ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৯ শাবান ১৪৪৫

বিনোদন

‘মেধা পাচার’কে কেন্দ্র করে ধারাবাহিক, প্রচার শুরু আজ

বিনোদন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫১৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৮, ২০২৩
‘মেধা পাচার’কে কেন্দ্র করে ধারাবাহিক, প্রচার শুরু আজ

গত ঈদুল ফিতর এবং ঈদুল আযহায় প্রচারিত সাত পর্বের বিশেষ ধারাবাহিক ‘হাবুর স্কলারশিপ’। নাটকের অভাবনীয় সাফল্যের পরই একই নামে নির্মিত হয়েছে দীর্ঘ ধারাবাহিক।

মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) থেকে শুরু হচ্ছে নতুন দীর্ঘ ধারাবাহিক ‘হাবুর স্কলারশিপ’র প্রচার।

জানা গেছে, বৈশাখী টেলিভিশনে আজ রাত ৮টা ৪০ মিনিটে প্রচার হবে নাটকটির প্রথম পর্ব। এরপর থেকে প্রতি মঙ্গল, বুধ ও বৃহস্পতিবার একই সময়ে প্রচার হবে নাটকটির একেকটি করে পর্ব।   

‘মিড এন্টারপ্রাইজ’ প্রযোজিত এ নাটকের মাধ্যমেই জনপ্রিয় অভিনেতা রাশেদ সীমান্ত প্রথমবার কোনো দীর্ঘ ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করছেন। বৈশাখী টিভির উপব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক টিপু আলম মিলনের গল্পে, আহসান আলমগীরের চিত্রনাট্যে নাটকটি পরিচালনা করেছেন আল হাজেন।

রাশেদ সীমান্ত ছাড়াও গত দুই সিজনে অভিনয় করেন তানজিকা আমিন, অলিউল হক রুমি, শফিক খান দিলু, হায়দার আলী, সাইকা আহমেদসহ অনেকে। এবার ধারাবাহিকে নতুন করে যুক্ত হয়েছেন অহনা রহমান, মৌসুমী হামিদ, নীলা ইসলামসহ এক ঝাঁক তারকা।

ইতোমধ্যেই নাটক দুটি বাংলাদেশ এবং অস্ট্রেলিয়ায় চিত্রায়িত হয়। নাটকের গল্পে দেখা যায় গ্রামের অত্যন্ত সহজ সরল একটি ছেলে হাবু স্কলারশিপ পেয়ে অস্ট্রেলিয়ায় পড়ালেখা করতে যায় এবং সেই বিশ্ববিদ্যালয়ে পূর্বের সকল রেকর্ড ভেঙে দিয়ে ছেলেটি ফার্স্ট হয়। হাবু অস্ট্রেলিয়া যে পাঁচ বছর পড়ালেখা করে সেই সময় হাবুর যে কোন বিপদে আপদে পাশে এসে দাঁড়ায় তারই আরেক বাংলাদেশি সহপাঠী মারজান।

যে বিশ্ববিদ্যালয়ে হাবু পড়াশোনা করে তাকে সেখান থেকেই অফার করে সে যেন ফ্যাকাল্টির মেম্বার হিসেবে জয়েন করেন কিন্তু হাবু জানায় সে তার মেধা তার দেশের জন্যই কাজে লাগাতে চায়। সবকিছু উপেক্ষা করে হাবু দেশে ফিরে আসেন। আগের পর্বগুলো এভাবেই শেষ হয়। ঠিক এখান থেকেই শুরু- ‘হাবুর স্কলারশিপ’ ধারাবাহিক নাটকের গল্প। নানা ঘাত-প্রতিঘাত আর প্রতিকূলতার মধ্য দিয়েই এগিয়ে চলবে নাটকের কাহিনী।  

নাটকের গল্পকার বৈশাখী টিভির উপব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক টিপু আলম মিলন বলেন, হাবুর স্কলারশিপ নাটকের গল্পটি মূলত: মেধা পাচারকে কেন্দ্র করে। আমরা প্রতিনিয়তই দেখি শত শত মেধাবী ছাত্র-ছাত্রী বিদেশে পড়তে গিয়ে আর ফিরে আসে না। এভাবেই দেশটি মেধাশূন্য হয়ে যাচ্ছে। তারা যদি ফিরে এসে নিজের মেধাকে দেশের উন্নয়নে কাজে লাগাতো তাহলে দেশ অনেক উপকৃত হতো। কিন্তু তা হচ্ছে না। মেধাবীরা অনেক সুযোগ সুবিধার লোভে প্রবাসেই থেকে যাচ্ছে। বিষয়টি আমাকে ভীষণভাবে তাড়িত করে। এমন ভাবনা থেকেই হাবুর স্কলারশিপ নাটকের গল্প।

তিনি আরও বলেন, গেল দুই ঈদে সাত পর্ব করে নাটকটি বৈশাখী টিভিতে প্রচারিত হয়। নাটক দুটি নিয়ে দর্শকদের উচ্ছাস এবং ভালোবাসা দেখে আমি বিস্মিত! দর্শকদের কথা চিন্তা করেই হাবুর স্কলারশিপ নাটকটি দীর্ঘ ধারাবাহিক করার সিদ্ধান্ত নেই। পুরনোদের সঙ্গে নতুন আরও অনেক অভিনেতা-অভিনেত্রী যুক্ত হয়েছে। নাটকটি দর্শকদের ভালো লাগবে বলে আমার বিশ্বাস।

বাংলাদেশ সময়: ১৫১৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৮, ২০২৩
এনএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।