ঢাকা, বুধবার, ১২ শ্রাবণ ১৪২৮, ২৮ জুলাই ২০২১, ১৭ জিলহজ ১৪৪২

নির্বাচন ও ইসি

ইউপি নির্বাচন: বরিশালে ৪১টিতে নৌকার জয়

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১০০ ঘণ্টা, জুন ২২, ২০২১
ইউপি নির্বাচন: বরিশালে ৪১টিতে নৌকার জয়

বরিশাল: ককটেল বিস্ফোরণে দু’জন নিহত হওয়াসহ বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে প্রথম ধাপে বরিশাল জেলার ৫০টি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এরমধ্যে ৪১টি ইউনিয়নে নৌকা, তিনটিতে লাঙল, একটিতে হাতপাখা ও পাঁচটিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়ী হয়েছেন।

 

জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
 
সোমবার (২১ জুন) অনুষ্ঠিত ৩৬ ইউনিয়নের নির্বাচনের মধ্যে বরিশাল সদর উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নে কামাল হোসেন মোল্লা নৌকা প্রতীক নিয়ে তিন হাজার ৯৫৬ ভোট, জাগুয়া ইউনিয়নে ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী হেদায়াতুল্লাহ খান হাতপাখা প্রতীক নিয়ে দুই হাজার ৩৯৬ ভোট, চরবাড়িয়া ইউনিয়নে মাহাতাব হোসেন নৌকা প্রতীক নিয়ে ছয় হাজার ৮৯৯ ভোট ও টুঙ্গিবাড়িয়া ইউনিয়নে নাদিরা রহমান চশমা প্রতীক নিয়ে পাঁচ হাজার ৫৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার সদর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী নিজাম উদ্দীন আনারস প্রতীকে তিন হাজার ১৫৯ ও একই উপজেলার ভাষানচর ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে নজরুল ইসলাম চুন্নু পাঁচ হাজার ৮০৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

হিজলা উপজেলার বড়জালিয়া ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের এনায়েত হোসেন হাওলাদার ১২ হাজার ৮৫৪, হরিনাথপুর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ তৌফিকুর রহমান পাঁচ হাজার ৪৯২, গুয়াবাড়িয়া ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে শাহজাহান তালুকদার ছয় হাজার ৩৪৩ ও মেমানিয়া ইউনিয়নে ঘোড়া প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী নাসির উদ্দিন চার হাজার ৪৩৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

মুলাদী উপজেলার গাছুয়া ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে জসিম উদ্দিন পাঁচ হাজার ৭৮৫, কাজিরচর ইউনিয়নের নৌকা প্রতীক নিয়ে মন্টু বিশ্বাস নয় হাজার ৪৬৭, সফিপুর ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে মো. আবু মুসা ১৩ হাজার ৩৪৬, নাজিরপুর ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে মোস্তাফিজুর রহমান আট হাজার ৫৩৩ ও চরকালেখান ইউনিয়নে লাঙল প্রতীক নিয়ে মিরাজুর ইসলাম চার হাজার ৬২৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

গৌরনদী উপজেলার শরিকল ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে ১৩ হাজার ২৬৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী ফারুক হোসেন মোল্লা।

বানারীপাড়া উপজেলার চাখার ইউনিয়নে মজিবুল ইসলাম টুকু নৌকা প্রতীক নিয়ে আট হাজার ৬৭৫ ও বাইশারি ইউনিয়নে শ্যামল চক্রবর্তী নৌকা প্রতীক নিয়ে ছয় হাজার ২১৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

উজিরপুর উপজেলার সাতলা ইউনিয়নে শাহীন হাওলাদার নৌকা প্রতীক নিয়ে ১১ হাজার ৮৮৪, বড়াকোঠা ইউনিয়নে সহিদুল ইসলাম নৌকা প্রতীক নিয়ে ১৪ হাজার ৮৪, জল্লা ইউনিয়নে বেবী রানী দাস নৌকা প্রতীক নিয়ে ১৪ হাজার ৮৪ ও ওটরা ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে এম এ খালেক ১২ হাজার ২১৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

বাবুগঞ্জ উপজেলার মাধবপাশা ইউনিয়নে লাঙল প্রতীক নিয়ে সিদ্দিকুর রহমান সাত হাজার ২৮২, দেহেরগতি ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে মশিউর রহমান নয় হাজার ৩৮৮, কেদারপুর ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে নুরে আলম ছয় হাজার ৬৮৮ ও বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীরনগর (আগরপুর) ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী কামরুল আহসান খান আনারস প্রতীক নিয়ে ছয় হাজার ৭৩৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

বাকেরগঞ্জ উপজেলার পাদ্রিশিবপুর ইউনিয়নে জাহিদুল হাসান নৌকা প্রতীক নিয়ে নয় হাজার ৬৪৯, রঙ্গশ্রী ইউনিয়নে বশির উদ্দিন নৌকা প্রতীক নিয়ে সাত হাজার ৯৪৪, ভরপাশা ইউনিয়নে আশ্রাফুজ্জামান খান নৌকা প্রতীক নিয়ে সাত হাজার ৯৬৬, গারুড়িয়া ইউনিয়নে এস এম কাইউম খান লাঙল প্রতীক নিয়ে ছয় হাজার ৮৬৭, কলসকাঠি ইউনিয়নে ফয়সাল ওয়াহিদ নৌকা প্রতীক নিয়ে ছয় হাজার ৩৫৪, কবাই ইউনিয়নে জহিরুল হক তালুকদার নৌকা প্রতীক নিয়ে পাঁচ হাজার ৩৯, নলুয়া ইউনিয়নে আ স ম ফিরোজ আলম খান নৌকা প্রতীক নিয়ে তিন হাজার ৯২৬, ফরিদপুর ইউনিয়নে এস এম শফিকুর রহমান নৌকা প্রতীক নিয়ে চার হাজার ৩৬৬, দাঁড়িয়াল ইউনিয়নে সহিদুল ইসলাম হাওলাদার নৌকা প্রতীক নিয়ে পাঁচ হাজার ৪৩২ ও চরাদি ইউনিয়নে মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম নৌকা প্রতীক নিয়ে ছয় ২৭৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।  

এর আগে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ১৪ জন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছেন। তারা হলেন- উজিরপুর উপজেলার শোলক ইউনিয়নে আবদুল হালিম সরদার, মুলাদী সদর ইউনিয়নে কামরুল আহসান, গৌরনদী উপজেলার নলচিড়া ইউনিয়নে গোলাম হাফিজ মৃধা, মাহিলাড়া ইউনিয়নে সৈকত গুহ, খাঞ্জাপুর ইউনিয়নে নূর আলম সেরনিয়াবাত, বার্থী ইউনিয়নে আবদুর রাজ্জাক, বাটাজোর ইউনিয়নে আবদুর রব হাওলাদার, চাদশী ইউনিয়নে নজরুল ইসলাম, বানারীপাড়া উপজেলায় বিশারকান্দি ইউনিয়নে সাইফুল ইসলাম, ইলুহার ইউনিয়নে শহিদুল ইসলাম, সলিয়াবাকপুর ইউনিয়নে মো. সিদ্দিকুর রহমান, বানারীপাড়া সদর ইউনিয়নে আবদুল জলিল ঘরামী, উদয়কাঠি ইউনিয়নে রাহাদ আহম্মেদ ও বাকেরগঞ্জ উপজেলার দুধল ইউনিয়নে গোলাম মোর্শেদ।

বরিশাল জেলার নয়টি উপজেলায় সর্বমোট ভোটার সংখ্যা ৯ লাখ ২০ হাজার ৪৬৩ জন। এর মধ্যে নারী ভোটার চার লাখ ৫২ হাজার ৩৩০ ও পুরুষ ভোটার চার লাখ ৬৮ হাজার ১৩৩ জন। ৪৭৪টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে দুই হাজার ৯৬৮টি ভোটকক্ষে ভোটগ্রহণ হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১০৫৯ ঘণ্টা, জুন ২২, ২০২১
এমএস/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa