bangla news

এসএসসির ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন শুরু সোমবার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৫-৩১ ৪:৩৫:৫৯ পিএম
ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

ঢাকা: আগামীকাল সোমবার (১ জুন) থেকে ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন শুরু। এসএমএসের মাধ্যমে ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করা যাবে ১ জুন থেকে ৭ জুন পর্যন্ত।

রোববার (৩১ মে) এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ হয়েছে। 

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এবারের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফলের অনুলিপি তুলে দেওয়া হয়। দেশের নয়টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডসহ মোট ১১টির মধ্যে এবছর পাশের হার ৮২ দশমিক ৮৭ শতাংশ। এরমধ্যে মেয়েদের পাশের হার ৮৪ দশমিক ১০ শতাংশ। আর ছেলেদের পাশের হার ৮১ দশমিক ৬৩ শতাংশ। পাশের হারের দিক থেকে বোর্ড সেরা রাজশাহী। এ বোর্ডে পাশের হার ৯০ দশমিক ৩৭ শতাংশ।

আন্ত:শিক্ষা বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, যারা ফল আশানুরূপ বলে মনে করবেন না, তারা এই পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করতে পারবেন। প্রতিটি বিষয় ও প্রতি পত্রের জন্য ১২৫ টাকা হারে চার্জ কাটা হবে। যেসব বিষয়ের দুটি পত্র (প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র) রয়েছে, সেসব বিষয়ের ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করলে মোট ২৫০ টাকা ফি কাটা হবে। টেলিটক নম্বর থেকে RSC <স্পেস> বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর <স্পেস> রোল নম্বর <স্পেস> বিষয় কোড লিখে পাঠিয়ে দিতে হবে ১৬২২২ নম্বরে। একই এসএমএসে একাধিক বিষয়ের জন্য আবেদন করা যাবে। এ ক্ষেত্রে বিষয় কোড পর্যায়ক্রমে ‘কমা’ দিয়ে লিখতে হবে। ফিরতি এসএমএসে চার্জের অঙ্ক জানিয়ে একটি পিন নম্বর (পার্সোনাল আইডেন্টিফিকেশন নম্বর) দেওয়া হবে। এতে রাজি থাকলে RSC <স্পেস> YES <স্পেস> পিন নম্বর <স্পেস> যোগাযোগের জন্য একটি মোবাইল নম্বর লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে।

প্রকাশিত ফলাফল থেকে জানা যায়, এবছর সব শিক্ষা বোর্ডের এসএসসি, মাদ্রাসা, কারিগরি ও এসএসসিসহ (ভোকেশনাল) দেশের ১১টি শিক্ষাবোর্ডের আওতায় এবারের এসএসসি পরীক্ষায় ৩ হাজার ৫১২টি কেন্দ্রে মোট ২০ লাখ ৪০ হাজার ২৮ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। এরমধ্যে মাদ্রাসা বোর্ডের দাখিল পরীক্ষায় অংশ নেওয় দুই লাখ ৮১ হাজার ২৫৪ জন। কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের এসএসসি ভোকেশনাল পরীক্ষায় এক লাখ ৩১ হাজার ২৮৫ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছে।

এরমধ্যে ছাত্র ১০ লাখ ২১ হাজার ৪৯০ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল। পাশ করেছে ৮ লাখ ৩৩ হাজার ৮৯২ জন। ফেল করেছে ১ লাখ ৮৭ হাজার ৫৯৮ জন। সে হিসেবে পাশের হার ৮১ দশমিক ৬৩ শতাংশ। অপরদিকে ১০ লাখ ১৮ হাজার ৫৩৮ জন ছাত্রী এবারের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। এর মধ্যে পাশ করেছে ৮ লাখ ৫৬ হাজার ৬৩১ জন। আর ফেল করেছে ১ লাখ ৬১ হাজার ৯০৭ জন। সে হিসেবে মোট পাশের হার ৮৪ দশমিক ১০ শতাংশ।

এবছর পাশের হারে বোর্ড সেরা রাজশাহী। এ বোর্ডে পাশের হার ৯০ দশমিক ৩৭ শতাংশ, ঢাকা বোর্ডে পাশের হার ৮২ দশমিক ৩৪ শতাংশ, দিনাজপুর বোর্ড ৮২ দশমিক ৭৩ শতাংশ, চট্টগ্রাম বোর্ডে ৮৪ দশমিক ৭৫ শতাংশ, যশোর বোর্ডে পাশের হার ৮৭ দশমিক ৩১ শতাংশ, বরিশাল বোর্ডে ৭৯ দশমিক ৭০ শতাংশ, কুমিল্লা বোর্ডে পাশের হার ৮৫ দশমিক ২২ শতাংশ, সিলেট বোর্ডে পাশের হার ৭৮ দশমিক ৭৯ শতাংশ, ময়মনসিংহ বোর্ডে পাশের হার ৮০ দশমিক ১৩ শতাংশ। এছাড়া মাদ্রাসা বোর্ডে ৮২ দশমিক ৫১ শতাংশ ও কারিগরি বোর্ডে পাশের হার ৭২ দশমিক ৭০ শতাংশ।

এদিকে এ বছরের এসএসসি পরীক্ষা শুরু হয় গত ৩ ফেব্রুয়ারি আর শেষ হয় ২৭ ফেব্রুয়ারি। ২৯ ফেব্রুয়ারি থেকে ৫ মার্চের মধ্যে ব্যবহারিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৫২ ঘণ্টা, মে ৩১, ২০২০
জিসিজি/আরআইএস/ 

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-05-31 16:35:59