ঢাকা, সোমবার, ৭ শ্রাবণ ১৪২৬, ২২ জুলাই ২০১৯
bangla news

উদ্ভাবনী শক্তির বাণিজ্যিকীকরণ করার তাগিদ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৬-১৬ ৭:১৮:১০ পিএম
বক্তব্য রাখছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী

বক্তব্য রাখছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী

ঢাকা: কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষার্থীদের কেবল নতুন নতুন উদ্ভাবন করলেই হবে না, উদ্ভাবনী শক্তির বাণিজ্যিকীকরণ করতে হবে।
 

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) রোববার (১৬ জুন) আয়োজিত স্কিলস কম্পিটিশন-২০১৮ এর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ তাগিদ দেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী।
 
তিনি বলেন, যারা সামগ্রিক উন্নয়নের জন্য প্রযুক্তির উদ্ভাবন করছেন তাদের শক্তিকে বেগবান করতে কাজ করছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার। সরকারের সহায়তার পাশাপাশি শিক্ষক-অভিভাবকদেরও এ বিষয়ে সার্বিকভাবে সহায়তা করার তাগিদ দেন তিনি।
 
উপমন্ত্রী বলেন, উদ্ভাবনী শক্তি মানেই হচ্ছে চিন্তার শক্তি। উৎসুক মানসিকতার শক্তি। চিন্তার শক্তিকে গুরুত্ব দিতে হবে। আমাদের অনেক স্টার্টআপ আছে, তারাই আগামীতে দেশের অর্থনীতিতে নেতৃত্ব দেবে। তাই শিক্ষাব্যবস্থার মধ্যে এমন পরিবর্তন আনতে হবে যেন, উৎসুক মানসিকতা নিয়ে শিক্ষার্থীরা সৃষ্টিশীল চিন্তা করতে পারে।
 
তিনি বলেন, আমাদের কারিগরি শিক্ষার্থীদের অনেক উদ্ভাবনী শক্তি আছে। তারা অনেক কিছু উদ্ভাবন করছে। কিন্তু এগুলো বাণিজ্যিকীকরণ করতে হবে। অন্যথায় এই উদ্ভাবনগুলো আলোর মুখ দেখবে না।
 
সভাপতির বক্তব্যে কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব এবং কারিগরি শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক রওনক হাসান বলেন, কারিগরি শিক্ষার্থীদের জন্য আরও বেশি করে জব ফেয়ার আয়োজন করা হবে। দেওয়া হবে শতভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্টাইফেন। এছাড়া ৩ হাজার শিক্ষককে ভবিষ্যতে বিদেশে প্রশিক্ষণ নেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।
 
কারিগরি শিক্ষা অফিদফতরের স্কিলস অ্যান্ড ট্রেনিং এনহান্সমেন্ট প্রজেক্ট আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে দেশের ৫২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়।
 
এতে ‘বাংলাদেশে রোবট ফোর্স’ প্রজেক্ট’র জন্য তৃতীয় স্থান অধিকার করেছে চট্টগ্রাম পলিটেকনিক্যাল ইনস্টিটিউট। ‘পাওয়ার ড্রাইভেন ফার্টিলাইজার স্ক্যাটার ফর মর্ডান অ্যাগ্রিকালচার’ প্রজেক্টের জন্য দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছে ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজি-সিরাজগঞ্জ। আর ‘পল্যুশন ইঙ্ক’ প্রজেক্টের জন্য প্রথম স্থান অধিকার করেছে অ্যারোনটিক্যাল ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ। বিজয়ী প্রজেক্টগুলোর শিক্ষার্থীদের ক্রেস্ট ও কম্পিউটার তুলে দেন উপমন্ত্রী।
 
অনুষ্ঠানে  অন্যদের মধ্যে কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব (রুটিন দায়িত্ব) একেএম জাকির হোসেনসহ দাতা সংস্থাগুলোর প্রতিনিধি, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৯১৬ ঘণ্টা, জুন ১৬, ২০১৯
ইইউডি/জেডএস

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-06-16 19:18:10