ঢাকা, রবিবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২৬ মে ২০১৯
bangla news

বেরোবি ভিসির বিরুদ্ধে শিক্ষক সমিতির স্মারকলিপি

বেরোবি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৪-১৬ ৯:১৩:৪৯ পিএম
বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়

বেরোবি (রংপুর): রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) উপাচার্যের (ভিসি) বিশ্ববিদ্যালয়ে ধারাবাহিক অনুপস্থিতিসহ বিভিন্ন অনিয়মের বিরুদ্ধে স্মারকলিপি দিয়েছে শিক্ষক সমিতি। 

মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) দুপুরে শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মো. গাজী মাজহারুল আনোয়ার, সাধারণ সম্পাদক খাইরুল কবির সুমনসহ সমিতির নেতারা ভিসির অনুপস্থিতিতে তার বিশেষ সহকারী (পিএস) আমিনুর রহমানের কাছে এ স্মারকলিপি জমা দেন। 

স্মারকলিপিতে ভিসির অনিয়ম বন্ধ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে তার উপস্থিতি নিশ্চিত করার দাবিসহ ১৮ দফা পেশ করা হয়। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- দ্রুত প্রো-ভিসি ও ট্রেজারার নিয়োগ; ক্যাম্পাসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং নারী জাগরণের অগ্রদূত বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেনের প্রতিকৃতি স্থাপন; বিশ্ববিদ্যালয়ের সব সিন্ডিকেট মিটিং, নিয়োগ বোর্ড ও অর্থ কমিটির সভাসহ সব সভা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে করা; বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন প্রকল্পের দ্বিতীয় ফেজের কার্যক্রমের ব্যবস্থা গ্রহণ; নতুন যোগদানকৃত শিক্ষকদের অনিয়মতান্ত্রিক ফাউন্ডেশন ট্রেনিং বন্ধ করে বিভাগের শিক্ষক স্বল্পতার সংকট সমাধানসহ শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীর সব শিক্ষা ও পেশাগত ট্রেনিং বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. ওয়াজেদ রিসার্চ অ্যান্ড ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের অধীনে নিজস্ব ক্যাম্পাসে যথাযথ প্রক্রিয়ায় সম্পন্ন করা; শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে লিখিত পরীক্ষা নিয়োগ বোর্ডের সব সদস্যের অংশগ্রহণে গ্রহণযোগ্য পদ্ধতিতে সম্পন্ন করা।

এছাড়া আছে অর্গানোগ্রাম অনুযায়ী ইউজিসি থেকে জরুরি ভিত্তিতে শিক্ষক পদ অনুমোদন নিয়ে অস্থয়ী পদে কর্মরত শিক্ষকদের চাকরি স্থায়ীকরণসহ নতুন শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে সেশনজট দূর করা; বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্চশিক্ষা ও গবেষণারত শিক্ষকদের সবেতনে ৫ বছরসহ মোট শিক্ষাছুটি ৭ বছর নির্ধারণ করে অতি দ্রুত শিক্ষাছুটি নীতিমালা প্রণয়ন করা; এনওসি ও অভিজ্ঞতা সনদসহ যাবতীয় প্রক্রিয়া দুই থেকে তিন কার্যদিবসের মধ্যে সম্পন্ন করা; সব পরীক্ষার পারিতোষিক ফলাফল প্রকাশের এক মাসের মধ্যে পরিশোধ করা; বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কার্যক্রম ফলপ্রসূ করতে অনুষদে উপস্থিত যোগ্য শিক্ষককে ডিন ও বিভাগে উপস্থিত যোগ্য শিক্ষককে বিভাগীয় প্রধানের দায়িত্ব প্রদান করা; গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের বিভাগীয় প্রধানের নিয়োগে অন্যান্য বিভাগের মতো এই বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনে জাতীয় সংসদ কর্তৃক প্রণীত ২৯ নং আইনের ২৮ (২) ধারা মোতাবেক কার্যক্রম নিশ্চিত করা; বিশ্ববিদ্যালয়ের গেজেট অনুযায়ী বিভাগের একাডেমিক প্ল্যানিং কমিটি গঠন করা; সনাতন ধর্মাবলম্বীদের জন্য ধর্মীয় উপাসনালয় স্থাপনের ব্যবস্থা নেওয়া; দ্রত বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের গম্বুজসহ দ্বিতীয় তলার কাজ শুরু করা, বিভিন্ন বিভাগে কর্মরত শিক্ষকদের পদোন্নতি আটকে রেখে শিক্ষাকার্য স্পৃহাহীনতা সৃষ্টিকারী হয়রানি বন্ধ করা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যাংকের স্থায়ী শাখা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের গেট স্থাপন করার দাবি।
 
স্মারকলিপির বিষয়ে শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. গাজী মাজহারুল আনোয়ার ও সাধারণ সম্পাদক খায়রুল কবির সুমন বাংলানিউজকে বলেন, ভিসির দায়িত্বকালের প্রায় অর্ধেক সময় অতিক্রান্ত হতে চললেও বিশ্ববিদ্যালয়ে হতাশা ও নৈরাশ্য কমেনি বরং বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ে এক অস্থিরতার পরিবেশ বিরাজ করছে, যার অন্যতম প্রধান কারণ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসির অনুপস্থিতি। যার ফলে দেশব্যাপী বিশ্ববিদ্যালয় তথা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সম্পর্কে নানাভাবে ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে। 

তারা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে সদ্য যোগদানকৃত শিক্ষকদের ছুটিবিহীন অনুপস্থিতি শিক্ষা সংকট তৈরি করেছে, প্রশ্নবিদ্ধ শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষাসহ বিশ্ববিদ্যালয়ে সর্বোচ্চ অধিকর্তা সম্পর্কে নেতিবাচক সংবাদে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে, যা বিশ্ববিদ্যালয়ের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য পূরণে কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।

শিক্ষক সমিতির সাধারণ সভার ৬৩ জন সদেস্যর সিদ্ধান্ত মোতাবেক শিক্ষকদের অধিকার, স্বাধীনতা, বিশ্ববিদ্যালয়ের মর্যাদা ও পবিত্রতা সংরক্ষণের লক্ষ্যে এই স্মারকলিপি দেওয়া হয়েছে বলে জানান প্রফেসর ড. গাজী মাজহারুল আনোয়ার ও খায়রুল কবির সুমন।

বাংলাদেশ সময়: ২১০৮ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৬, ২০১৯
এইচএ/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2019-04-16 21:13:49