ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ ফাল্গুন ১৪২৭, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৩ রজব ১৪৪২

নির্বাচন ও ইসি

পৌরনির্বাচনের সুযোগে দল গুছিয়ে নিচ্ছে বিএনপি

সোলায়মান হাজারী ডালিম, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫১৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৩, ২০২১
পৌরনির্বাচনের সুযোগে দল গুছিয়ে নিচ্ছে বিএনপি

ফেনী: অভ্যন্তরীণ কোন্দল, রাজনৈতিক মামলা হামলার শঙ্কাসহ বিভিন্ন সংকটে নাজুক অবস্থা বিরাজ করছিলো ফেনী জেলা বিএনপিতে। ফেনী পৌরনির্বাচনে কাউন্সিলর প্রার্থী ঘোষণাকে কেন্দ্র করে সেই বিভেদটি স্পষ্ট হয়ে উঠেছিল।

জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারী সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সুস্পষ্ট অভিযোগ তোলেন পৌর কমিটির বিরুদ্ধে। এই নিয়ে জল কম ঘোলা হয়নি, তবে মেয়র প্রশ্নে শেষমেশ তারা একাট্টা হয়েছেন। বিভেদ ভুলে মরিয়া হয়ে কাজ করছেন মাঠে।

নির্বাচনী গণসংযোগে অংশ গ্রহণ করে দল গোছাতে ভূমিকা রাখছেন কেন্দ্রীয় নেতারাও। এ নির্বাচনটি এক সময়কার ঘাঁটিতে পুনরায় দল গোছানোর বড় সুযোগ বলে মনে করছেন দলটির জেলা পর্যায়ের নেতারা। নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, আসন্ন ৩০ জানুয়ারির ফেনী পৌর নির্বাচনকে ঘিরে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী আলাল উদ্দিন আলালের নির্বাচনী গণ-সংযোগে অভ্যন্তরীণ কোন্দল ভুলে সবাই অংশ গ্রহণ করছেন। ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক দলসহ দলের সব অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।  

এক সময় যেখানে দলীয় কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে মিছিল মিটিংয়ে খুব বেশি নেতাকর্মীর দেখা মিলতো না, সেখানে পৌরনির্বাচনী প্রচারণায় বিএনপি প্রার্থী জেলা বিএনপির সদস্য সচিব আলাল উদ্দিন আলাল শত শত নেতাকর্মী নিয়ে প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন।  

পৌরনির্বাচনকে ঘিরে দলের নেতাকর্মীদের সক্রিয় হওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেছেন জেলা বিএনপির সদস্য সচিব ও পৌর মেয়র প্রার্থী আলাল উদ্দিন আলাল।  

তিনি বলেন, নির্বাচনকে ঘিরে নেতাকর্মীদের মধ্যে স্বতঃস্ফূর্ততা এসেছে আমরা ভুলে যাওয়া স্লোগান ‘ প্রতীকী কি ধানের শীষ’  মাঠে আবার প্রচার করেছি। ১২ নম্বর ওয়ার্ডে  ক্যাম্পেইন করার সময় ১২/১৩ বছর বয়সের এক ছেলে স্লোগান দিচ্ছে’ জয়-ধানের শীষের জয়’। এই শিশু কিশোরদের মাথায় ডুকে যাচ্ছে ধানের শীষের জয়।

তিনি আরও বলেন, আমাদের দলে অভ্যন্তরীণ কোন্দল নেই তবে প্রতিযোগিতা আছে।  

এ প্রসঙ্গে কথা হয় জেলা বিএনপির আহ্বায়ক শেখ ফরিদ বাহারের সঙ্গে। তিনি বলেন,  এ পৌরনির্বাচনকে ঘিরে দলের মধ্যে প্রাণ সঞ্চার হয়েছে। দলের মধ্যে ঐক্য তৈরি হচ্ছে, এতে করে দল আরও শক্তিশালী হচ্ছে।  পৌর বিএনপির সদস্য সচিব মেসবাহ উদ্দিন বলেন, ফেনীতে বিএনপিকে গোছানোর জন্য বড় ধরনের ভূমিকা রাখছে ৩০ জানুয়ারির পৌরনির্বাচন। নেতাকর্মীরা সব বিভেদ ভুলে কাজ করছে। এতে করে দলের সাংগঠনিক ভিত মজবুত হচ্ছে।

জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সালাহ উদ্দিন মামুন বলেন, পৌরনির্বাচনকে ঘিরে দল চাঙ্গা হচ্ছে এতে কোনো সন্দেহ নেই। আগে প্রশাসন থেকে এত সুযোগ-সুবিধা পাওয়া যায়নি যা এবার পাওয়া যাচ্ছে। নেতাকর্মীরা প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন, মাঠে সক্রিয় আছেন। এর ফলে দলে সাংগঠনিক সক্ষমতা বাড়বে।  

অপরদিকে ফেনী পৌরনির্বাচনে  আওয়ামীলীগ প্রার্থী ও ফেনী পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী বলেন, বিএনপির ভোটের জন্য নির্বিঘ্নে প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন। বিএনপির শাসনামলে এমন উৎসবমুখর পরিবেশ ছিল না। শহরের মাস্টার পাড়াতে গিয়েও তারা নির্বাচনী প্রচারণা করে এসেছে। এমন পরিবেশ তারা আগে তৈরি করতে পারেনি। শহরের রামপুরে আওয়ামীলীগ প্রার্থীরা গিয়ে ভোট চাইতে পারত না। এখন সে সংস্কৃতির পরিবর্তন হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৫১৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৩, ২০২১
এসএইচডি/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa