ঢাকা, সোমবার, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৩ আগস্ট ২০২০, ১২ জিলহজ ১৪৪১

বিনোদন

১৫তম মৃত্যুবার্ষিকীতে সালমান শাহকে স্মরণ

বিনোদন প্রতিবেদক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১১-০৯-০৫ ০৪:১০:৫৬ পিএম
১৫তম মৃত্যুবার্ষিকীতে সালমান শাহকে স্মরণ

১৯৯৩ থেকে ১৯৯৬ সাল, মাত্র তিন বছর। এই তিনবছরে ঢালিউডের সব হিসেব-নিকেশ পাল্টে দিয়েছিলেন নায়ক সালমান শাহ।

১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর রহস্যময়ভাবে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন এই তুমুল জনপ্রিয় নায়ক। তার অকাল মৃত্যুতে যে শূণ্যতা ঢালিউডে তৈরি হয়, গত ১৫ বছরে তা পূরণ হয় নি।

সালমান শাহ তিন বছরে অভিনয় করেন মাত্র ২৬টি ছবিতে। আশ্চর্যের ব্যাপার হলো প্রতিটি ছবিই ব্যবসায়িক সাফল্যের মুখ দেখে। ঢালিউডে তিনি এসেছিলেন আশির্বাদ হিসেবে। তার ছবি মানেই প্রেক্ষাগৃহে দর্শকের লাগাতার ভিড়। এই রেকর্ডের ধারে কাছেও বাংলাদেশের আর কোন নায়ক পৌছাতে পারেন নি, আগামীতে পারবেন কিনা তা নিয়েও সন্দেহ রয়ে গেছে। তাই চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট অনেকেই সালমান শাহকে মনে করেন, দেশীয় চলচ্চিত্রের সর্বকালের সেরা নায়ক।

সালমান শাহ যখন চলচ্চিত্রে কাজ করতেন সেই সময়কার এমন কোন জনপ্রিয় নায়িকা নেই যে তার বিপরীতে কাজ করেননি। মৌসুমী, শাবনূর থেকে শুরু করে শাবনাজ, শাহনাজ, লিমা, শিল্পী, বৃষ্টি, শ্যামা - এরা প্রত্যেকেই সালমানের বিপরীতে কাজ করেছেন স্বাচ্ছন্দ্যে। সালমানের সঙ্গে কাজ করাটাই ছিল তাদের কাছে গর্বের ব্যাপার। সালমানের মৃত্যুর পর তার অনুসারী হয়ে চলচ্চিত্রে আসেন ফেরদৌস, রিয়াজ ও শাকিল খান। ঢালিউডের এই তিন নায়কেরই আইডল হলেন সালমান শাহ।


 সালমান শাহর ১৫তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি ৬ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার বাদ আছর এফডিসিতে এক মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করেছে। শিল্পী সমিতি, প্রযোজক পরিবেশক সমিতি, পরিচালক সমিতি সম্মিলিতভাবে এই দিন শ্রদ্ধা নিবেদন করবে অমর নায়ক সালমান শাহের প্রতি।


সালমান শাহকে স্মরণ করে ঢালিউডের এই সময়ের শীর্ষনায়ক ও শিল্পী সমিতির সভাপতি শাকিব খান বাংলানিউজকে বলেন, সালমান শাহ আমাদের দেশীয় চলচ্চিত্রের একজন অমর নায়ক। যিনি আমার নিজেরও সবচেয়ে পছন্দের নায়ক ছিলেন। তার ছবি দেখেই আমার ভেতর চলচ্চিত্রের প্রতি দুর্বলতা তৈরি হয়েছিল। তাই বলা যায় তিনিই আমার চলচ্চিত্রে আসার অনুপ্রেরণা। আগের বছরগুলোয় এই দিনটিতে কি হয়েছে জানিনা, তবে এখন থেকে প্রতি বছরই সালমান শাহর মৃত্যুবার্ষিকীতে তাকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করা হবে।

ছেলের মৃত্যুবার্ষিকীর এই দিনটিতেই শুধু নয়, জীবনের প্রতি মুহূর্তই সালমান শাহর স্মৃতি আগলে আছেন তার মা নীলা চৌধুরী। ছেলের মৃত্যুবার্ষিকী সামনে রেখে নীলা চৌধুরী বলেন, ইমনের মৃত্যুর কয়েক বছর পর পর্যন্ত তাকে নিয়ে নান সংগঠন আয়োজিত বিভিন্ন স্মরণ সভায় যেতাম। এখন আর সেভাবে যাওয়া হয়ে উঠে না। ঘরে বসেই ছেলের জন্য দোয়া করি। সবার কাছে আমি আমার ছেলের বিদেহী আতœার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া চাই। তিনি আরো জানান, সিলেটে সালমান শাহর জন্মস্থানে মিলাদ মাহফিল করার পাশাপাশি গরীব - এতিমদের খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

 
‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছবির মাধ্যমে ঢালিউডে পা রাখেন সালমান শাহ। এতে তার বিপরীতে ছিলেন মৌসুমী। সালমান শাহ অভিনীত অন্য ছবিগুলো হলো- তুমি আমার ( বিপরীতে শাবনূর) , অন্তরে  অন্তরে (মৌসুমী), কন্যাদান ( লিমা) , জীবন সংসার ( শাবনূর), চাওয়া থেকে পাওয়া ( শাবনূর) , সুজন সখী ( শাবনূর) , বুকের ভেতর আগুন (শাবনূর), এই ঘর এই সংসার (বৃষ্টি), স্নেহ ( মৌসুমী), বিচার হবে (শাবনূর), প্রেমযুদ্ধ (লিমা), মহা মিলন (শাবনূর), তোমাকে চাই (শাবনূর), বিক্ষোভ (শাবনূর), আশা ভালোবাসা (শাবনাজ), মায়ের অধিকার (শাবনাজ), আঞ্জুমান (শাবনাজ) , আনন্দ অশ্র“ (শাবনূর) , সত্যের মৃত্যু নেই (শাহনাজ), প্রিয়জন (শিল্পী), শুধু তুমি (শ্যামা), স্বপ্নের পৃথিবী (শাবনূর), স্বপ্নের নায়ক (শাবনূর), দেন মোহর (শাবনূর) ও স্বপ্নের ঠিকানা (শাবনূর)। সালমান শাহের সঙ্গে সর্বাধিক ১৪টি ছবিতে অভিনয় করেছিলেন শাবনূর।

সালমান শাহ অভিনীত প্রত্যেকটি ছবিই দেশের বিভিন্ন অডিও ভিডিও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠিান ভিসিডি ডিভিডি আকারে বাজারে ছেড়েছে। সর্বশেষ অনুপম রেকর্ডিং মিডিয়া এবারের ঈদে তার অভিনীত ‘দেন মোহর’ ছবিটি ভিসিডি ডিভিডি আকারে বাজারে ছাড়ে।

বাংলাদেশ সময় ১৫৫০, সেপ্টেম্বর ০৫, ২০১১

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa