ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৩০ মে ২০২৪, ২১ জিলকদ ১৪৪৫

বিনোদন

‘পদ্মাবতী’কে ফিরিয়ে দিলো ভারতীয় সেন্সর, পেছালো মুক্তি

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১১৭ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৯, ২০১৭
‘পদ্মাবতী’কে ফিরিয়ে দিলো ভারতীয় সেন্সর, পেছালো মুক্তি পদ্মাবতী।

সেট ভাঙচুর, পোস্টার পোড়ানো, নাক কেটে ফেলা, মুণ্ডচ্ছেদের হুমকি কতো কিছুরই না মুখোমুখি হতে হচ্ছে ‘পদ্মাবতী’কে। এমনকি এটিও শোনা যাচ্ছে- সিনেমাটি নিষিদ্ধ করার দাবিতে নাকি রক্তে লেখা স্বাক্ষর যোগাড় করছে ব্রাহ্মণ মহাসভা।

এরই মধ্যে শুরু হলো নতুন বিতর্ক। শোনা যাচ্ছে- অসম্পূর্ণ তথ্য থাকায় ‘পদ্মাবতী’কে ফিরিয়ে দিয়েছে দ্য সেন্ট্রাল বোর্ড অব ফিল্ম সার্টিফিকেশনের (সিবিএফসি) প্রধান প্রসূন যোশি।

এ প্রসঙ্গে প্রসূন যোশি বলেন, “গত সপ্তাহে প্রশংসাপত্রের আবেদন জানান ‘পদ্মাবতী’র নির্মাতারা। আমরা সব নথি খতিয়ে দেখেছি। কিন্তু কিছু তথ্য অসম্পূর্ণ রয়েছে তাতে। বিষয়টি ইতোমধ্যে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে নির্মাতাদের। তাদের ত্রুটি সংশোধন করে আবার আবেদন জানাতে হবে। এরপর পুনরায় আমরা সেটি খতিয়ে দেখবো। ”

বিষয়টি নিশ্চিত করে ‘পদ্মাবতী’র প্রযোজনা সংস্থা ভায়াকম ১৮-এর সিও অজিত আন্ধারে বলেন, ‘সিবিএফসি প্রশংসাপত্রের আবেদনে ত্রুটি থাকার কথা জানিয়েছে। তবে সামান্য প্রযুক্তিগত সমস্যা আছে। ভারতীয় সেন্সর বোর্ডের কর্তারা ছবিটি দেখতে চাইলে কোনও বাধা আসবে না। ’

পদ্মাবতী।  এদিকে আগামী ১ ডিসেম্বর ‘পদ্মাবতী’ মুক্তি পাবে বলে জানিয়েছেন প্রযোজনা সংস্থা ভিয়াকম ১৮-এর এক মুখপাত্র। বিষয়টি নিশ্চিত করে গণমাধ্যমকর্মীদের তিনি বলেন, ‘পদ্মাবতী’ মুক্তি তারিখ ১ ডিসেম্বর স্বেচ্ছায় প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে। এ প্রজন্মের প্রতিভাধর নির্মাতাদের মধ্যে একজন সঞ্জয় লীলা বানসালী। ‘ভায়াকম ১৮ মোশন পিকচার্সের’ সঙ্গে মিলে নির্মাণ করেছিলেন ‘পদ্মাবতী’। যেখানে তুলে ধরা হয়েছে রাজপুতের বীরত্ব, মর্যাদা, ঐতিহ্য এবং গৌরবকে। সিনেমার চিত্রনাট্য এমন যা গর্বিত করবে সকল ভারতীয়কে এবং বিশ্বব্যাপী আমাদের দেশের গল্প-কন্ঠশৈলী প্রদর্শন করবে। ’

ওই মুখপাত্র আরও বলেন, ‘আমরা একটি দায়িত্বশীল ও আইন-শৃঙ্খলাবদ্ধ কর্পোরেট নাগরিক। তাই ভূমি আইন ও সেন্ট্রাল বোর্ড অব ফিল্ম সার্টিফিকেশনসহ সংবিধিবদ্ধ সংস্থাগুলোর প্রতি আমাদের সর্বোচ্চ শ্রদ্ধা এবং সম্মান রয়েছে। তাই আমরা সবসময় প্রতিষ্ঠিত সব পদ্ধতি এবং রীতিনীতির কাছে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আমাদের বিশ্বাস খুব শিগগিরই আমরা চলচ্চিত্রটি মুক্তি দেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় অনুমোদন গ্রহণ করবো। এছাড়া যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব সিনেমা মুক্তি নতুন তারিখও জানিয়ে দেওয়া হবে। ’

দীর্ঘ ৭০০ বছর আগের সময়ের চিত্তরের রানি পদ্মিনীর জীবন নিয়ে বিগ বাজেটে এই চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন ‘দেবদাস’ ও ‘বাজিরাও মাস্তানি’খ্যাত পরিচালক সঞ্জয় লীলা বানসালী।

আগামী ১ ডিসেম্বর ইতিহাসভিত্তিক চলচ্চিত্রটি মুক্তি পাওয়ার কথা থাকলেও উত্তরপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র, রাজস্থান, গুজরাট, হরিয়ানাসহ বিভিন্ন রাজ্যে বিক্ষোভ করছে নানা ধর্মীয় সংগঠন। নানা জায়গায় বিক্ষোভে কণ্ঠ মেলাচ্ছেন কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন বিজেপির নেতারাও।

পদ্মাবতী।  বিক্ষোভকারীদের দাবি, দিল্লির শাসক আলাউদ্দিন খিলজির আক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে রাজপুত রানি পদ্মিনী ১৬ হাজার নারীকে নিয়ে চিতায় ঝাঁপ দিয়েছিলেন। কিন্তু পদ্মাবতী সিনেমায় তার সে মর্যাদা ও আত্মত্যাগকে খাটো করা হয়েছে। খিলজির সঙ্গে পদ্মিনীর মুখোমুখি কখনো দেখা না হলেও চলচ্চিত্রের গল্পে তাদের মধ্যে একটি স্বপ্নদৃশ্য রাখা হয়েছে। আর এ নিয়েই ঘটছে নানা ধরনের তাণ্ডব।

‘পদ্মাবতী’তে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন দীপিকা পাড়ুকোন। এতে তার সহশিল্পী রণবীর সিং ও শহিদ কাপুর।

বাংলাদেশ সময়: ১৭০০ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৯, ২০১৭
বিএসকে/জেডএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।