ঢাকা, সোমবার, ৮ বৈশাখ ১৪২৬, ২২ এপ্রিল ২০১৯
bangla news

জবির প্রথম সমাবর্তন পাচ্ছে ১২টি ব্যাচ

জবি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০১-১৫ ৭:১৬:৩৯ পিএম
প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

জবি: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) শিক্ষার্থীদের বহুলকাঙ্ক্ষিত সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হবে আগামী অক্টোবরে। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যে কোনো একটি সার্টিফিকেটধারী প্রত্যেক শিক্ষার্থীই প্রথমবারের সমাবর্তন আয়োজনে অংশ নিতে পারবেন। এ নিয়ে প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার্থীদের মধ্যে উচ্ছ্বাস লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী ওহিদুজ্জামান বাংলানিউজকে বলেন, যারাই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক বা স্নাতকোত্তরের যে কোনো একটি বা দু’টির সার্টিফিকেট পেয়েছে, তারাই সমাবর্তনে অংশ নিতে পারবে। সে হিসেবে ২০০১-০২ শিক্ষাবর্ষ থেকে শিক্ষার্থীরা সমাবর্তন পাচ্ছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক একেএম আক্তারুজ্জামান বলেন, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২০০১-০২ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদেরও স্নাতকোত্তরের সনদ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ২০০২-০৩ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা স্নাতক ও স্নাতকোত্তরের সনদ পেয়েছে। ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরাও স্নাতকোত্তর শেষ করেছে। এ কারণে ২০০১-০২ শিক্ষাবর্ষ থেকে ২০১২-১৩ বর্ষ (অষ্টম ব্যাচ) পর্যন্ত মোট ১২টি শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা সমাবর্তনে অংশ নিতে পারবে।

বিষয়টি নিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন সমাবর্তন আয়োজনের দাবিতে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। তবে তারা বলছেন, যেসব বিভাগের নবম ব্যাচের স্নাতক বা স্নাতকোত্তর দুই কোর্সই শেষ হয়েছে, তাদেরও যেন এতে অন্তর্ভূক্ত করা হয়। কারণ ইতোমধ্যেই বিবিএ ফ্যাকাল্টির প্রায় সব বিভাগের নবম ব্যাচের স্নাতক শেষ ও স্নাতকোত্তর শেষের পথে।  

বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী ও ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সুমন কুমার মজুমদার বাংলানিউজকে বলেন, জবি থেকে যারা শিক্ষাজীবন শেষ করেছেন তাদের প্রাণের দাবি হয়ে এই সমাবর্তন আয়োজন। অবশেষে আমরা সেই কাঙ্ক্ষিত সমাবর্তন পেতে যাচ্ছি। এটা একজন জবিয়ান হিসেবে গর্বের বিষয়। সাধুবাদ জানাই এর সঙ্গে যারা কাজ করছেন সবাইকে। আশা করছি কোনো ধরনের সমস্যা ছাড়াই সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠান শেষ হবে।

জবির প্রথম সমাবর্তনের সম্ভাব্য তারিখ চলতি বছরের অক্টোবরে নির্ধারণ করা হয়েছে। এজন্য আগামী ফেব্রুয়ারি-মার্চ দুই মাস অনলাইনে আবেদন চলবে। এছাড়া সমাবর্তনের জন্য জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠকে (ধূপখোলা মাঠ) নির্ধারণ করা হয়েছে। 

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৫, ২০১৯
কেডি/এইচএ/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14