ঢাকা, শুক্রবার, ২২ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৭ আগস্ট ২০২০, ১৬ জিলহজ ১৪৪১

নির্বাচন ও ইসি

উপজেলা-পৌরসভা ভোটের আপিল কর্তৃপক্ষ নিয়োগ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২৩৫৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৯
উপজেলা-পৌরসভা ভোটের আপিল কর্তৃপক্ষ নিয়োগ

ঢাকা: দেশের আটটি উপজেলা, তিনটি পৌরসভার সাধারণ ও ছয়টি পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের জন্য ১৪ অক্টোবর ভোটের তারিখ রেখে তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এসব নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করতে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসককে আপিল কর্তৃপক্ষ হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

ইসি উপ-সচিব মো. আতিয়ার রহমান আপিল কর্তৃপক্ষ নিয়োগের প্রজ্ঞাপন জারি করেছেন।
 
আটটি উপজেলার মধ্যে শেরপুর সদর, বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ, ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর ও চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএমে) ভোটগ্রহণ হবে।

ঝিনাইদহের মহেশপুর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর, নেত্রকোনার আটপাড়া ও নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলায় ভোট হবে ব্যালট পেপারে।  

২০১৯ সালের মার্চ থেকে জুন পর্যন্ত দেশের চার শতাধিক উপজেলায় পাঁচ ধাপে ভোটগ্রহণ করে নির্বাচন কমিশন।
 
পৌরসভায়:
দোহার, নবীনগর ও লালমোহন পৌরসভার সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ১৪ অক্টোবর। এছাড়া চাঁপাইনবাবগঞ্জের ১৫ নম্বর ওয়ার্ড, পরীগঞ্জের ৩ নম্বর ওয়ার্ড, জলঢাকার ১ নম্বর ওয়ার্ড, রাজৈরের ৪ নম্বর ওয়ার্ড, নড়াইলের ৮ নম্বর ওয়ার্ড ও লোহাগড়ার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদেও ভোট হবে এদিন।
 
এসব নির্বাচনের সময়সূচি একই রেখেছে নির্বাচন কমিশন। এক্ষেত্রে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় আগামী ১২ সেপ্টেম্বর, মনোনয়নপত্র বাছাই ১৫ সেপ্টেম্বর। আর প্রার্থিতা প্রত্যাহার ২২ সেপ্টেম্বর।
 
মনোনয়নপত্র বাছাই শেষে রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্ত কারো বিরুদ্ধে গেলে, সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি আপিল কর্তৃপক্ষ হিসেবে জেলা প্রশাসকের কাছে আপিল দায়ের করতে পারবেন।
 
সেখানেও সুবিচার পাননি বলে কেউ মনে করলে, আদালতে যাওয়ার সুযোগ রয়েছে সংশ্লিষ্টদের।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৯৫২ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ০৮, ২০১৯
ইইউডি/এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa