bangla news

নতুন ২ মুখ নিয়ে নেত্রকোনার ৫ আসনেই আ'লীগের বিজয়

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-১২-৩১ ১১:১৪:৩৪ এএম
ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

নেত্রকোণা: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নেত্রকোনার পাঁচটি আসনের সবগুলোতেই বেসরকারিভাবে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন। 

রোববার (৩০ ডিসেম্বর) সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ হয়। এরপর গণনা শেষে রাতে রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে এ তথ্য জানা গেছে। 

এর মধ্যে নেত্রকোনা-১ (দুর্গাপুর-কলমাকান্দা) আসনে মানু মজুমদার ও নেত্রকোনা-৩ (কেন্দুয়া-আটপাড়া) আসনে অসীম কুমার উকিল প্রথম বারের মতো ভোটে অংশ নিয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলেন।

এ ছাড়া বাকি তিনটি আসনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন- নেত্রকোনা-২ (সদর-বারহাট্টা) আসনের মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী খান খসরু, নেত্রকোনা-৪ (মোহনগঞ্জ, মদন ও খালিয়াজুরী) আসনের রেবেকা মোমিন ও নেত্রকোনা-৫ (পূর্বধলা) আসনের ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল। 

আশরাফ আলী খান খসরু নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নেত্রকোনার-২ আসনে সংসদ সদস্য ছিলেন। অপরদিকে, দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটে জয়ী হয়ে ৪ ও ৫ আসন দু’টিতে প্রতিনিধিত্ব করছিলেন রেবেকা এবং বেলাল।

নেত্রকোনা-১ আসনে ১০৯টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হয়। আসনটিতে জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মানু মজুমদার নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২ লাখ ৩৯ হাজার ৭৩৮ ভোট। তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের প্রার্থী ব্যারিস্টার কায়সার কামাল ১৬ হাজার ৩৩২ ভোট পেয়েছেন।

নেত্রকোনা-২ আসনে ১৫৩টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফ আলী খান খসরু ২ লাখ ৮৩ হাজার ৪৯৬ ভোট পেয়েছেন। ধানের শীষের প্রার্থী জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা. আনোয়ারুল হক ৩০ হাজার ৫৭৩ ভোট পেয়েছেন। তবে তিনি ভোট চলাকালে বিকেলে ভোট অর্জন করেন।

নেত্রকোনা-৩ আসনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয় ১৪৪ কেন্দ্রে। এর মধ্যে নৌকা প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল ২ লাখ ৭০ হাজার ৭০ ভোট পেয়েছেন। প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের প্রার্থী কেন্দুয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি ড. রফিকুল ইসলাম হিলালী ভোট পেয়েছেন ৭ হাজার ২৮টি।

নেত্রকোনা-৪ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন রেবেকা মমিন ও বিএনপি থেকে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরের স্ত্রী তাহমিনা জামান শ্রাবণী। আসনটির ১৩৭ কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হয়। রেবেকা পেয়েছেন ২ লাখ ৪ হাজার ৭৯৫ ভোট ও তাহমিনা পেয়েছেন ৩৭ হাজার ৬০১ ভোট।

সর্বশেষ তথা নেত্রকোনা-৫ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে পূর্বধলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল পেয়েছেন ১ লাখ ৬৭ হাজার ৫৬২ ভোট। বিপরীতে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের তালুকদার পেয়েছেন ১৫ হাজার ৫৮২ ভোট।

প্রসঙ্গত, পাঁচটি আসনে মোট ১৬ লাখ ৪ হাজার ৭৬১ জন ভোটার রয়েছে। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছে ৮ লাখ ৮ হাজার ৩৮৮ জন ও নারী ভোটার ৭ লাখ ৯৬ হাজার ৩৭৩ জন। 

আসনগুলোতে আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ বিভিন্ন দল ও স্বতন্ত্র হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন ২৬ জন প্রার্থী। নেত্রকোনা-১ (দুর্গাপুর-কলমাকান্দা) আসনে ৫ জন, নেত্রকোনা-২ (সদর-বারহাট্টা) আসনে ৬ জন, নেত্রকোনা-৩ (কেন্দুয়া-আটপাড়া) আসনে ৬ জন, নেত্রকোনা-৪ (মোহনগঞ্জ, মদন ও খালিয়াজুরী) আসনে ৪ জন ও নেত্রকোনা-৫ (পূর্বধলা) আসনে ৫ জন প্রার্থী ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১০৪৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৮
এসআই

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

নির্বাচন ও ইসি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2018-12-31 11:14:34