ঢাকা, বুধবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৭, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪ সফর ১৪৪২

শিক্ষা

ইবি ছাত্রলীগের সংঘর্ষে আহত ২০, সম্পাদক আটক

ইবি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৩৪ ঘণ্টা, জানুয়ারী ২১, ২০২০
ইবি ছাত্রলীগের সংঘর্ষে আহত ২০, সম্পাদক আটক

ইবি: ইসলামী বিশ্ববিদ্যায়ে (ইবি) ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষের সময় তিনটি ককটেল বিস্ফোরণ হয়। এতে উভয় গ্রুপের ২০ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (২১ জানুয়ারি) শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক তার কর্মীদের নিয়ে ক্যাম্পাসে প্রবেশের চেষ্টা করলে পদবঞ্চিত গ্রুপের নেতাকর্মীদের সঙ্গে এ সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিবকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।



জানা যায়, শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম পলাশ ও সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিব তাদের নেতাকর্মী ও বহিরাগতদের নিয়ে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করার চেষ্টা করে। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের থানা গেট এলাকা থেকে মিছিল নিয়ে সড়ক হয়ে প্রধান ফটকের দিকে এগোতে থাকে। এসময় ক্যাম্পাসে অবস্থান করা পদবঞ্চিত গ্রুপের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে ফটকে এলে উভয় গ্রুপের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের নেতাকর্মীদের হাতে লাঠি, হকিস্টিকসহ দেশীয় অস্ত্র দেখা যায়। এসময় নেতাকর্মীরা তিনটি ককটেল বিস্ফোরণ করে। দুই গ্রুপের সংঘর্ষে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় প্রধান ফটক এলাকা। সভাপতি ও সম্পাদকসহ উভয় গ্রুপের ২০ জন নেতাকর্মী আহত হয়। তাদের মধ্যে ৫ জনের অবস্থা গুরুতর। আহতদের বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসাকেন্দ্রে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কয়েকজনকে কুষ্টিয়া মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে।

সংঘর্ষে পদবঞ্চিতদের নেতাকর্মীদের সামনে টিকতে না পেরে পালিয়ে যায় সভাপতি-সম্পাদক গ্রুপের নেতাকর্মীরা। পরে পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেয়। ফলে ক্যাম্পাস থেকে দুপুরের শিডিউলের কোনো বাস ছেড়ে যেতে পারেনি। সেইসঙ্গে কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে নেতাকর্মীরা। পরে বেলা আড়াইটায় অবরোধ তুলে নিলেও ফটক অবরোধ করে রাখে নেতাকর্মীরা। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত (বিকেল সাড়ে ৪টা) পদবঞ্চিতরা ক্যাম্পাসের ফটক আটকে রেখে অবস্থান অব্যাহত রয়েছে।

এদিকে সংঘর্ষের ঘটনায় বেলা সাড়ে চারটায় সম্পাদক রাকিবকে গ্রেফতার করে কুষ্টিয়া থানা পুলিশ। পুলিশ সুপার তানভীর আরাফাত এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। ঘটনা তদন্তে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি করা হয়।

এর আগে সভাপতি-সম্পাদকের ক্যাম্পাসে আসার সংবাদ পেয়ে সকাল থেকে দলীয় টেন্টে অবস্থান নেয় পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা। অন্যদিকে নেতাদের গ্রহণ করতে ও নিরাপত্তা দিতে প্রধান ফটকে অবস্থান নেয় কয়েকজন নেতাকর্মী। বেলা ১১টার দিকে পদবঞ্চিত গ্রুপ মিছিল নিয়ে প্রধান ফটকে গিয়ে সভাপতি-সম্পাদক গ্রুপের নেতাকর্মীদের মারধর করে। এতে তিনজন আহত হয় ও বাকিরা পালিয়ে যায়।

গত ১৪ এপ্রিল পলাশ-রাকিবকে সভাপতি সম্পাদক করে কমিটি দেয় কেন্দ্র। দেড়মাস না যেতেই ৪০ লাখ টাকায় কমিটিতে আসা নিয়ে সম্পাদক রাকিবের অডিও ক্লিপ ফাঁস হয়। এরপর টাকা দিয়ে কমিটিতে আসাসহ বিভিন্ন অভিযোগে ক্যাম্পাসে সভাপতি ও সম্পাদককে অবাঞ্চিত ঘোষণা করে পদবঞ্চিত গ্রুপ। এরপর বিভিন্ন সময় ক্যাম্পাসে এলে কর্মীদের ধাওয়ায় চার দফায় ক্যাম্পাস ছাড়ে সম্পাদক রাকিব।

বাংলাদেশ সময়: ১৭২৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২১, ২০২০
এসএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa