bangla news

ক্লাসে ফিরলেন বুয়েট শিক্ষার্থীরা

ইউনিভার্সিটি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৬-২২ ২:৩৮:১৫ পিএম
বুয়েট শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের ফাইল ছবি

বুয়েট শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের ফাইল ছবি

ঢাকা: প্রশাসনের লিখিত আশ্বাসে ১৬ দফা দাবিতে আন্দোলনরত বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থীরা ক্লাসে ফিরেছেন।

শনিবার (২২ জুন) দুপুরে আন্দোলনকারীদের অন্যতম আনিস রহমান মিঠু বাংলানিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, আমাদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে প্রশাসন শুক্রবার (২১ জুন) দিনগত মধ্যরাতে লিখিত দিয়েছে। যার কারণে সবাই ক্লাসে ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

এর আগে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বৈঠক করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি তাদের যৌক্তিক দাবি মানার আশ্বাস দেন।

তারও আগে দাবি মানা না হলে বৃহস্পতিবার (২০ জুন) ও শুক্রবার (২১ জুন) সাপ্তাহিক ছুটি শেষে শনিবার থেকে ফের লাগাতার কর্মসূচি পালন করা হবে বলে জানান আন্দোলনের মুখপাত্র হাসান সরওয়ার সৈকত।

গত বুধবার (১৯ জুন) আন্দোলনের একপর্যায়ে আন্দোলনকারীরা দলবদ্ধ হয়ে রেজিস্ট্রার ভবনে তালা দেন। এসময় শিক্ষার্থীরা ‘প্রশাসনের কালো হাত ভেঙে দাও, গুঁড়িয়ে দাও’; ‘প্রহসনের প্রশাসন মানি না, মানি না’; ‘স্বৈরাচারী প্রশাসন মানি না, মানবো না’সহ বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দেন।

সে সময় হাসান সরওয়ার সৈকত বলেন, যতদিন পর্যন্ত দাবি বাস্তবায়নের দৃশ্যমান কোনো কিছু পরিলক্ষিত না হবে ততদিন আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাবো। শিক্ষকদের অনেকে আমাদের সমর্থন করেছেন।

শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো হলো- শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো হলো- বুয়েট গেটের জন্য সিভিল+আর্কিটেকচার ডিপার্টমেন্টের বিশেষজ্ঞ স্যারদের নিয়ে কমিটি গঠন করতে হবে ও ডিজাইনের জন্য ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে প্রতিযোগিতা আয়োজন করার অফিসিয়াল নোটিশ দিতে হবে; বিতর্কিত নতুন ডিএসডাব্লিউকে (ছাত্রকল্যাণ পরিচালক) অপসারণ করে ছাত্রবান্ধব ডিএসডাব্লিউ নিয়োগ দিতে হবে; ছাত্রী হলের নাম ‘সাবেকুন নাহার সনি হল’ হিসেবে নামকরণ করতে হবে; ১০৮ ক্রেডিট অর্জনের পর ডাবল সাপ্লি দেওয়ার যে পদ্ধতি গত টার্মে চালু হয়েছিল সেটা পুনর্বহাল রাখতে হবে; আবাসিক হলগুলোর অবকাঠামোগত যেসব কাজ ভিসি স্যারের অফিসে আটকে আছে সেটা ক্লিয়ার করতে হবে; সিয়াম-সাইফ সুইমিংপুল কমপ্লেক্স স্থাপনের জন্য ভিসি স্যারের সিগনেচারে নোটিশ দিতে হবে; নির্মাণাধীন টিএসসি ভবন ও ন্যাম ভবনের কাজ শুরু করতে হবে; নিয়মিত শিক্ষক মূল্যায়ন প্রোগ্রাম চালু করতে হবে; বুয়েটের যাবতীয় লেনদেনের ডিজিটালাইজেশন প্রক্রিয়ার অফিয়াল উদ্যোগ নিতে হবে; নির্বিচারে ক্যাম্পাসের গাছ কাটা বন্ধ করতে হবে৷ কেন গাছ কাটা হয়েছে সেটার ব্যাখ্যা দিতে হবে,  যতগুলা গাছ কাটা হয়েছে তার দ্বিগুণ গাছ ভিসি স্যারকে উপস্থিত থেকে লাগাতে হবে; গবেষণায় বরাদ্দ বাড়াতে হবে; প্রাতিষ্ঠানিক মেইল আইডি দিতে হবে; বুয়েট ওয়াইফাই আধুনিকায়ন করতে হবে; ব্যায়ামাগার আধুনিকায়ন করতে হবে; বুয়েট মাঠের উন্নয়ন করতে হবে ও পরীক্ষার খাতায় রোলের পরিবর্তে কোড সিস্টেম চালু করতে হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৩৬ ঘণ্টা, জুন ২২, ২০১৯
এসকেবি/জেডএস

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-06-22 14:38:15