[x]
[x]
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ আশ্বিন ১৪২৫, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
bangla news

ডাকসু নির্বাচন: শিক্ষার্থীদের ডাটাবেজ তৈরি করছে ঢাবি

সাজ্জাদুল কবির, ইউনিভার্সিটি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৭-১৩ ৭:৩৬:৪১ পিএম
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ, ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ, ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়: দীর্ঘ ২৮ বছর ধরে স্থগিত রয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন। ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে এক রায়ে এ নির্বাচন দিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে ব্যবস্থা নিতে বলেছিলেন হাইকোর্ট। এ জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষও ডাকসু নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু করেছে। ইতোমধ্যে নির্বাচনের জন্য শিক্ষার্থীদের অনলাইন ডাটাবেজ তৈরি করা হচ্ছে বলে বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে।

হাইকোর্টের রায়ে বলা হয়েছে, আদালতের আদেশ রিসিভ করার পর ছয় মাসের মধ্যে নির্বাচন করতে হবে, প্রয়োজনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাহায্য নিতে হবে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অফিস ৪ এপ্রিল আদালতের আদেশ রিসিভ করে। সে অনুযায়ী অক্টোবরের ১০ তারিখের মধ্যে নির্বাচন করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। তবে জাতীয় নির্বাচনসহ পরিস্থিতি বিবেচনায় এই সময় বৃদ্ধির জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আবেদন করেছে, যেটি এখনও শুনানি হয়নি।

আদালতের রায়ের পর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভোস্ট কমিটির সভায় ডাকসু নির্বাচনের বিষয়ে বিভিন্ন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সেখানে ২০১৯ সালের মার্চে নির্বাচন করার জন্য প্রস্তাব করা হয়। আর ভোটার তালিকা ও নির্বাচনের নমুনা ফরম তৈরি করার জন্য একটি কমিটিও গঠন করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হলে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ডাকসু নির্বাচনের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন থেকে এখনও কোনো চিঠি দেওয়া হয়নি। শিক্ষার্থীদের ডাটাবেজ হলে রয়েছে। যেকোনো সময় সেটি তৈরি করা হবে। আবার অনেক হলে নিজ উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে।

অন্যদিকে, বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ভর্তি অফিস থেকেও শিক্ষার্থীদের তথ্য হলগুলোতে দেওয়া হচ্ছে। সবগুলো সমন্বয় করার কাজ শুরু হবে শিগগিরই।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হল ও ফজলুল হক মুসলিম হলে এ সংক্রান্ত নোটিস দেওয়া হয়েছে। সেখানে হল অফিসে শিক্ষার্থীদের প্রয়োজনীয় তথ্য দিতে বলা হয়েছে।

জগন্নাথ হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক অসীম কুমার সরকার বাংলানিউজকে বলেন, আমরা প্রস্তুতি নিয়ে এগিয়ে থাকতে শিক্ষার্থীদের তথ্য সংগ্রহ করছি। পরবর্তীতে ভোটার তালিকা হালনাগাদ করা হবে।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের এক কর্মকর্তা বাংলানিউজকে বলেন, এটি একটি দীর্ঘমেয়াদী প্রক্রিয়া। বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন-চারটি সেকশন ডাকসু দেখাশোনা করে। এখনও অফিসিয়ালি কোনো কিছু প্রস্তুত হয়নি। হলগুলোতেও চিঠি দেওয়া হয়নি।

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার এনামউজ্জামান এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল বাংলানিউজকে বলেন, ভোটার তালিকা হালনাগাদের কাজ চলছে। অনলাইন ডাটাবেজ করার কারণে সময় লাগছে। সেটি তৈরি হলে আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সক্রিয় ছাত্র সংগঠনগুলোকে নিয়ে বসবো। আর মার্চে এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী বাংলানিউজকে বলেন, ডাকসু নির্বাচনের প্রস্তুতি চলছে। ডাটাবেজের ফরম্যাট অনুমোদনের পর হলগুলোতে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। সেটি প্রতিদিন হালনাগাদ হবে।

সার্বিক বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বাংলানিউজকে বলেন, ডাকসু নির্বাচনের লক্ষ্যে ভোটার তালিকা তৈরির কাজ চলছে। আদলতের নির্দেশনা বিবেচনায় নিয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।

বাংলাদেশ সময়: ০৫৩২ ঘণ্টা, জুলাই ১৪, ২০১৮
এসকেবি/টিএ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa