ঢাকা, রবিবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৬ মে ২০২৪, ১৭ জিলকদ ১৪৪৫

নির্বাচন ও ইসি

‘একাদশের চেয়ে এই নির্বাচনের অবস্থান আরও নিচে’

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৫০ ঘণ্টা, নভেম্বর ১২, ২০২০
‘একাদশের চেয়ে এই নির্বাচনের অবস্থান আরও নিচে’

ঢাকা: ঢাকা-১৮ উপ-নির্বাচন মোটেই অংশগ্রহণমূলক হয়নি। আমি বিরোধীদলের কোনো পোলিং এজেন্ট কোনো কেন্দ্রে দেখিনি।

নির্বাচনের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে আমার ধারণা হয়েছে বিগত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের চেয়ে এই নির্বাচন আরও নিচে নেমে গেছে। বলে মন্তব্য করেছেন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার।

বৃহস্পতিবার (১২ নভেম্বর) নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মাহবুব তালুকদার একথা বলেন।

ঢাকা-১৮ উপ-নির্বাচন সম্পর্কে তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত আমি ঢাকা-১৮ নির্বাচনী এলাকার উপ-নির্বাচনে নিকুঞ্জ, খিলক্ষেত ও উত্তরার ১৪টি কেন্দ্রের ৭০টি বুথ পরিদর্শন করেছি। কেবল কুর্মিটোলা মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, খিলক্ষেতের ভোটকেন্দ্রে একটি বুথে নারী পোলিং এজেন্টের উপস্থিতি দেখতে পাই।

‘পুরো নির্বাচনী এলাকায় একটি দলের পোস্টার, প্ল্যাকার্ড ও বিলবোর্ড দেখা যায়, যা আচরণবিধি অনুযায়ী নির্বাচনের আগে তুলে ফেলা উচিত ছিল। নির্বাচনকে আমি কেবল প্রার্থীর বা দলের জয় পরাজয় বলে মনে করি না। নির্বাচন হচ্ছে গণতন্ত্রে উত্তরণের একমাত্র অবলম্বন ‘

আরও পড়ুন>>>নির্বাচনের ব্যাপারে আমাদের কাছ থেকে আমেরিকার শেখার আছে: সিইসি

তিনি বলেন, নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ, অংশগ্রহণমূলক ও গ্রহণযোগ্য না হলে ক্ষমতার হস্তান্তর স্বাভাবিক হতে পারে না। নির্বাচন সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য না হলে দেশের স্থিতিশীলতা, সামাজিক অস্থিরতা ও ব্যক্তির নৈরাশ্য বাড়ে। এর ফলে নৈরাশ্য থেকে নৈরাজ্য সৃষ্টি হওয়ার আশংকা রয়েছে। নৈরাজ্য প্রবণতা কোনো গণতান্ত্রিক দেশের জন্য মোটেই কাম্য নয়। আমি নির্বাচন প্রক্রিয়ার সংস্কার প্রত্যাশা করি, তা না হলে দেশ অনিশ্চিত গন্তব্যের দিকে অগ্রসর হতে পারে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪৭ ঘণ্টা, নভেম্বর ১২, ২০২০
এমআইএস/এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।