bangla news

জুবায়ের হত্যার বিচার প্রক্রিয়ায় সন্তুষ্ট নয় পরিবার

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১২-০৭-০১ ৬:৫৭:১৭ এএম

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী জুবায়ের আহমেদ হত্যার বিচার প্রক্রিয়ায় সন্তুষ্ট নয় তার পরিবার।

জাবি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী জুবায়ের আহমেদ হত্যার বিচার প্রক্রিয়ায় সন্তুষ্ট নয় তার পরিবার।

রোববার বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে ২ লাখ টাকার চেক গ্রহণ করতে এসে বাংলানিউজের সঙ্গে আলাপকালে নিহত জুবায়ের আহমেদের বাবা তোফায়েল আহমেদ বিচার প্রক্রিয়ার ব্যাপারে এ অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, ‘৪ আসামি ধরা পড়ার পর যেহেতু আর কোনো আসামিদের ধরা পড়ছে না, সেহেতু সন্তুষ্ট থাকার কোনো প্রশ্নই আসে না।’

তিনি বলেন, ‘আমরা বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি করেছিলাম। কিন্তু, বিচার বিভাগীয় তদন্তের ব্যাপারে কোনো অগ্রগতি নেই। পুলিশ এখন পর্যন্ত মাত্র ৪ জন আসামিকে ধরতে সক্ষম হয়েছে। যদি পুলিশ কঠোর পদক্ষেপ নেয়, তাহলে অন্যান্য আসামিদের ধরা কঠিন হবে না। কিন্তু জানি না কোনো অদৃশ্য কলকাঠি হয়ত আছে, যার কারণে পুলিশ আসামিদের ধরছে না।’

আসামিরা অনেকে জামিনে বেরিয়ে আসার চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু, কেউ বের হতে পারেন নি। কয়েকজনের জামিন আবেদন বাতিল হয়েছে বলে জানান তোফায়েল আহমেদ।

তিনি প্রধানমন্ত্রী তথা সরকারের উদ্দেশে বলেন, ‘আমার সন্তানকে যেভাবে হত্যা করা হয়েছে, আর কোনো বাবা-মায়ের সন্তানকে যেন সেভাবে হত্যা করা না হয়।’

এ সময় তিনি আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন এবং বলেন, ‘আল্লাহতালা হয়ত আমার কপালে ছেলের সুনাম দেখার ভাগ্য দেন নি।’

তাই, তিনি দেশবাসীকে তার ছেলে ও পরিবারের জন্য দোয়া করতে বলেন।

এর আগে বেলা সাড়ে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয় কাউন্সিল কক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে জুবায়ের আহমেদের বাবা তোফায়েল আহমেদ বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে ২ লাখ টাকার চেক গ্রহণ করেন। চেক প্রদান করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আনোয়ার হোসেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপউপাচার্য অধ্যাপক মো. ফরহাদ হোসেন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. নাসির উদ্দিন, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, রেজিস্ট্রার, হল প্রভোস্ট প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ৮ জানুয়ারি জুবায়ের আহমেদ জাবি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের হামলার শিকার হয়ে ৯ জানুয়ারি রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তদন্ত কমিটির রিপোর্টের ভিত্তিতে জুবায়ের হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ইতোমধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৭ ছাত্রকে আজীবন এবং ৬ ছাত্রকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিস্কার করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জুবায়ের আহমেদ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করে। পুলিশ অভিযুক্ত আসামিদের মধ্যে ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪৪ ঘণ্টা, জুলাই ০১, ২০১২
সম্পাদনা: আশিস বিশ্বাস, অ্যাসিস্ট্যান্ট আউটপুট এডিটর

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2012-07-01 06:57:17