ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ আষাঢ় ১৪২৬, ২০ জুন ২০১৯
bangla news

মুন্সিগঞ্জের ৪ উপজেলায় নৌকা, ২টিতে আনারসের জয়

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৪-০১ ১২:২৬:০৯ পিএম
নির্বাচিতরা

নির্বাচিতরা

মুন্সিগঞ্জ: মুন্সিগঞ্জের পঞ্চম উপজেলা নির্বাচনে চতুর্থ ধাপে ৬ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে নৌকা প্রতীকের ৪ জন ও
আনারস প্রতীকের ২ জন নির্বাচিত হয়েছেন। উপজেলাগুলোর নির্বাহী কর্মকর্তারা (ইউএনও) এ খবর নিশ্চিত করেছেন। 

সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফারুক আহাম্মেদ জানান, সদর উপজেলার ১১৬টি
কেন্দ্রের সবগুলোতে ইভিএমে ভোটগ্রহন অনুষ্ঠিত হয়। বিকেল ৪টায় নির্বাচন শেষ করার পর সোয়া আটটার দিকে বেসরকারিভাবে ফলাফল ঘোষণা করা হয়। এতে চেয়ারম্যান পদে নৌকা প্রতীকের আনিস উজ্জামান আনিস ৪৬ হাজার ৯৯৬ ভোট পেয়ে জয় লাভ করেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৪২ হাজার ১৭৪ ভোট। 

লৌহজং এর সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কাবিরুল ইসলাম জানান, নৌকা প্রতীকের
ওসমান গনি তালুকদার ২৪ হাজার ৫৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আনারস প্রতীকের প্রার্থী আবু ইউসুফ
পেয়েছেন ১৯ হাজার ৮৮৩ ভোট। 

টঙ্গীবাড়ীর সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হাসিনা আক্তার জানান, স্বতন্ত্র প্রার্থী
জগলুল হালদার ভুতু আনারস প্রতীক নিয়ে ৪২ হাজার ২৫৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকা প্রতীকের
ইঞ্জিনিয়ার কাজী ওয়াহিদ পেয়েছেন ২৯ হাজার ২৬৮ ভোট। 

সিরাজদিখান উপজেলা সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আশফিকুন নাহার জানান,
মহিউদ্দিন আহম্মেদ নৌকা প্রতীকে ৮৬ হাজার ৩৬৮ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী
আসাদুজ্জামান কুলা প্রতীকে পেয়েছেন ২ হাজার ৪৭৭ ভোট। 

শ্রীনগরের সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. জাহিদুল ইসলাম জানান, স্বতন্ত্র
প্রার্থী আনারস প্রতীকের মসিউর রহমান ৩৪ হাজার ৮৩৫ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. জাকির
হোসেন দোয়াত-কলম নিয়ে ৩১ হাজার ৯১৪ ভোট পেয়েছেন। 

গজারিয়ার সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হাসান সাদী জানান, ৫৫টি কেন্দ্রের মধ্যে ৫২টি কেন্দ্রের ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। তিনটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। 

নৌকা প্রতীকের আমিরুল ইসলাম ৪২ হাজার ৩৮৮ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রফিকউল্লাহ সেলিম কাপ পিরিচ প্রতীকে পেয়েছেন ১০ হাজার ২৯৪ ভোট। 

তবে ইউএনও জানান, যেহেতু তিনটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত আছে সেহেতু নির্বাচন কমিশনের অনুমতি সাপেক্ষে পরে তাদের বেসরকারিভাবে বিজয়ী ঘোষণা করা হবে।# 

বাংলাদেশ সময়: ১২১৪ ঘণ্টা, ০১ এপ্রিল, ২০১৯
আরএ
 

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2019-04-01 12:26:09