ঢাকা, বুধবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৭, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪ সফর ১৪৪২

অর্থনীতি-ব্যবসা

বৈশ্বিক মহামারিতে রংমিস্ত্রিদের পাশে বার্জার

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬০৫ ঘণ্টা, আগস্ট ১১, ২০২০
বৈশ্বিক মহামারিতে রংমিস্ত্রিদের পাশে বার্জার

ঢাকা: করোনা ভাইরাসের (কোভিড-১৯) বৈশ্বিক মহামারির প্রাদুর্ভাবের কারণে আর্থিকভাবে ক্ষতির শিকার হয়েছে রংমিস্ত্রিসহ প্রতিদিনের আয়ের ওপর নির্ভরশীল লাখো মানুষ।  

গত ৩ মাসে এটা মারাত্মক আকার ধারণ করেছে।

তাই, এই সঙ্কটকালীন রংমিস্ত্রিদের সহায়তায় বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ বেশকিছু উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।  

সুরক্ষিত উপায়ে রঙ সংক্রান্ত সেবা নিশ্চিত করতে বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেড সম্প্রতি সারাদেশের ৬ হাজার রংমিস্ত্রির মধ্যে ব্যক্তিগত সুরক্ষা উপকরণ (পিপিই), ৬৫ হাজার মাস্ক, ৬ হাজার মি. এক্সপার্ট হ্যান্ড স্যানিটাইজার (প্রতিষ্ঠানটির নতুন পণ্য) এবং ৩০ হাজার গ্লাভস বিতরণ করে। এছাড়াও প্রতিষ্ঠানটি ১৭ হাজার রংমিস্ত্রিকে জরুরি তহবিল সহায়তা হিসেবে ১ কোটি ৩৫ লাখ টাকা দেওয়া হয়।

এর পাশাপাশি এ প্রতিকূল পরিস্থিতিতে ‘সম্পর্ক ক্লাবের সদস্যদের (রংমিস্ত্রি) ডিজিটাল স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া লক্ষ্যে বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ ডিজিটাল স্বাস্থ্যসেবা টনিকের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে। এ প্যাকেজের আওতায়, ক্লাবের সদস্যরা ইতোমধ্যেই মৃত্যু কিংবা শারীরিক অক্ষমতাজনিত কারণে ১ লাখ টাকা ক্যাশব্যাক, হাসপাতালে ভর্তিজনিত কারণে ১ লাখ টাকা সুবিধা, ২৪ ঘণ্টা চিকিৎসকের পরামর্শ এবং এক হাজারেরও বেশি পার্টনার আউটলেট থেকে ৫০ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় সুবিধা উপভোগ করছেন। কোভিড-১৯ বৈশ্বিক মহামারিতে রূপ নেওয়ায় বার্জার টনিকের সঙ্গে অংশীদারিত্বের বিদ্যমান স্বাস্থ্য প্যাকেজের আওতায় নতুন এ রোগটির ক্ষয়ক্ষতির বিষয়কেও অন্তর্ভুক্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।  

এর আগের স্বাস্থ্য প্যাকেজটি চলতি বছরের ৩১ মার্চ শেষ হওয়ার কথা ছিলো, কিন্তু কোভিডের কারণে কাভারেজ সময়সীমা বাড়ানোয় এবং বার্জার পেইন্টস ও টনিকের স্বাস্থ্য প্যাকেজটি অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য বজায় থাকবে।  

এছাড়াও বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ ২৭ হাজার রংমিস্ত্রির ‘ইন-ক্যান টোকেন’ সুবিধার বিপরীতে পেমেন্ট দেওয়ার পরিমাণ বাড়িয়েছে এবং রংমিস্ত্রিদের ভেরিফায়েড মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ৪ কোটি টাকার বেশি তাদের দেওয়া হয়েছে।  

প্রতিষ্ঠানটি দেশের গ্রামীণ অঞ্চলের রংমিস্ত্রিদের নতুন স্বাস্থ্য সুবিধা কাভারেজের আওতায় আনতে নিরবচ্ছিন্নভাবে কাজ করছে। এছাড়াও প্রতিষ্ঠানটির আগের প্রমোশনাল স্কিম হতে সব নন-ক্যাশ সুবিধায় পরিবর্তন আনা হয়েছে এবং আর্থিক মূল্য মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সিস্টেমের (এমএফএস) মাধ্যমে রংমিস্ত্রিদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। এটি তাদের যেকোনো জরুরি প্রয়োজন মেটাতে সাহায্য করবে।  

এ নিয়ে বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার (মার্কেটিং) একেএম সাদেক নাওয়াজ বলেন, পেইন্টার ও ডিলাররা আমাদের ব্যবসায়িক ও সামাজিক ইকোসিস্টেমের গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এ বৈশ্বিক মহামারি তাদের জীবনযাত্রায় নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। এ প্রতিকূল সময়ে পেইন্টারদের সহায়তা করতে পেরে আমরা অত্যন্ত গর্বিত; কেননা, তারা বার্জার পরিবারের গুরুত্বপূর্ণ অংশ। তাদের সমর্থন ও সহযোগিতার কারণেই বিগত দিনগুলোতে আমরা সাফল্য অর্জন করেছি এবং কোভিড উদ্ভূত পরিস্থিতিসহ সামনের দিনগুলোতেও আমরা তাদের পাশে থাকবো।  

বাংলাদেশ সময়: ১৫৫৪ ঘণ্টা, আগস্ট ১১, ২০২০
এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa