ঢাকা, বুধবার, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৫ আগস্ট ২০২০, ১৪ জিলহজ ১৪৪১

নির্বাচন ও ইসি

পোলিং এজেন্ট বের করে দিলে ভোট স্থগিতের প্রস্তাব

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০১-১৬ ০৭:১৩:৩৯ এএম
পোলিং এজেন্ট বের করে দিলে ভোট স্থগিতের প্রস্তাব

ঢাকা: ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটকেন্দ্র থেকে পোলিং এজেন্ট বের করে দিলে ওই কেন্দ্রে নির্বাচন স্থগিত করার প্রস্তাব জানিয়েছেন বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়ালের প্রতিনিধি আতাউর রহমান ঢালী।

বুধবার (১৫ জানুয়ারি) আগারগাঁওয়ের ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে নির্বাচন মনিটরিং টিমের সভা শেষে বাংলানিউজকে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, মনিটরিং টিমের সভায় আমরা প্রস্তাব করেছি কোনো কেন্দ্রে যদি পোলিং এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয় তাহলে সেই কেন্দ্রের ভোট স্থগিত রাখতে হবে।

তিনি আরো বলেন, আমরা ইভিএমের ভোটে বিশ্বাস করি না। এটি আমাদের দেশে প্রচলিত নয়। তাই সব মিডিয়ায় ইভিএমের প্রচারণা চালাতে হবে। একইসঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচারণার সুযোগ দাবি করেন তিনি।  

আতাউর রহমান ঢালী বলেন, আওয়ামী লীগের প্রার্থী নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন, আমরা একাধিকবার লিখিতভাবে বিষয়টি জানিয়েছি। তবে সেগুলোর কোনো ব্যবস্থা নেননি রিটার্নিং অফিসার।  

তিনি আরো বলেন, আমরা প্রার্থীর নিরাপত্তার ব্যাপারেও প্রস্তাব করেছি।

এদিকে, আওয়ামী লীগের উত্তরের মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলামের প্রতিনিধি বিশ্বাস লুৎফর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, আমরা নির্বাচন কেন্দ্রে যেসব পোলিং এজেন্ট থাকবে এদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার প্রস্তাব করেছি। ইভিএমে প্রথম ভোট হবে এটি প্রচারের জন্য আমাদের সিডি সরবরাহের প্রস্তাব করেছি।

কমিউনিস্ট পার্টির মেয়র প্রার্থী প্রতিনিধি মাশরুর আমান বলেন, আমরা প্রার্থীর নিরাপত্তার বিষয়টি বলেছি। একইসঙ্গে কোনো ভোটকেন্দ্রে সংঘর্ষ হলে সেই ভোটকেন্দ্র স্থগিত রাখার প্রস্তাব করেছি।

ন্যাশনাল পিপলস পার্টি পার্টির মেয়র প্রার্থীর প্রতিনিধি মো. আখতারুজ্জামান বলেন, আমরা প্রার্থীর নিরাপত্তার বিষয়ে জোরালো প্রস্তাব রেখেছি।

এর আগে, নির্বাচনী এলাকায় অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে নির্বাচন কর্মকর্তা ও মেয়র প্রার্থীদের প্রতিনিধিদের সমন্বয় গঠিত  নির্বাচন মনিটরিং টিমের প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন উত্তর সিটি করপোরেশনের রিটার্নিং অফিসার মো. আবুল কাশেম। উপস্থিত ছিলেন ছয় জন মেয়র প্রার্থীর প্রতিনিধি ও সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসার।

এই টিম নির্বাচন সংক্রান্ত আইন, বিধি নির্বাচনী আচরণবিধি এবং নির্বাচনের সার্বিক বিষয়ে যথাযথ ও সঠিকভাবে পালন হচ্ছে কিনা তা তদারকি করবে ও প্রতিফলনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলেও জানা গেছে।  

বাংলাদেশ সময়: ০২১২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৬, ২০২০
এসএমএকে/জেডএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa