ঢাকা, বুধবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৫ মে ২০২২, ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩

অর্থনীতি-ব্যবসা

ভূমি ব্যবস্থাপনা ডিজিটাল করতে আট বিভাগে ঠিকাদার নিয়োগ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৩৯ ঘণ্টা, মে ১১, ২০২২
ভূমি ব্যবস্থাপনা ডিজিটাল করতে আট বিভাগে ঠিকাদার নিয়োগ

ঢাকা: জমির নকশা, ম্যাপিং ও সার্বিক ভূমি ব্যবস্থাপনা ডিজিটাল করতে ১৩৮ কোটি ৮৮ লাখ টাকা ব্যয়ে দেশের আট বিভাগে একযোগে ঠিকাদার নিয়োগ দিয়েছে সরকার। এর ফলে আগামী দুই বছরের মধ্যে জনগণ ডিজিটাল ভূমি ব্যবস্থাপনার সুফল পাবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

বুধবার (১১ মে) দুপুরে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে ভার্চ্যুয়ালি অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এ সংক্রান্ত ৮টি প্রস্তাবের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

পাশাপাশি ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন তৈরি ও স্যাটেলাইট ইমেজ সংগ্রহ এবং ইমেজ ক্লাসিফিকেশনের জন্য পৃথক দুটি প্রতিষ্ঠানকে নিয়োগ দেওয়া হয়।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব জিল্লুর রহমান চৌধুরী সাংবাদিকদের জানান, চার বছর মেয়াদি প্রকল্পের দুই বছর ইতোমধ্যে অতিক্রম করেছে। ২০২৪ সালের মধ্যে প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল। আশা করছি, আগামী দুই বছরের মধ্যে জনগণ এর সুফল পাবে। ঘরে বসেই ভূমি সংক্রান্ত সেবা নিতে পারবেন। ফলে ঘাটে ঘাটে দালাল বা অন্যান্য মধ্যস্বত্ত্বভোগীদের দৌরাত্ম্য কমবে।

বৈঠক থেকে জানানো হয়, রংপুর বিভাগে ১৩ হাজার ৩০৪টি মৌজা ম্যাপ শিট ডিজিটাইজ করতে ১২ কোটি ৯৯ লাখ ৮২ হাজার ৬৭০ টাকায় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ডেভেলপমেন্ট ডিজাইন কনসালটেন্টকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। একই ভাবে রাজশাহী বিভাগে ১৭ হাজার ৬৪১টি মৌজা ম্যাপ শিট ডিজিটাইজ করতে ১৭ কোটি ১ লাখ ৫০ হাজার ৯৯৪ টাকায় একই প্রতিষ্ঠানকে নিয়োগ দেওয়া হয়। খুলনা বিভাগে ৪২ হাজার ১৭১টি মৌজা ম্যাপ শিট ডিজিটাইজ করতে ২৭ কোটি ৯৪ লাখ ২৭ হাজার ১৩০ টাকায় একই প্রতিষ্ঠানকে নিয়োগ দেওয়া হয়।

ময়মনসিংহ বিভাগে ১১ হাজার ৮৯৮টি মৌজা ম্যাপ শিট ডিজিটাইজ করতে ১৩ কোটি ৪০ লাখ ১২ হাজার ৮৯৭ টাকায় দেশ উপদেশ লিমিটেড ও টেকনিক্যাল সাপোর্ট সার্ভিসকে নিয়োগ দেওয়া হয়।

সিলেট বিভাগের ১০ হাজার ২০৪টি মৌজা ম্যাপ শিট ডিজিটাইজ করতে ১৪ কোটি ২৩ লাখ ৪৩ হাজার ৩৪০ টাকায় ডাটা এক্সপোর্ট ও মাল্টিমিডিয়া কনটেন্ট অ্যান্ড কমিউনিকেশনের জয়েনভেঞ্চারকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

ঢাকা বিভাগে ১৮ হাজার ৭৭৯টি মৌজা ম্যাপ শিট ডিজিটাইজ করতে ১৭ কোটি ৮০ লাখ ১১ হাজার ৫০৫ টাকায় ইনস্টিটিউট অব ওয়াটার মডেলিং ও সিনেসিস আইটির জয়েন ভেঞ্চারকে নিয়োগ দেওয়া হয়।

বরিশাল বিভাগে ৮ হাজার ৭৯৩টি মৌজা ম্যাপ শিট ডিজিটাইজ করতে ১২ কোটি ৩৯ লাখ ১ হাজার ৩৯২ টাকায় একই জয়েন ভেঞ্চারকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম বিভাগে ১৫ হাজার ৬২২টি মৌজা ম্যাপ শিট ডিজিটাইজ করতে ২৩ কোটি ৯ লাখ ৭০ হাজার ৪৪৪ টাকায় বেটস কনসালটিং ও মেগাটেক জিএনবিডির জয়েন ভেঞ্চারকে নিয়োগ করা হয়।

এছাড়া ডাটাবেইজ ম্যানেজমেন্ট ও ভিজ্যুয়ালাইজেশেনের জন্য পরামর্শক প্রতিষ্ঠান হিসেবে ২ কোটি ৭ লাখ ৭৮ হাজার ৪০গ টাকায় ইনস্টিটিউট অব ওয়াটার ম্যানেজমেন্ট ও সিনেসিস আইটির জয়েনভেঞ্চারকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। সমগ্র দেশের স্যাটেলাইট ইমেজ সংগ্রহ এবং ইমেজ ক্লাসিফিকেশনের জন্য ৬৪ কোটি ৬৪ লাখ ৪৮ হাজার ৬ টাকায় সেন্টার ফর এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড জিওগ্রাফিক্যাল ইনফরমেশন সার্ভিসকে নিয়োগ করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪০ ঘণ্টা, মে ১১, ২০২২
জিসিজি/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa