ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ আশ্বিন ১৪২৭, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩ সফর ১৪৪২

অর্থনীতি-ব্যবসা

মাতারবাড়ি পোর্ট উন্নয়নে ৪৬৭ কোটি টাকার ক্রয়প্রস্তাব অনুমোদন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬২১ ঘণ্টা, জুলাই ২৯, ২০২০
মাতারবাড়ি পোর্ট উন্নয়নে ৪৬৭ কোটি টাকার ক্রয়প্রস্তাব অনুমোদন ফাইল ফটো

ঢাকা: মাতারবাড়ি পোর্ট উন্নয়নে কনসালট্যান্সি সার্ভিসের জন্য ৪৬৬ কোটি ৬৮ লাখ টাকার ক্রয় প্রস্তাবসহ মোটা পাঁচটি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।  

বুধবার (২৯ জুলাই) সচিবালয়ে জুম অ্যাপসের মাধ্যমে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত কমিটির ১৭তম সভা কমিটির আহ্বায়ক অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের অনুপস্থিতিতে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে এ প্রস্তাবগুলো অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

 

বৈঠকে পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে বৈঠকে কৃষিমন্ত্রী প্রকল্পের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে সাংবাদিকদের জানান, আজকের সভায় মোট পাঁচটি প্রস্তাব উত্থাপিত হয়। এর মধ্যে বেরসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়র দু’টি, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের একটি ও বিদ্যুৎ বিভাগের দু’টি।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘মাতারবাড়ি পোর্ট ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট’ শীর্ষক সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তরের অংশে কনসালট্যান্সি সার্ভিস ফর ডিটেল ডিজাইন, ট্রেড অ্যাসিস্ট্যান্ট অ্যান্ড কনস্ট্রাকশন সুপারভিশন কাজের ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, মাতারবাড়ি পোর্ট উন্নয়ন প্রকল্পটি পরিবহন মন্ত্রণালয়ের। এটা অনেক বড় একটি প্রকল্প। কনসালট্যান্সি কাজ করার জন্য ৪৬৬ কোটি ৬৮ লাখ ৫০ হাজার ৫৬৯ টাকা ব্যয় হবে। জয়েন্ট ভেঞ্চারের অনেকগুলো কোম্পানি। পাঁচটি কোম্পানি এতে সংযুক্ত হয়েছে। জাপানের মূল কোম্পানি ওরিয়েন্টাল কনসালট্যান্ট গ্লোবাল কোম্পানির সঙ্গে নকশার উন্নয়নে কাজ করবে আমাদের স্থানীয় কোস্পানি ডিসিএলএসএ। সাব কন্ট্রাক্টে এসেছে মিশসি ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড এবং পিডিও কোম্পানি লিমিটেড।

বৈঠকে অনুমোদিত অন্য প্রস্তাবগুলো হলো- বাংলাদেশ পল্লীবিদ্যুতায়ন বোর্ডের ‘পল্লী বিদ্যুতায়ন সম্প্রসারণের মাধ্যমে ১৫ লাখ গ্রাহক সংযোগের (১৯.৫ লাখ গ্রাহক সংযোগের সংস্থানসহ ১ম সংশোধন)’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় সাব স্টেশন নির্মাণ। পল্লীবিদ্যুতের রুটিন কাজে গ্রাহক সেবা বাড়াতে একটি সংশোধিত প্রকল্পর ৫১ কোটি ৫০ কোটি ৬৩ হাজার টাকা ব্যয় হবে। কাজটি পেয়েছে এনার্জিপ্যাক ইঞ্জিনিয়ারিং।

এছাড়া বাংলাদেশ পল্লীবিদ্যুতায়ন বোর্ডের ‘শতভাগ পল্লীবিদ্যুতায়নের জন্য বিতরণ নেটওয়ার্ক (ঢাকা, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট) ১ম সংশোধন’ শীর্ষক প্রকল্পের দুই লটে- লট-৪ ও লট -৫ এর আওতায় কন্ডাক্টর, এসিএসআর, বার, কন্ডাক্টর, ইনসোলেট ক্রয়ের প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। দেশে শতভাগ পল্লী বিদ্যুৎ বিতরণের জন্য নেটওয়ার্ক করা হবে। এতে দুই লটে মোট ব্যয় হবে ৮২ কোটি ৯৪ লাখ ৭২ হাজার টাকা। কাজটি পেয়েছে পার্টেক্স ক্যাবল লিমিটেড ও পলিক্যাবল ইন্ডাস্ট্রি লিমিটেড। তারা ২৫ শতাংশ কমে কাজটি করে দেবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬১৬ ঘণ্টা, জুলাই ২৯, ২০২০
জিসিজি/এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa