ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

নির্বাচন ও ইসি

কুসিক নির্বাচন: তবে কি সীমাই পাচ্ছেন নৌকার টিকিট? 

তৈয়বুর রহমান সোহেল, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২২৬ ঘণ্টা, মে ১৩, ২০২২
কুসিক নির্বাচন: তবে কি সীমাই পাচ্ছেন নৌকার টিকিট?  সংসদ সদস্য আঞ্জুম সুলতানা সীমা

কুমিল্লা: গত বুধবার (১১ মে) দলীয় কার্যালয় থেকে কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য আঞ্জুম সুলতানা সীমা।  

মেয়র পদে নির্বাচন করতে হলে তাকে এমপির (সংসদ সদস্য) পদ ছাড়তে হবে।

এবার সিটি নির্বাচন উপলক্ষে আগবাড়িয়ে প্রচার-প্রচারণায় যাননি তিনি। কিন্তু বুধবার দলীয় মনোনয়নপত্র কেনায় সীমার নির্বাচন করা নিয়ে আগ্রহ স্পষ্ট হলো।  

এদিকে তফসিল ঘোষণার পর এক প্রতিক্রিয়ায় আঞ্জুম সুলতানা সীমা বলেন, প্রধানমন্ত্রী আমাকে ভালোবেসে এমপি বানিয়েছেন। তিনি চাইলে আমি সিটি নির্বাচনে অংশ নেব। আমি নেত্রীর সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি।

এর মধ্যেই মনোনয়নপত্র কিনলেন সীমা। তাহলে প্রধানমন্ত্রীর গ্রিন সিগন্যাল পেয়েই কি দলীয় মনোনয়নপত্র কিনলেন তিনি? এ প্রশ্নের জট খুলতে পারে শুক্রবার (১৩ মে) সন্ধ্যায়।

এদিকে কুসিক ভোটে মনোনয়ন দিতে স্থানীয় আওয়ামী লীগ থেকে কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরফানুল হক রিফাতের নাম কেন্দ্রে পাঠানো হয়। স্থানীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহারের ঘনিষ্ঠজন হিসেবে পরিচিত তিনি। সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার দৌড়ে স্বাভাবিকভাবে তিনিও এগিয়ে থাকবেন।  

জোর আলোচনায় আছে মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক নূর-উর-রহমান মাহমুদ তানিমের নামও। তরুণ প্রজন্মের কাছে বেশ জনপ্রিয় একটি নাম তানিম। কেন্দ্রে তার অবস্থানও বেশ ভালো। দলীয় মনোনয়নে তার পাল্লাও ভারীই থাকছে।
 
আরও ১১ জন আওয়ামী লীগ নেতা দলীয় মনোনয়নপত্র কিনেছেন। তাদের মধ্যে মহানগর আওয়ামী লীগের যুব বিষয়ক ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আনিসুর রহমান মিঠুসহ আরও কয়েকজন নেতা বেশ কিছুদিন ধরেই সিটি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার আগ্রহ প্রকাশ করে প্রচারে নেমেছিলেন। আলোচনায় আছে আওয়ামী লীগ নেতা কবির শিকদারের নামও।

এদিকে কুমিল্লা আঞ্চলিক নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, স্বতন্ত্র তিন, জাতীয় পার্টি ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মোট পাঁচ প্রার্থী স্থানীয় কার্যালয় থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। স্বতন্ত্রের ব্যানারে মনোনয়নপত্র কিনেছেন দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান মেয়র মনিরুল হক সাক্কু এবং মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নিজাম উদ্দিন কায়সার। সাধারণ ও সংরক্ষিত মিলিয়ে ১৮২ জন কাউন্সিলর প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। তবে দলীয় সিদ্ধান্ত না আসায় আওয়ামী লীগের কেউ স্থানীয় কার্যালয় থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেননি।

আসন্ন নির্বাচনে কুমিল্লা সিটি করপোরেশনে তৃতীয় লিঙ্গের এক ভোটারসহ মোট ভোটার দুই লাখ ২৭ হাজার ৭৯২ জন। এর মধ্যে নারী ভোটার এক লাখ ১৬ হাজার ১৯১ ও পুরুষ ভোটার এক লাখ ১১ হাজার ৬০০ জন। ২৭টি ওয়ার্ডের সম্ভাব্য ১০৩টি কেন্দ্রে ভোট হবে। নির্বাচনের দুই-তিনদিন আগে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোটগ্রহণ সম্পর্কে জনগণকে ধারণা দেওয়া হবে। নির্বাচনের সরঞ্জামাদি কুমিল্লা জিলা স্কুল থেকে গ্রহণ ও বিতরণ করা হবে। আগামী ১৯ মে কুমিল্লা জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই করা হবে। ২৬ মে মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন। ২৭ মে শিল্পকলা একাডেমিতে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে।

গত ২৫ এপ্রিল কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়। ৫ মে মনোনয়নপত্র বিক্রি শুরু হয়। আগামী ১৫ মে পর্যন্ত মেয়র মনিরুল হক সাক্কু তার দায়িত্ব পালন করবেন। ১৬ মে থেকে প্রশাসক বসবে কুমিল্লা সিটি করপোরেশনে।

বাংলাদেশ সময়: ১২২১ ঘণ্টা, মে ১৩, ২০২২
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa