ঢাকা, শনিবার, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩ শাবান ১৪৪৫

শিক্ষা

সুস্থ থাকলে নজরুল তার ‘অগ্নিবীণা’ বঙ্গবন্ধুর নামে উৎসর্গ করতেন: ঢাবি উপাচার্য

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৫৫ ঘণ্টা, মে ২৫, ২০২৩
সুস্থ থাকলে নজরুল তার ‘অগ্নিবীণা’ বঙ্গবন্ধুর নামে উৎসর্গ করতেন: ঢাবি উপাচার্য ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান

ঢাকা: সুস্থ থাকলে জাতীয় কবি নজরুল ইসলাম তাঁর প্রথম কাব্যগ্রন্থ বঙ্গবন্ধুর নামে উৎসর্গ করতেন বলে মনে করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান।

বৃহস্পতিবার (২৫ মে) জাতীয় কবির সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন পরবর্তী বক্তব্যে তিনি এ অভিমত দেন।

ঢাবি উপাচার্য বলেন, নজরুল তার প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘অগ্নিবীণা’, যাকে উৎসর্গ করেছেন, সেটিও খুব গুরুত্বপূর্ণ। সেই বারীন্দ্র কুমার ঘোষ ছিলেন তৎকালীন সমগ্র ভারত ও বাংলার মহানায়ক। আমার ধারণা যদি তিনি (নজরুল) সুস্থ থাকতেন এবং তার (বঙ্গবন্ধু) বয়স সেই রকম হতো, যা হয়েছিল চল্লিশের দশকে, তিনি সেই সময়ে যে অসামান্য অবদান রেখেছেন, কবি নজরুল হয়তো এই কাব্যগ্রন্থটি বঙ্গবন্ধুর নামেই উৎসর্গ করতেন। কেননা একটি জাতির রাষ্ট্র সৃষ্টির মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু যে অবদান রেখেছেন, কাজী নজরুল তার এই কাব্যগ্রন্থ উৎসর্গের জন্য সব বৈশিষ্ট্য বঙ্গবন্ধুর মাঝে খুঁজে পেতেন।

জাতীয় কবির ১২৪তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে সকালে অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে থেকে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা এবং কর্মচারীরা শোভাযাত্রা সহকারে কবির সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও ফাতেহা পাঠ করেন।  

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ এবং কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মমতাজ উদ্দিন আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।  

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে কবির সমাধি প্রাঙ্গণে আলোচনা সভা ও সংগীতানুষ্ঠান হয়।

বাংলা বিভাগের চেয়ারপারসন অধ্যাপক ড. ফাতেমা কাওসারের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো.
নিজামুল হক ভূঁইয়া ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নজরুল গবেষণা কেন্দ্রের পরিচালক অধ্যাপক ড. সিরাজুল ইসলাম।  

বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. সৈয়দ আজিজুল হক অনুষ্ঠানে স্মারক বক্তৃতা প্রদান করেন। সংগীত বিভাগের চেয়ারম্যান ড. দেবপ্রসাদ দা-এর নেতৃত্বে বিভাগীয় শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অনুষ্ঠানে নজরুল সংগীত পরিবেশন করেন।

আলোচনা সভায় ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, কাজী নজরুল ইসলাম আমাদের বিদ্রোহী ও জাতীয় কবি। তিনি সাম্য, অসাম্প্রদায়িকতা, মানবতা, প্রেম ও ভালোবাসার কবি। বিভিন্ন ক্রান্তিকালে ও সংকটময় পরিস্থিতিতে বঙ্গবন্ধুর কাছে অনুপ্রেরণার অন্যতম উৎস ছিলো কবি নজরুলের কবিতা ও গান।

নজরুলের অনবদ্য সৃষ্টি অগ্নিবীণা'র প্রাসঙ্গিকতা সব যুগেই রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, জাতিরাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায়, সমাজ পরিবর্তনে এবং মানুষের মুক্তির জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব যে ঐতিহাসিক আন্দোলন-সংগ্রাম পরিচালনা এবং অপরিসীম ত্যাগ স্বীকার করেছেন, সেক্ষেত্রেও সাহস ও শক্তি জোগাতে অনন্য ভূমিকা রেখেছে নজরুলের অসাধারণ সৃষ্টিকর্ম। নজরুল প্রেমী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কবি নজরুলকে ভারত থেকে বাংলাদেশে নিয়ে এসে জাতীয় কবির মর্যাদায় প্রতিষ্ঠিত করে তাকে যথার্থভাবে সম্মানিত করেছেন বলে উপাচার্য উল্লেখ করেন।

বাংলাদেশ সময়: ২০৫৫ ঘণ্টা মে ২৫, ২০২৩
এসকেবি/জেএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।