bangla news

এবার অটিজম নিয়ে কথা বলবে মীনা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১২-০৯-২৪ ২:১৩:২৮ এএম

শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসচেতনতা তৈরিতে , বাল্যবিবাহ বন্ধে মীনা-চরিত্র যে অবদান রেখেছে,  এবার অটিজম নিয়েও তেমনি কথা বলবে সেই মীনা-চরিত্র। মীনা এখন শুধু একটি কার্টুন চরিত্র নয়, বরং সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে ভূমিকা রেখে জীবন্ত চরিত্রে পরিণত হয়ে উঠেছে মীনা।

ঢাকা: শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসচেতনতা তৈরিতে , বাল্যবিবাহ বন্ধে মীনা-চরিত্র যে অবদান রেখেছে,  এবার অটিজম নিয়েও তেমনি কথা বলবে সেই মীনা-চরিত্র। মীনা এখন শুধু একটি কার্টুন চরিত্র নয়, বরং সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে ভূমিকা রেখে জীবন্ত চরিত্রে পরিণত হয়ে উঠেছে মীনা।

সোমবার এলজিইডি ভবন মিলনায়তনে মীনা দিবসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মীনার নতুন এ ভূমিকার কথা ঘোষণা দেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী ডা. মো. আফছারুল আমীন।

এবারের মীনা দিবসের প্রতিপাদ্য ‘শিক্ষায় অটিজম কোনো বাধা নয়, স্কুলে শিশুরা বন্ধু যদি হয়’। প্রতিপাদ্যের আলোকে এ বছর মীনা দিবসে অটিজম বিষয়ের ওপর বিশেষ গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। অটিস্টিক শিশুদের সর্ম্পকে ইতিবাচক মনোভাব পোষণ ও সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে অটিজম বিষয়ক মীনা কার্টুনের উদ্বোধন করেন আফছারুল আমীন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী আফছারুল আমীন বলেন, ‘‘একটি দিবস থেকে অনেক কিছু শেখার থাকে। মীনার বিভিন্ন চরিত্র আমাদের শিক্ষা, স্বাস্থ্যে প্রভাব ফেলেছে। বাল্য বিবাহ রোধে বড় ভূমিকা রেখেছে। এবার অটিজমেও থাকবে মীনার ভূমিকা।’’

মন্ত্রী বলেন, ‘‘সমাজ পরিবর্তনের ভূমিকার মীনা চরিত্র যে দ্বায়িত্ব পালন করে আসছে, এবার অটিস্টিক শিশুদের জন্যে স্কুলকে সাবলীল করার দ্বায়িত্বও পালন করবে মীনা।’’

তিনি বলেন, ‘‘অটিজম আর প্রতিবন্ধী এক কথা নয়। অনেক প্রতিবন্ধী শিশুকে আমরা এখনো স্কুলে নিয়ে আসতে পারিনি এবং সম্ভব হয় না। তবে স্কুলের নিরাপদ পরিবেশ থাকলে অটিস্টিক শিশুরা স্কুলে যেতে পারবে।’’

মন্ত্রী বলেন, ‘‘বর্তমান সরকারের অন্যতম অঙ্গীকার ছিল, ২০১১ সালের মধ্যে বিদ্যালয় গমনোপযোগী শতভাগ শিশুকে বিদ্যালয়ে ভর্তি করা। এ লক্ষ্যে একীভূত শিক্ষার আওতায় সরকার বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। সমাজের বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের বিবেচনায় রেখে মীনা দিবস উদযাপনে সকল অটিস্টিক শিশুকে বিদ্যালয়ে ভর্তি ও ভর্তিকৃত শিশুদের বিদ্যালয়ে ধরে রেখে প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করতে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।’’

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. মোতাহের হোসেন বলেন, ‘‘মীনার যে চরিত্র তা আজ আমাদের সমাজের সর্বস্তরে প্রবেশ করেছে। এবার অটিজম নিয়েও মীনা সফল হবে।’’

অনুষ্ঠানে উপস্থিত শিশুদের স্কুলের অটিস্টিক বন্ধুদের সঙ্গে স্বাভাবিক ব্যবহারের উপদেশ দেন তিনি। আনন্দদায়ক পরিবেশ সৃষ্টির মাধ্যমে বিদ্যালয়কে শিশুবান্ধব হিসেবে গড়ে তোলা হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে রাজধানীর বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের অংশগ্রহণে মীনা চরিত্রের ওপর নাটক, গান, জারিগান, মাপেট শো অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে  প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে।

শিশুরা মীনা, রাজু, মিঠু চরিত্রে সেজে বিভিন্ন উপস্থাপনা পরিবেশন করে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব এম এম নিয়াজউদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক শ্যামল কান্তি ঘোষ, বাধ্যতামূলক প্রাথমিক শিক্ষা পর্যবেক্ষণ ইউনিটের মহাপরিচালক আবদুল হালিম এবং ইউনিসেফ, বাংলাদেশের শিক্ষা বিশেষজ্ঞ নূর হোসেন।

বাংলাদেশ সময়: ১২০২ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১২
এমএন/ সম্পাদনা: অশোকেশ রায়, অ্যাসিসট্যান্ট আউটপুট এডিটর; জুয়েল মাজহার, কনসালট্যান্ট এডিটর jewel_mazhar@yahoo.com 

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2012-09-24 02:13:28