ঢাকা, শনিবার, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ১২ জুন ২০২১, ০১ জিলকদ ১৪৪২

শিক্ষা

১৪ বছরে পা দিলো পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১০৬ ঘণ্টা, জুন ৫, ২০২১
১৪ বছরে পা দিলো পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

পাবনা: ১৪ বছরে পদার্পণ করেছে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। ২০০১ সালের ১৫ জুলাই জাতীয় সংসদে স্বাধীনতার স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকল্প পাস করেন।

প্রাথমিক অবকাঠামোর কাজের পরে ২০০৮ সালে ৫ জুন এই দিনে যাত্রা শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়টি। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর এই মহতি দিন উপলক্ষে করোনাকালীন স্বাস্থ্যবিধি মেনে দিনব্যাপী নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বিজ্ঞানভিত্তিক এই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করা হয়।

শনিবার (৫ জুন) সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এম রোস্তম আলী, কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মো. আনোয়ার খসরু পারভেজ এবং রেজিস্ট্রার (চলতি দায়িত্ব) বিজন কুমার ব্রহ্মসহ শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সঙ্গে নিয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করা হয়। এরপর উপাচার্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ‘জনক জ্যোতির্ময়’-এ ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।  

বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে শ্রদ্ধা শেষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও স্বাধীনতা চত্বরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এদিকে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে শ্রদ্ধা শেষে ম্যুরাল চত্বরে একটি গাছের চারা রোপণ করা হয়।
স্বাধীনতা চত্বরে শ্রদ্ধা জানানো শেষে উপাচার্য প্রফেসর ড. এম রোস্তম আলী বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ২০০১ সালে বিজ্ঞানভিত্তিক শিক্ষা ব্যবস্থার ওপর জোর দিয়ে অবহেলিত পাবনায় প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন প্রকল্প পাশ করেন। পরে ২০০৮ সালে যাত্রা শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়টি। বর্তমান সরকারের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা আর নানামুখী উন্নয়নের ছোঁয়ায় আজ পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ১৪ বছরে পদার্পণ করলো।  

ছোট্ট এই বিশ্ববিদ্যালয়টিতে এখন শিক্ষা গবেষণা আর শিক্ষার্থীদের সুষ্ঠু শিক্ষা কার্যক্রমের জন্য চলছে উন্নয়নের মহাযজ্ঞ। এই উন্নয়ন শেষ হলে শিক্ষার দ্বার বৃহৎ আকারে বেড়ে যাবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ঠরা।  

সারাদেশের শিক্ষার্থীদের জন্য আদর্শ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হবে এই বিশ্ববিদ্যালয়। এখানকার শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের গবেষণায় জাতি পাবে নতুন নতুন আবিষ্কার ও দিক নির্দেশনা। তাই সুন্দর বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তোলার জন্য সবার সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

এদিকে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন জায়গায় বৃক্ষরোপণ করা হয়। এসময় উপাচার্য বৃক্ষরোপণের জন্য সবাইকে অনুরোধ করেন। বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের একই দিনে রসায়ন বিভাগের ষষ্ঠ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিভাগের পক্ষ থেকে বৃক্ষরোপণ করা হয়। বিভাগের পক্ষে বৃক্ষরোপণ সমন্বয় করেন শিক্ষক ফারুক আহমেদ।

বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন-বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রভোস্ট প্রফেসর মো. সাইফুল ইসলাম, পরিবহন প্রশাসক প্রফেসর ড. মো. কামরুজ্জামান, গণিত বিভাগের প্রফেসর ড. মো. ফজলুল হক, অর্থনীতি বিভাগের প্রফেসর ড. মীর খালেদ ইকবাল চৌধুরী, প্রক্টর ড. প্রীতম কুমার দাস, গেস্ট হাউজ প্রশাসক ড. মো. হাসিবুর রহমান, ছাত্র উপদেষ্টা ড. সমীরন কুমার সাহা, সহযোগী অধ্যাপক ড. ওমর ফারুক, অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি হারুনর রশিদ ডন, সাধারণ সম্পাদক মো. সোহাগ হোসেন, পাবিপ্রবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফরিদুল ইসলাম, কর্মচারী পরিষদের সভাপতি মো. মহিউদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক শাহরিয়ার হোসেন পাভেল।

বাংলাদেশ সময়: ২১০০ ঘণ্টা, জুন ০৫, ২০২১
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa