি ভিউ পার করেছে।

‘মিউজিক ভিডিওতে গানটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। ভিডিও যতই ভালো হোক, গান ভালো না হলে তা মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্য হবে না। কিন্তু একটা ভালো গান খারাপ ভিডিওকেও টেনে নিয়ে যেতে পারবে। যেটার বড় প্রমাণ ‘অপরাধী’', বললেন ভিকি।ভিকি জাহেদ/ ছবি: রাজীন চৌধুরী-বাংলানিউজতার নির্মিত স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের মধ্যে মুক্তির প্রতীক্ষায় রয়েছে ‘মন’ ও ‘আজ আমার পালা’।

চলচ্চিত্রের তারকাদের নিয়েও স্বল্পদৈর্ঘ্যে চলচ্চিত্র নির্মাণ করতে চান ভিকি। তিনি বলেন, আমাদের দেশের চলচ্চিত্র তারকাদের নিয়ে আমার কাজ করার ইচ্ছে আছে। খুব ইচ্ছে শাকিব খান ভাইকে নিয়ে স্বল্পদৈর্ঘ্যে নির্মাণের। বর্তমানে তিনি অনেক কোয়ালিটিফুল কাজ করে নিজেকে বদলে ফেলেছেন। যেটা আমাকে তার প্রতি আকৃষ্ট করেছে।

স্বল্পদৈর্ঘ্যের পাশাপাশি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রও নির্মাণ করতে চান ভিকি। তবে না বুঝে বা হুট করেই বড় পর্দায় আসতে নারাজ এই তরুণ। এজন্য আরও সময় নিতে চান। তার কথায়, ‘আমার মনে হয় আরও সময় নেওয়া উচিৎ। আরও শেখার বাকি আছে। আমি এখনও শিখছি। তবে চলচ্চিত্র নির্মাণের বিষয় আমি খুব ভয় পাই। কারণ প্রথম সিনেমা যদি ভালো না হয়, এরপর কী হবে সে বিষয়টি আমাকে চিন্তিত করে। যদিও মানুষ আমাকে বিশেষ করে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাতা হিসেবেই চেনেন। আমি চাই যতদিন সম্ভব মানুষ আমাকে এই পরিচয়েই চিনুক।’

সম্প্রতি কলকাতার অ্যাপসভিত্তিক প্ল্যাটফর্ম হৈচৈতে ভিকির স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘আলো’ ও ‘অক্ষর’ প্রকাশ পেয়েছে। এছাড়া সেখানকার একটি নামী সিনেমা প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণের বিষয়েও তার চূড়ান্ত পর্যায়ের আলোচনা চলছে। তিনি জানান, খুব শিগগিরই হয়তো তাদের সঙ্গে কাজ করবেন।ভিকি জাহেদ/ ছবি: রাজীন চৌধুরী-বাংলানিউজবাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিএসসি পাশ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইবিএ থেকে এমবিএ করেছেন ভিকি। বর্তমানে পরিচালনার পাশাপাশি একটি বহুজাতিক কোম্পানির ডিজিটাল মার্কেটিং বিভাগের দায়িত্বে আছেন তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ২১০০ ঘণ্টা, আগস্ট ২৯, ২০১৮
জেআইএম/এইচএ/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   চলচ্চিত্র স্বল্পদৈর্ঘ্য
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2018-08-29 10:54:37