bangla news

ফের কুবি ছাত্রলীগের হাতে মারধরের শিকার সাংবাদিক

কুবি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০১-০৫ ৩:২৪:৪৭ এএম
কুবি ছাত্রলীগের হাতে মারধরের শিকার সাংবাদিক। ছবি- বাংলানিউজ

কুবি ছাত্রলীগের হাতে মারধরের শিকার সাংবাদিক। ছবি- বাংলানিউজ

কুবি: কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুবি) শাখা ছাত্রলীগের হাতে ফের মারধরের শিকার হয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত এক সাংবাদিক। 

শনিবার (৪ জানুয়ারি) রাত ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত হলে মারধরের শিকার হন দৈনিক বিজনেস বাংলাদেশ পত্রিকার প্রতিনিধি সজীব বণিক।

প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রে জানা যায়, শনিবার রাতে শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত হলের ২০৪ নম্বার রুমে সিট নিয়ে বাকবিতণ্ডা হয় সজীব বণিক ও ছাত্রলীগ কর্মী রাজু আহমেদের। এরই এক পর্যায়ে সজীবের জিনিসপত্র ভাঙচুর করতে শুরু করেন রাজু। এ সময় প্রতিবাদ করলে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সদস্য ও হল ছাত্রলীগের যুগ্ম-সম্পাদক মিরাজ খলিফা, হলের যুগ্ম-সম্পাদক ইমতিয়াজ শাহরিয়া, ছাত্রলীগ নেতা রাজু আহমেদসহ বেশ কয়েকজন ছাত্রলীগ নেতা রড দিয়ে সজীবকে মারধর করেন।

পরে রাত ১টায় আহত সজীবকে চিকিৎসার জন্য অ্যাম্বুলেন্সে করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে নেওয়া হয়। 

ভুক্তভোগী সজীব বণিক বলেন, মারধর করার সময় আমাকে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করেন ছাত্রলীগ নেতারা। এছাড়া আগামীতে আমাকে দেখে নেবেন বলেও হুমকি দেন তারা। আমি হুমকির ঘটনায় আতঙ্কিত। 

এদিকে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতাদের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তারা কেউ কল রিসিভ করেননি।

এ অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে কুবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইলিয়াস হোসেন সবুজ বাংলানিউজকে বলেন, কারো গাঁয়ে হাত তোলা চরম বেয়াদবি। কাউকে মারধর করা আমি কোনোভাবে সমর্থন করি না। যারা সাংবাদিককে মারধর করেছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিনের দারস্থ হলে তিনি বলেন, বিষয়টা আবাসিক হলের। হল প্রাধ্যক্ষের সঙ্গে আমি আলাপ করছি। রোববার (৫ জানুয়ারি) সকালেই আমরা এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেবো।

বাংলাদেশ সময়: ০৩২২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৫, ২০২০
এমএএম/এইচজে 

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ছাত্রলীগ কুমিল্লা
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

শিক্ষা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
db 2020-01-05 03:24:47