bangla news

না.গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের উত্তেজনা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১২-০৭-০৪ ৭:২৫:২০ এএম

নারায়ণগঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে গত দু’দিন ধরে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে গত দু’দিন ধরে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

মঙ্গলবার দু’পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি ও কয়েকটি ব্যানার সাটানো নিয়ে অপ্রীতিকর ঘটনার পর বুধবার সকাল থেকে এক পক্ষের লোকজন কলেজে বিক্ষোভ মিছিল করে। এ সময় সাধারণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লে দুপুর ১টার দিকে কলেজে ছুটি ঘোষণা করা হয়।

এদিকে, কলেজের উদ্ভট পরিস্থিতিতে বুধবার দুপুরে কলেজ কর্তৃপক্ষ, অধ্যক্ষ ও ছাত্রলীগ নেতাদের বৈঠকের পর ঘটনার কারণ উদঘাটনে ৩ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কমিটির প্রধান করা হয়েছে কলেজের ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মীর জাহের আলমকে। অপর ২ জন হলেন- প্রফেসর মনিরুল ইসলাম ও তাপস কুমার দত্ত।

কমিটিকে আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। আগামী শনিবার কলেজের গভর্নিং বডির জরুরি সভা আহ্বান করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, কলেজে ব্যানার ও বসাকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার শামীম ওসমান সমর্থিত ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মীর সঙ্গে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জিএম আরাফাতের অনুসারী নেতাকর্মীদের মধ্যে মারধরের ঘটনা ঘটে। সেদিন ছাত্রলীগ নেতারা ওই ঘটনার জন্য কলেজের অধ্যক্ষকে দায়ি করে তার অপসারণ চায়।

এদিকে, বুধবার সকাল ১১টার দিকে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাফায়েত আলম সানি ও অন্যদের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা কলেজ প্রাঙ্গণে অবস্থান নেয়। এ সময় তারা কলেজে বিক্ষোভ মিছিলের মাধ্যমে অধ্যক্ষের অপসারণ দাবি করে। এর কিছু সময় পরই যুবলীগ ক্যাডার পারভেজ বাহিনীর লোকজন কলেজে এসে অবস্থান নেয়। এতে করে কলেজে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দেয়।

দুপুর ১টার দিকে কর্তৃপক্ষ ছুটি ঘোষণা করলে শিক্ষার্থীর কলেজ ত্যাগ করে। পরে কর্তৃপক্ষ ছাত্রলীগ নেতাদের সঙ্গে আলোচনায় বসে। তখন ছাত্রলীগ নেতারা কলেজের ছাত্র সংসদ খুলে দেওয়া এবং বহিরাগত ছাত্রদের প্রবেশ বন্ধ করার দাবি জানান।

জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রাজীব দাস বাংলানিউজকে জানান, কলেজের ছাত্র নয় এমন অনেক বহিরাগত অছাত্রদের নামে কলেজ প্রাঙ্গণে ব্যানার সাটানো পাওয়া গেছে। কিন্তু কলেজের অধ্যক্ষ এ ব্যাপারে ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো অছাত্রদের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তুলেছে। বিভিন্ন সময়ে তিনি অছাত্রদের সঙ্গে কেক কেটে অনুষ্ঠান করেছেন।

কলেজের অধ্যক্ষ বিরাজ কুমার সাহা বাংলানিউজকে জানান, কলেজে ছাত্র সংসদ খুলে দেওয়ার দাবি জানিয়েছে ছাত্রলীগ নেতারা। কিন্তু সরকার কয়েক মাস আগে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছাত্র সংসদের কার্য্যক্রম স্থগিত ঘোষণা করেছে। পরবর্তী ঘোষণা না আসা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ কলেজের ছাত্র সংসদ খুলে দেওয়া সম্ভব নয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৭১৭ ঘণ্টা, জুলাই ০৪, ২০১২
সম্পাদনা: শাফিক নেওয়াজ সোহান, নিউজরুম এডিটর

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2012-07-04 07:25:20