ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৬ আগস্ট ২০২০, ১৫ জিলহজ ১৪৪১

নির্বাচন ও ইসি

জোটের একক প্রার্থী জানাতে হবে ৯ ডিসেম্বর

ইকরাম-উদ দৌলা, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-১২-০২ ১১:০৪:৩২ এএম
জোটের একক প্রার্থী জানাতে হবে ৯ ডিসেম্বর ছবি: প্রতীকী

ঢাকা: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাজনৈতিক জোটগুলোকে ৯ ডিসেম্বর একক প্রার্থীর মনোনয়নের বিষয়টি জানাতে হবে। অন্যথায় কোনো এক দল অন্য দলের প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করতে পারবে না।

দল ও জোট একাধিক প্রার্থীর ক্ষেত্রে একজনকে চূড়ান্ত মনোনয়ন ও প্রতীক বরাদ্দ সংক্রান্ত চিঠি নির্বাচন কমিশন ৩৯টি নির্বাচনমুখী দলকেই পাঠিয়েছে। যদিও এ বিষয়ে কেবল ব্যাখ্যা চেয়েছিল বিএনপিই।

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) উপ সচিব আব্দুল হালিম খান স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়েছে- গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশের সংশ্লিষ্ট অনুচ্ছেদ ও ধারা অনুযায়ী, জোটের প্রার্থী বা দলের একাধিক প্রার্থী হলে তা একক করে ৯ ডিসেম্বর রিটার্নিং কর্মকর্তাকে চিঠি দিয়ে জানাতে হবে।

ইসির নির্বাচন পরিচালনা শাখার যুগ্ম সচিব ফরহাদ আহাম্মদ খান বাংলানিউজকে বলেন, ঐক্যফ্রন্ট যেহেতু কোনো দল নয়, তাই ঐক্যফ্রন্টকে কোনো প্রতীক দেওয়ার সুযোগ নেই। কেবল মাত্র সেই দলই প্রতীক পাবে, যেটা ইসিতে নিবন্ধিত এবং তফসিল ঘোষণার তিন দিনের মধ্যে ইসিকে নিবন্ধিত অন্য দলের প্রতীকে অংশ নেওয়ার বিষয়ে জানিয়েছে।
 
‘যাদের দল নিবন্ধিত নয়, কিন্তু অন্য দলের প্রতীকে নির্বাচন করতে চান, তাদের সংশ্লিষ্ট নিবন্ধিত দলের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করতে হবে। ’

ইতোমধ্যে ৩৯টি দল ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মিলে তিন হাজার ৬৫ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। রোববার (০২ ডিসেম্বর) তা বাছাই হবে। ৯ ডিসেম্বর প্রত্যাহারের শেষ সময় রয়েছে। ওইদিন যেসব দল বা জোট একাধিক প্রার্থী দিয়েছে, তাদের একজন প্রার্থীর নাম জানাতে হবে। অন্যগুলো বাতিল হয়ে যাবে। আর কোনো প্রার্থীর নাম না জানালে জোটের বৈধ প্রার্থীরা সকলেই যার যার প্রতীকে ভোট করবেন। এক্ষেত্রে কোনো দলের একাধিক প্রার্থী থেকে গেলে সংশ্লিষ্ট আসনে ওই দলে সবার মনোনয়নপত্র বাতিল বলে গণ্য হবে।
 
গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশের (আরপিও) ১২ (৩) (বি) ধারায় প্রাথমিক মনোনয়ন এবং ১৬ (২) ধারায় চূড়ান্ত মনোনয়ন নিয়ে বিপাকে পড়েছিল বিএনপি।

তখন গত ১৯ নভেম্বর মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে (সিইসি) তারা বলে, মনোনয়নপত্রের ফরম-২ এ ‘প্রাথমিক মনোনয়ন’ বলে কিছুর উল্লেখ নেই। এতে কিছুটা বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে। এক্ষেত্রে প্রাথমিক ও চূড়ান্ত মনোনয়ন কীভাবে দেওয়া হবে তা স্পষ্ট করা দরকার।
 
৩০ ডিসেম্বর সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচনে গণফোরামের নেতৃত্বাধীন ঐক্যফ্রন্ট, আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দল, জাতীয় পার্টির নেতৃত্বাধীন সম্মিলিত জাতীয় জোট, বিকল্পধারা বাংলাদেশের নেতৃত্বাধীন যুক্তফ্রন্ট অংশ নিচ্ছে।

এছাড়া নিবন্ধিত ৩৯ দলের বাইরে উল্লেখযোগ্যভাবে রয়েছেন জামায়াতে ইসলাম, নাগরিক ঐক্য ও ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থীরা।

বাংলাদেশ সময়: ০৬০০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০২, ২০১৮
ইইউডি/টিএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa