ঢাকা, বুধবার, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২

অর্থনীতি-ব্যবসা

অনলাইন ব্যাংকিং লেনদেন কমেছে আগস্টে

শাহেদ ইরশাদ, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০০৮ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৫, ২০২০
অনলাইন ব্যাংকিং লেনদেন কমেছে আগস্টে অনলাইন ব্যাংকিং

ঢাকা: মানুষ ঘরের বাইরে যাওয়া শুরু করার ফলে অধিকাংশ অনলাইন ব্যাংকিং চ্যানেলে লেনদেন জুলাই মাসের তুলনায় আগস্ট মাসে কমে গেছে। একমাত্র ইন্টারনেট ব্যাংকিংয়ে লেনদেন বেড়েছে।

 

জুলাইয়ের তুলনায় আগস্ট মাসে ই-কর্মাসে লেনদেন কমেছে ১ দশমিক ৫২ বিলিয়ন টাকা।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পরিসংখ্যানে বলা হয়েছে, জুলাই মাসের সঙ্গে তুলনা করলে দেখা যায়, আগস্টে মোবাইল ব্যাংকিং লেনদেন কম হয়েছে ৩৪ শতাংশ।

অটোমেটেড টেলার মেশিনে (এটিএম) লেনদেন জুলাই মাসে ১৭৩ দশমিক ৪ বিলিয়ন টাকা হলেও ৪৫ দশমিক ১ বিলিয়ন কমে আগস্টে লেনদেন হয়েছে ১২৮ দশমিক ৩ বিলিয়ন টাকা। পয়েন্ট অব সেল মেশিনে লেনদেন ১৬ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১১ দশমিক ৮ বিলিয়ন টাকায়।

আগস্ট মাসে আন্তঃব্যাংক লেনদেন ইলেকট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফার (ইএফটি) এবং রিয়েল টাইম গ্রোস সেটেলমেন্ট (আরটিজিএস) লেনদনও জুলাইয়ের তুলনায় কম হয়েছে।

আগস্ট মাসে ইএফটি লেনদেন হয়েছে ২১৬ দশমিক ৬ বিলিয়ন টাকা। জুলাইয়ে লেনদেনের পরিমান ছিল ২৭১ দশমিক ৮ বিলিয়ন টাকা। লেনদেন কমে গেছে ৫৫ দশমিক ২ বিলিয়ন টাকা। একইভাবে আগস্টে আরটিজিএস লেনদেন হয়েছে ১ দশমিক ৭১ ট্রিলিয়ন টাকা। জুলাই মাসে লেনদেনর পরিমান ছিল ১ দশমিক ৭৬ ট্রিলিয়ন টাকা।

একমাত্র ইন্টারনেট ব্যাংকিংয়ে লেনদেন আগস্টে ৫ দশমিক ৫ বিলিয়ন টাকা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৮ বিলিয়ন টাকায়। জুলাইয়ে ইন্টারনেট ব্যাংকিংয়ে লেনদেন হয়েছিল ৬২ দশমিক ৫ বিলিয়ন টাকা।

আর্থিক খাতের এমন চিত্রের জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক এবং অন্যান্য বাণিজ্যিক ব্যাংকের বিকাশের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরাই লেনদেনের বিষয়ে বিভক্ত হয়েছেন। ভিন্নমত পোষণ করেছেন।  

কারও কারও যুক্তি ছিল জুলাইয়ের তুলনায় আগস্টে কাজের দিন খুব কম ছিল, আবার কেউ কেউ বলেছেন, অনেকেই এখন ই-ব্যাংকিং পণ্যের পরিবর্তে প্রথাগত ব্যাংকিংয়ে ফিরে গেছেন।

তবে আবার কেই কেউ বলেছেন, এক মাসের পরিসংখ্যান মন্তব্য করার জন্য পর্যাপ্ত নয়।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, আগস্টে কর্ম দিবস কম ছিল। জুলাইয়ের চেয়ে কম করে হলেও তিন দিন কম।

তিনি আরও বলেন, কম কার্য দিবসের কারণেই আগস্ট মাসে ইএফটি এবং আরটিজিএস উভয় লেনদেনই মাসে (আগস্ট) কমে গেছে।

এ বিষয়ে মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সৈয়দ মাহবুবুবর রহমান বলেন, একমাসের পরিসংখ্যান দিয়ে প্রকৃত চিত্র বিশ্লেষণ করা যায় না। লেনদেনের ধরণ বিশ্লেষণের জন্য আমাদের আরও কয়েক মাসের পরিসংখ্যানের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

এ বিষয়ে ব্র্যাক ব্যাংকের এক কর্মকর্তা বলেন, জুলাই মাসে মানুষ অনলাইনে অনেক কেনাকাটা করেছে যে কারণে ই-কর্মাস লেনদেনের পরিমান বেড়েছে। এমনকি অনেকে কোরবানীর গরুও কিনেছেন অনলাইন শপিংসাইট থেকে। মানুষ এখন অনলাইনের পরিবর্তে শারীরিকভাবে উপস্থিত হয়ে কেনাকাটা করছে।

দেশের শীর্ষ মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস বিকাশের হেড অব কমিউনিকেশন শামসুদ্দিন হায়দার ডালিম বলেন, সার্বিকভাবে জুলাই মাসে লেনদেন সবচেয়ে বেশি হয়েছে। বিশেষ করে ঈদুল আজহার কারণে রেমিটেন্স প্রবাহ এবং অন্যান্য লেনদেন জুলাই মাসে বেশি ছিল।

তিনি আরও বলেন, আমার ধারণা সামনের মাসগুলোতে লেনদেন আরও বাড়বে।  

মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসের সেবাগুলোর মধ্যে টক টাইম ক্রয়, ক্যাশ ইন, ক্যাশ আউট, বেতন প্রদান, জিটুপি এবং ইউটিলিটি বিল প্রদান আগস্টে কমে গেছে।

বাংলাদেশ সময়: ১০০৪ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৫, ২০২০
এসই/এজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa