ঢাকা, শনিবার, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ২১ রবিউস সানি ১৪৪৩

শিক্ষা

প্রবেশপত্রে ‘কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা’ কেন্দ্র!

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৩৫ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৪, ২০২১
প্রবেশপত্রে ‘কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা’ কেন্দ্র!

কুমিল্লা: গুচ্ছ পদ্ধতির ‘বি’ ইউনিট তথা মানবিক বিভাগের পরীক্ষা দিতে আসা এক পরীক্ষার্থীর প্রবেশপত্রে তথ্যের গরমিল পাওয়া গেছে। প্রবেশপত্রে ‘কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা’ কেন্দ্র দেখা যায়।

রোববার (২৪ অক্টোবর) সকাল ১১টার দিকে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুবি) কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় প্রক্টরিয়াল বডি ও পরীক্ষা কমিটি তার আলাদাভাবে পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

জানা গেছে, ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় পরীক্ষা দিতে আসা শিক্ষার্থীর রোল ৫২০১০০। পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশের সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে দায়িত্বরত ব্যক্তিরা শিক্ষার্থীর প্রবেশপত্র দেখে সন্দেহ করেন। প্রবেশপত্রে শিক্ষার্থীর নাম সোনিয়া আক্তার শিলা ও কেন্দ্র কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় লেখা থাকলেও প্রবেশপত্রে ছাপা কিউআর কোড স্ক্যান করলে অনিক আখন্দ নামে এক পরীক্ষার্থীর নাম ও রোল আসে। যার কেন্দ্র জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি)। এছাড়া প্রবেশপত্রের রোলও অনিক আখন্দের নামে আসে।
 
এছাড়াও প্রবেশপত্রে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি নামের বানানে ভুল দেখা যায়। প্রবেশপত্রে আছে ‘Cumilla University’ কিন্তু কুবির আইন অনুযায়ী সঠিক হচ্ছে ‘Comilla University’।

প্রবেশপত্রে কেন্দ্রের নাম ‘কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা’ লেখা থাকায় কুবি কেন্দ্রে চলে আসেন ওই শিক্ষার্থীর। এছাড়াও এখানে নিউ একাডেমিক ভবনের সপ্তম তলায় সিট পড়েছে বলে দেখা যায়। কিন্তু কুবির সপ্তম তলাবিশিষ্ট কোনো একাডেমিক ভবন নেই। এছাড়াও তার কিউআর কোডের সঙ্গেও ওই প্রবেশপত্রের নামের মিল পাওয়া যায়নি।  

বিষয়টি নিয়ে ভোগান্তিতে পড়েন এ শিক্ষার্থী। পরে তাকে প্রক্টরিয়াল বডি সংশ্লিষ্ট ইউনিটের কাছে হস্তান্তর করলে তারা এ শিক্ষার্থীর আলাদা পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।
 
এ বিষয়ে কুবি কেন্দ্রের ‘বি’ ইউনিটের আহ্বাযক ও কলা ও মানবিক অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. এম এম শরীফুল করীম বাংলানিউজকে বলেন, প্রবেশপত্রে তথ্যের গরমিল থাকায় আমরা সেন্ট্রাল কমিটির সঙ্গে কথা বলে ওই শিক্ষার্থীর আলাদা পরীক্ষা নেওয়ার ব্যবস্থা করেছি। এছাড়া তার ওএমআর শিটও আলাদাভাবে কেন্দ্রে পাঠাবো। তবে শিক্ষার্থীর নামের সঙ্গে তার রেজিস্ট্রেশনের মিল আছে বলে আমাদের সেন্ট্রাল কমিটি জানিয়েছে।
 
এ ব্যাপারে গুচ্ছ পরীক্ষার কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সচিব প্রকৌশলী মো. ওহিদুজ্জামান বাংলানিউজকে বলেন, হয়তো কারিগরি সমস্যার কারণে তথ্যের গরমিল হয়েছে। তবে এ বিষয়ে টেকনিক্যাল কমিটি ভালো বলতে পারবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৩৫ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৪, ২০২১
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa