ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৯ জিলহজ ১৪৪২

নির্বাচন ও ইসি

নির্বাচনের মাঠে পারিবারিক লড়াই, প্রার্থী বাবা-ছেলে, স্বামী-স্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১২৬ ঘণ্টা, জুন ২০, ২০২১
নির্বাচনের মাঠে পারিবারিক লড়াই, প্রার্থী বাবা-ছেলে, স্বামী-স্ত্রী

ঝালকাঠি: সারা দেশের বিভিন্ন এলাকার মতো আগামী ২০ জুন (সোমবার) ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলার দপদপিয়া ইউনিয়নে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে নির্বাচন। প্রার্থীর সংখ্যা বেশি হলেও প্রচার প্রচারণার মাঠ ছিলো অনেকটাই স্বাভাবিক।

তবে, বিদ্রোহী প্রার্থী মাঠে নামতেই বাধা-বিপত্তির মুখে অনেকটাই কোণঠাসা হয়ে পড়েন।

এছাড়া এ ইউনিয়নে বাবা-ছেলে, স্বামী-স্ত্রী প্রার্থী হওয়ায় আলাদা আমেজ বিরাজ করছে। তবে, বাবার বিরুদ্ধে ছেলে ও স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রী ডামি প্রার্থী না হলে নির্বাচনের মাঠে পারিবারিক লড়াই অনেকটাই উত্তাপ ছড়াতো বলে দাবি ভোটারদের।

জানা গেছে, আগামী ২১ জুন অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন নৌকা প্রতীক নিয়ে বর্তমান চেয়ারম্যান ছোহরাব হোসেন বাবুল মৃধা। তার পরিবারের আরো দুই জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন এইক পদে। আনারস প্রতীক নিয়ে তার ছেলে সাদ্দাম হোসেন আকিব ও অটোরিকশা প্রতীক নিয়ে মামাতো ভাই গোলাম হোসেন। যদিও বাবুল মৃধা ছাড়া অন্য দু'জন সাজানো (ডামি) প্রার্থী বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।
 
এদিকে দলের বিদ্রোহী প্রার্থী (স্বতন্ত্র) হিসেবে মাঠে রয়েছেন ঘোড়া প্রাতীক নিয়ে মিজানুর রহমান হাওলাদার। একই পদে তার স্ত্রী সুমনা রহমান লড়ছেন মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে।

তিনিও সাজানো (ডামি) প্রার্থী বলে জানা গেছে। এছাড়াও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের হাতপাখা প্রতীকে কাঞ্চন আলী খান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী বজলুর রহমান হাওলাদার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন এ ইউনিয়নে।

ভোটাররা বলছেন, প্রকৃতপক্ষে লড়াইটা হচ্ছে বর্তমান চেয়ারম্যান ছোহরাব হোসেন বাবুল মৃধা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মিজানুর রহমান হাওলাদারের মধ্যে। তবে বাছাইসহ নানান কারণে বাবা-ছেলে এবং স্বামী-স্ত্রী প্রার্থী হয়েছেন। যাতে একজন বাদ পড়লে অন্যজন টিকে থাকতে পারেন। আবার কেউ কেউ বলছেন, ভবিষ্যত নির্বাচনের জন্য তাদের তৈরি করতেই মাঠে নামানো। তবে, ভোট কাটার কৌশল হিসেবেও কেউ কেউ দেখছেন এটিকে।

নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী ছোহরাব হোসেন বাবুল মৃধার দাবি তিনি সততার কারণেই দুইবার নির্বাচিত হয়েছেন। এবারেও তাকে জনগণ ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবেন।
 
তিনি জানান, ছেলে ও মামাতো ভাই প্রার্থী হলেও তার পাশে রয়েছেন তারা। আর নির্বাচনী মাঠে প্রচারণায় নেমেই ক্ষমতাসীনদের বাধার মুখে কোণঠাসা অবস্থায় থাকা স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মিজানুর রহমান হাওলাদারের দাবি মানুষ স্বাভাবিকভাবে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট দিতে পারে।  

সেসঙ্গে বহিরাগত সন্ত্রাসীদের প্রবেশ ঠেকানোর দাবিও করেছেন তিনি। আর তার স্ত্রী প্রার্থী হলেও তার পক্ষেই রয়েছেন বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, ভোট সুষ্ঠ হতে হবে। বহিরাগত কোনো সন্ত্রাসী যেন এলাকায় প্রবেশ করতে না পারে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে রিটার্নিং কর্মকতার। মানুষ যেন ২১ জুন কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারে, এটাই আমার কামনা। আমার স্ত্রী প্রার্থী হলেও আমার পক্ষেই কাজ করবেন।

নলছিটি উপজেলা ১০টি ইউনিয়নের মধ্যে দপদপিয়া ইউনিয়নেই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সংখ্য বেশি। এ ইউনিয়নে ১৮ হাজার ৯শ ভোটার ইভিএমে ভোট দেবেন।

বাংলাদেশ সময়: ১১২০ ঘণ্টা, জুন ২০, ২০২১
এমএস/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa