ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৪ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯
bangla news

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে বর্ণিল আয়োজন

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১২-০৭-০১ ১:৪৯:৩৭ এএম

‘নারীর ক্ষমতায়নে উচ্চশিক্ষা’ এ প্রতিপাদ্য নিয়ে বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদযাপিত হচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে: ‘নারীর ক্ষমতায়নে উচ্চশিক্ষা’ এ প্রতিপাদ্য নিয়ে বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদযাপিত হচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী। রোববারের সকালের সূর্য বিশ্ববিদ্যালয়ে ছড়িয়ে ছিল অন্য এক আলো। এ আলোয় আলোকিত হয়ে মেতে ছিল বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সবাই। বর্ণিল আলোকসজ্জা, শোভাযাত্রা, কেক কাটা, আলোচনা সভা, স্মৃতিচারণসহসহ নানা আয়োজনে এদিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে উদযাপিত হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় দিবস।

দিবসটি উপলক্ষে ক্যাম্পাসে ছিল শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা, কর্মচারীদের বিভিন্ন আয়োজন। নতুন-পুরাতন শিক্ষার্থীদের মিলন মেলায় পরিণত হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বিভিন্ন চত্বর।

বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি, মধুর ক্যান্টিন, হলগুলোত জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সব শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে কেক কাটা হয় মল চত্বরে। উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।

সকাল ১০টায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর সকাল ১০টা ৫ মিনিটে ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) মিলনায়তনে শুরু হয় আলোচনা ও স্মৃতিচারণমূলক অনুষ্ঠান। এতে আলোচনায় বক্তব্য রাখেন, অধ্যাপক আনিসুজ্জামান, ঢাবি সাবেক ভিসি মনিরুজ্জামান মিয়া, প্রভিসি শহীদ আখতার হুসেইন (প্রশাসন), প্রভিসি নাসরিন আহমেদ (শিক্ষা), কোষাধ্যক্ষ কামালউদ্দিন প্রমুখ।

দিবসটি উপলক্ষে ক্যাম্পাসে দিনব্যাপী কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। সকাল ৯টায় হলসমূহ থেকে শোভাযাত্রা সহকারে প্রশাসনিক ভবন সংলগ্ন মল চত্বরে জমায়েত হয়। ৯টা ১৫ মিনিটে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, কেক কাটা ও শোভাযাত্রাসহ টিএসসিতে আসে বর্ণিল শিক্ষার্থীরা।

এতে “নারীর ক্ষমতায়নে উচ্চশিক্ষা” শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দীন। আলোচনায় অংশ নেন করেন প্রাক্তন উপাচার্য, প্রাক্তন প্রো-ভিসি, প্রফেসর এমিরিটাস, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারী সমিতির প্রতিনিধিরা।

এছাড়া সকাল ১০টায় বায়োমেডিকেল ফিজিক্স অ্যান্ড টেকনোলজি বিভাগের উদ্যোগে গবেষণা ও আবিষ্কার বিষয়ক প্রদর্শনী, বিকাল ৩টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং বাংলাদেশ ট্যুরিজম বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতা, বিকাল ৪টায় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র মিলনায়তনে ডিইউডিএস-এর আয়োজনে প্রীতি বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়া বেলা ৩টায় স্ব স্ব বিভাগ ও অনুষদে বিজ্ঞান বিষয়ক অনুষ্ঠান, বিকাল ৪টায় বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে প্রীতি ফুটবল এবং বিকাল ৪টা ৫০মিনিটে প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচ হওয়ার কথা রয়েছে।

বিকাল ৫টায় টিএসসি মিলনায়তনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত ও নৃত্য পরিবেশন করবেন সংগীত বিভাগ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ও বর্তমান ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ। সন্ধ্যা ৭টায় নাট্যকলা বিভাগের উদ্যোগে নাটক পরিবেশিত হবে।

এদিকে, ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র মিলনায়তন প্রাঙ্গণে সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৫টা পর্যন্ত স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি, সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ঢাবি বিশ্ববিদ্যালয় গ্রন্থাগারে পাণ্ডুলিপি প্রদর্শনী চলবে।

সকাল ১০টায় চারুকলা অনুষদে শিশু চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, বেলা ১১টায় মার্কেটিং বিভাগের উদ্যোগে সেমিনার, মেলা, রম্য বিতর্ক ও অন্যান্য কর্মসূচি হয়। বিকাল ৪টায় প্রশাসনিক ভবন সংলগ্ন চত্বরে আবৃত্তি, দেশাত্মবোধক গান, বাউল সংগীত ও কাওয়ালি পরিবেশন করা হবে।

প্রসঙ্গত, বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে হল, বিভাগ ও অন্যান্য অফিস খোলা থাকবে।

বাংলাদেশ সময়: ১১৩৮ ঘণ্টা, জুলাই ০১, ২০১২
সম্পাদনা: রানা রায়হান, অ্যাসিসট্যান্ট আউটপুট এডিটর

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2012-07-01 01:49:37