ঢাকা, শনিবার, ২১ মাঘ ১৪২৯, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১২ রজব ১৪৪৪

বিনোদন

থানাতেই অভিনেত্রীকে ধর্ষণ ও খুনের হুমকি!

বিনোদন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৩৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৯, ২০২২
থানাতেই অভিনেত্রীকে ধর্ষণ ও খুনের হুমকি! নবনীতা দাস

থানার ভেতরেই পুলিশের কাছে হেনস্থার শিকার অভিনেতা জীতু কমল ও তার স্ত্রী অভিনেত্রী নবনীতা দাস। ঝামেলার সূত্রপাত হয় তাদের গাড়ি দুর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নিমতা থানার কাছে তাদের গাড়িতে এসে পন্যবাহী অন্য একটি গাড়ি ধাক্কা দেয়। তারপরেই শুরু হয় বাক বিতণ্ডা। এ কারণে দুই পক্ষকে থানায় নেওয়া হয়।

নবনীতা ও জীতুর অভিযোগ, সেখানে পুলিশের সামনেই তাদের খুনের এমনকী নবনীতাকে ধর্ষণের হুমকি দেয় তারা। পুলিশ তাদের কোন বাধা না দিয়ে তাদের ছেড়ে দেয়। এরপর থেকে প্রায় আড়াই ঘণ্টা ঐ থানাতেই আটকে থাকে জীতু ও তার স্ত্রী।

ফেসবুকে লাইভে এসে নিজের ক্ষোভ উগরে দেন অভিনেত্রী। এমনকী কেঁদেও ফেলেন তিনি। সেখানে পুলিশি হেনস্থার কথাও তুলে ধরেন তারা।

জানা যায়, অভিনেতা জীতু কমল ও তার স্ত্রী নবনীতা দাস বৃহস্পতিবার (৮ ডিসেম্বর) দুপুরে তাদের নিজস্ব গাড়িতে যাচ্ছিলেন। অভিযোগ- সেই সময় নিমতা মাঝেরহাটি মোড়ে তাদের গাড়িকে একটি পন্যবাহী গাড়ি ধাক্কা মারে। সে সময় অভিনেতাদের গাড়ির চালক সেই গাড়িটিকে আটকানোর চেষ্টা করলে তাকে গাড়িতে চাপা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়।

এরপর অভিনেতা-অভিনেত্রী থানায় অভিযোগ জানাতে গেলে বেশ কিছুক্ষণ ধরে থানায় তাদের অপেক্ষা করতে হয় এবং ঠিক সেই সময় তাদের গাড়ি চালককে ওই পণ্যবাহী গাড়ি চালকরা হেনস্থা করতে থাকে। তারা তা দেখতে পেয়ে ছুটে যান এবং তাদের চালককে থানায় নিয়ে আসলে থানার গেটের মুখে অভিনেত্রীকে মেরে ফেলার হুমকি দেয় ঐ যুবকেরা। এই ঘটনা নিয়ে পুলিশ প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন জীতু ও নবনীতা।

ফেসবুক লাইভে এসে কেঁদে ফেলেন নবনীতা। জীতু বলেন, সদ্য রক্ত দিয়ে এসেছে তার স্ত্রী। কিন্তু যখন এই ঝামেলায় তারা থানায় আসে, সেখানে তাদের বসতেও দেওয়া হয়নি। এর আগেও সেই থানায় হেনস্থার মুখে পড়েছেন বলে অভিযোগ করেন জীতু।

নবনীতা বলেন, পুলিশির সামনেই তাকে ধর্ষণ ও খুনের হুমকি দেওয়া হয়। কিন্তু পুলিশ তাদের কিছুই বলে না। এমনকী ঐ যুবকদের ভয়ে থানা থেকে বের হতেও ভয় পাচ্ছেন তিনি। এ কারণে দীর্ঘ সময় থানাতেই বসে থাকেন তারা। সেখান থেকেই লাইভে এসে অভিনেত্রী জানান, তার শরীর খারাপ লাগছে কিন্তু তিনি থানা থেকে বের হতে ভয় পাচ্ছেন।

সংবাদমাধ্যমে খবর সম্প্রচারিত হওয়ার পরে নড়েচড়ে বসে পুলিশ। জানা যায়, অভিযুক্ত পুলিশ অফিসারের বিরুদ্ধে বিচার বিভাগীয় তদন্ত শুরু হবে।

পুলিশের দাবি, নবনীতা দাস অভিযোগের ভিত্তিতে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। এরপরেই অভিযুক্ত গাড়ি চালককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এছাড়া একজন পুলিশের বিরুদ্ধেও অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৯, ২০২২
এনএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa