bangla news

রাবিতে বিজিবি মোতায়েন, সিন্ডিকেট সভা সন্ধ্যায়

36 |
আপডেট: ২০১৪-০২-০২ ৫:৪৮:০০ এএম

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ছাত্রলীগ-পুলিশের সংঘর্ষের পর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে সন্ধ্যায় সিন্ডিকেট সভাও আহবান করা হয়েছে।

রাজশাহী: আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ছাত্রলীগ-পুলিশের সংঘর্ষের পর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে সন্ধ্যায় সিন্ডিকেট সভাও আহবান করা হয়েছে।

 

সূত্রে জানা যায়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের গেটের বাইরে ৩ প্লাটুন বিজিবি টহল দিচ্ছে। রোববার বিকেল ৪টার দিকে তাদের মোতায়েন করা হয়। সন্ধ্যার মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে ক্যাম্পাসের দায়িত্বও তাদের দেওয়া হবে। এছাড়া ক্যাম্পাসের বিপুল সংখ্যক র্যাব ও পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

 

এদিকে সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যের বাসভবনে সিন্ডিকেট সভা আহ্বান করা হয়েছে। সন্ধ্যার মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে সিন্ডিকেটে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্যাম্পাস বন্ধের সিদ্ধান্ত হতে পারে বলে সূত্রে জানা গেছে। সূত্র মতে, আবাসিক হলগুলো অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণাও আসতে পারে। 

 

রাবি উপ উপাচার্য সারওয়ার জাহান সজল বাংলানিউজকে জানান, দুপুরে প্রশাসনের পক্ষ থেকে বর্ধিত ফি প্রত্যাহার করা হবে মর্মে জরুরি ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি এ বিষয় নিয়ে সন্ধ্যা ৭টায় রাবি সিন্ডিকেটের জরুরি মিটিং আহ্বান করা হয়েছে। সিন্ডিকেট মিটিংয়ে বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হবে। 

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতেই বিজিবি মোতায়েনের সিদ্ধান্ত বলেও জানান তিনি।

 

সান্ধ্যকালীন কোর্সের বিষয়ে তিনি বলেন, সান্ধ্যকালীন কোর্স একাডেমিক কমিটির বিষয়। একাডেমিক কমিটিতেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

 

বিভিন্ন খাতে বর্ধিত ফি প্রত্যাহার ও সান্ধ্যকালীন কোর্স বন্ধের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর রোববার দুপুরে কয়েক দফা হামলা চালায় পুলিশ ও ছাত্রলীগ। এ ঘটনায় সাংবাদিকসহ শতাধিক শিক্ষার্থী আহত হয়েছে।

 

শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের চালানো গুলিতে অন্তত ৪০ জন আহত হয়েছে। এর মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আহতদের বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসা কেন্দ্রসহ রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার প্রতিবাদে সাধারণ শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকটি ভবনে ভাংচুর চালিয়েছে। 

 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বর্ধিত ফি প্রত্যাহার ও সান্ধ্যকালীন কোর্স বাতিলের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের অংশ হিসেবে রবিবার সকাল ৮টা থেকে কর্মসূচি পালন করছিল তারা। সাড়ে ১১টার দিকে শিক্ষার্থীরা প্রসাশন ভবনের সামনে শান্তিপূর্ণ অবস্থান নেয়। এ সময় সহকারী প্রক্টর সিরাজুল ইসলাম, হেলাল উদ্দিন ও জুলফিকার আলীর নেতৃত্বে পুলিশ বাহিনী তাদের উঠে যাওয়ার নির্দেশ দেয়। 

 

একই সময় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের একটি মিছিল এসে আন্দোলনকারীদের পূর্ব পাশে অবস্থান নেয়। একপর্যায়ে বিনা উস্কানিতেই ছাত্রলীগকর্মীরা আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর ককটেল ও ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। একই সময় পশ্চিম দিক থেকে পুলিশও শিক্ষার্থীদের লক্ষ্য করে টিয়ায়শেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এ সময় পুলিশের সহায়তায় ছাত্রলীগ গুলিও চালায় বলে অভিযোগ করেছে শিক্ষার্থীরা। 
 

রাবির আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলায় আহত ৫০



বাংলাদেশ সময়: ১৬৪৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০২, ২০১৪

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2014-02-02 05:48:00