ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬, ২৭ জুন ২০১৯
bangla news

খুলনার দাদা ম্যাচ ফ্যাক্টরিকে বিসিআইসি’র কাছে হস্তান্তরের দাবি শ্রমিকদের

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১০-০৯-১৪ ২:২৯:১৬ এএম

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অবিলম্বে কার্যকর করে দাদা ম্যাচ ফ্যাক্টরিকে বিসিআইসি’র (বাংলাদেশ কেমিকেল ইন্ডস্ট্রিজ কর্পোরেশন) কাছে হস্তান্তর, কারখানাটি চালু করে শ্রমিকদের চাকরি ফিরিয়ে দেওয়াসহ পাওনা সম্পূর্ণ পরিশোধের দাবিতে মঙ্গলবার সকালে বিক্ষোভ সমাবেশ ও প্রতিবাদ মিছিল করেছে শ্রমিকরা।

খুলনা: প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অবিলম্বে কার্যকর করে দাদা ম্যাচ ফ্যাক্টরিকে বিসিআইসি’র (বাংলাদেশ কেমিকেল ইন্ডস্ট্রিজ কর্পোরেশন) কাছে হস্তান্তর, কারখানাটি চালু করে শ্রমিকদের চাকরি ফিরিয়ে দেওয়াসহ পাওনা সম্পূর্ণ পরিশোধের দাবিতে মঙ্গলবার সকালে বিক্ষোভ সমাবেশ ও প্রতিবাদ মিছিল করেছে শ্রমিকরা।

সকাল সাড়ে  ১০ টায় রূপসা শিল্পাঞ্চলে দাদা ম্যাচ ফ্যাক্টরি এলাকায় ওয়ার্কার্স ইউনিয়ন কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন শ্রমিক নেতা দিলখোস মিয়া। এ সময় বক্তারা অবিলম্বে শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধ করা না হলে কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে বলে জানান।

এ ব্যাপারে দাদা ম্যাচ ফ্যাক্টরির ডেপুটি চিফ অ্যাকাউন্টেট সাজাহান সরদার বাংলানিউজকে জানান, ঈদের আগে মিলের স্থায়ী শ্রমিকদেরকে ২ হাজার টাকা করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। একই সঙ্গে অস্থায়ী শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধেরও উদ্যোগ নেওয়া হয়। কিন্তু শ্রমিকরা আংশিক পাওনা গ্রহণে রাজি হয়নি।

তিনি বলেন, ‘বিষয়টি প্রধান কার্যালয়ে জানানো হয়েছে। সেখান থেকে বলা হয়েছে দ্রুত শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধ করা হবে।’

এতিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র বাংলানিউজকে জানায়, মিলটি ইজারা নেওয়ার পর থেকে ইজারা গ্রহিতা ভাইয়া গ্র“প বিভিন্ন সময়ে ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়েছে যা বর্তমানে সুদে আসলে ২৬৩ কোটি টাকায় দাঁড়িয়েছে। এ অবস্থায় তারা আবারও ফ্যাক্টরি চালুর অজুহাতে নতুন করে ঋণ নেওয়ার চেষ্টা করছে। তাদের উদ্দেশ্য হচ্ছে যেনতেনভাবে মিলটি আবার চালু কের একপর্যায়ে মিলকে দেউলিয়া ঘোষণা করে ঋণ পরিশোধের দায় থেকে কৌশলে বেঁচে যাওয়া।

দাদা ম্যাচ ফ্যাক্টরি গত ১৮ আগস্ট বন্ধ ঘোষণা করে সকল শ্রমিককে টারমিনেশন করে ভাইয়া গ্রুপ। সেই থেকে শ্রমিকরা বকেয়া বেতন ভাতা ও ফ্যাক্টরি চালুর দাবিতে আন্দোলন অব্যাহত রেখেছে।

বাংলাদেশ সময়: ১২০৪ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১০

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2010-09-14 02:29:16