ঢাকা, শনিবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৫ মে ২০২৪, ১৬ জিলকদ ১৪৪৫

শিক্ষা

শুরু হচ্ছে ওয়ার্ল্ড ইয়ুথ ফেস্টিভ্যাল, থাকছে বাংলাদেশও

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০৫৭ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২৪
শুরু হচ্ছে ওয়ার্ল্ড ইয়ুথ ফেস্টিভ্যাল, থাকছে বাংলাদেশও

ঢাকা: বিশ্বের যুব প্রতিনিধিদের নিয়ে আগামী মার্চে রাশিয়ার সচিতে শুরু হতে যাচ্ছে ওয়ার্ল্ড ইয়ুথ ফেস্টিভ্যাল ২০২৪। বিশ্বের প্রায় ১৪০টি দেশ থেকে এ উৎসবে অংশ নিচ্ছেন ২০ হাজার যুব প্রতিনিধি।

পিছিয়ে নেই বাংলাদেশও।

বৈশ্বিক এ আয়োজনে বাংলাদেশ থেকে এবার সুযোগ পেয়েছেন ৯৫ জন তরুণ-তরুণী, যারা বিশ্ব দরবারে তুলে ধরবেন নিজেদের দেশকে। কথা বলবেন বিভিন্ন বিষয়ে নিজেদের সমৃদ্ধ করতে। এরইমধ্যে প্রায় সম্পন্ন হয়েছে সব প্রক্রিয়া। এখন চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি।  

প্রস্তুতির অংশ হিসেবে শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে রাজধানীর কাকরাইলে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্সের (আইডিইবি) কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত হলো এক প্রস্তুতি সভা। এর আয়োজন করে ওয়ার্ল্ড ইয়ুথ ফেস্টিভ্যালের বাংলাদেশের জাতীয় প্রস্তুতি কমিটি এবং ঢাকার রাশিয়ান হাউজ। আয়োজনে অংশ নেন বাংলাদেশের হয়ে প্রতিনিধিত্বকারী যুব প্রতিনিধিরা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রাশিয়ান হাউজের পরিচালক পাভেল দভয়চেনকভ। সভাপতিত্ব করেন ওয়ার্ল্ড ইয়ুথ ফেস্টিভ্যালের বাংলাদেশের জাতীয় প্রস্তুতি কমিটির চেয়ারম্যান তারেক মাহমুদ। এ ছাড়া অতিথি হিসেবে আরও বক্তব্য রাখেন আইডিইবির সভাপতি এ কে এম হামিদ, আইডিইবির আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক সম্পাদক মো. কামরুজ্জামান নয়ন এবং ওয়ার্ল্ড ইয়ুথ ফেস্টিভ্যালের বাংলাদেশের জাতীয় প্রস্তুতি কমিটির সাধারণ সম্পাদক জিয়া উদ্দিন হায়দার।

রাশিয়ান হাউজের পরিচালক পাভেল দভয়চেনকভ বলেন, অংশগ্রহণকারীরা ফেস্টিভ্যাল থেকে বিভিন্ন ধরনের শিক্ষা নিয়ে ফিরে দেশের আরও উন্নয়ন করতে পারবেন। এ ছাড়া নতুন নতুন ধারণার মাধ্যমে বাংলাদেশের নাম বিশ্ব দরবারে আরও বড় আঙ্গিকে তুলে ধরবেন, এমনটাই প্রত্যাশা করি। একইসঙ্গে তাদের সুযোগ হবে ইতিহাস-ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিতে অনন্য দেশ রাশিয়াকে খুব কাছ থেকে জানার ও দেখার।

বাংলাদেশের জাতীয় প্রস্তুতি কমিটির চেয়ারম্যান তারেক মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশ থেকে যারা এ আয়োজনে যাচ্ছেন, তাদের জন্য এটি অনেক বড় একটি সুযোগ। এ আয়োজনের মধ্য দিয়ে তারা আন্তর্জাতিকভাবে নেটওয়ার্কিংয়ের একটি সুযোগ পাবেন। এ ছাড়া তারা যখন ইন্টারন্যাশনাল কমিউনিটির সঙ্গে মিশবেন, তখন তারা এও বুঝতে পারবেন, আমরা কোথায় পিছিয়ে আছি! সে জায়গা ধরে তারা আমাদের দেশের উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারবেন। একই সঙ্গে করবেন নিজেদের উন্নয়ন।

আইডিইবির সভাপতি এ কে এম হামিদ বলেন, বাংলাদেশের অন্যতম বন্ধুপ্রতিম দেশ হলো রাশিয়া। দেশটি বাংলাদেশের তরুণদের ডেলিগেটস হিসেবে এমন একটি আয়োজনে অংশগ্রহণের সুযোগ দিচ্ছে। সে আয়োজন থেকে, নতুন একটি দেশ থেকে আমাদের তরুণরা নতুন কিছু শিখে এসে দেশের উন্নয়ন করবেন, এমনটি  প্রত্যাশা করি।

আলোচনা শেষে এ উৎসবে সুযোগ পাওয়া তরুণ প্রতিনিধিদের মধ্যে পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। একই সঙ্গে উৎসব সম্পর্কে বিভিন্ন বিষয়ে ধারণা দেওয়া হয়।

আগামী ১ থেকে ৭ মার্চ রাশিয়ার সোচিতে অনুষ্ঠিত হবে ওয়ার্ল্ড ইয়ুথ ফেস্টিভ্যাল। এতে অংশ নেবেন শিক্ষা, বিজ্ঞান, আন্তর্জাতিক সহযোগিতা, সংস্কৃতি, স্বেচ্ছাসেবামূলক কাজ, দাতব্য কাজ, ক্রীড়া, ব্যবসা, গণমাধ্যম ইত্যাদি ক্ষেত্রের ২০ হাজার যুব নেতা, যার মধ্যে ১০ হাজারই বিদেশি অংশগ্রহণকারী।  

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের আন্তর্জাতিক যুব সহযোগিতা বাড়ানোর আদেশ অনুসারে ২০২৪ সালে দেশটিতে এ উৎসব অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

বাংলাদেশ সময়: ০০৫২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২৪
এইচএমএস/আরএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

শিক্ষা এর সর্বশেষ