bangla news

কামালপুর স্থলবন্দরে আমদানি-রপ্তানি শুরু

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৬-১৮ ৬:৩১:৩৮ পিএম
কামালপুর স্থলবন্দরে আমদানি-রপ্তানি শুরু

কামালপুর স্থলবন্দরে আমদানি-রপ্তানি শুরু

জামালপুর: জামালপুরের একমাত্র স্থলবন্দর কামালপুরে আমদানি-রপ্তানি শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) দুপুরে মের্সাস নোমান এন্টারপ্রাইজের পাথর বোঝাই একটি ট্রাক বাংলাদেশের অভ্যন্তরের প্রবেশ করে। এর আগে, চলতি বছর ১৫ মার্চ সর্বশেষ একটি ট্রাক পাথর নিয়ে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করেছিল।

এদিকে, কামালপুর স্থলবন্দরের বিপরীত পাশে ভারতীয় অংশে ট্রাক চালক ও সহকারী চালকদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হলেও বাংলাদেশে কোনো ধরনের পরীক্ষা করা হয়নি।

মের্সাস নোমান এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী ইউসুফ আলী বাংলানিউজকে জানান, ভারত থেকে আসা ট্রাক চালক ও সহকারী চালকদের নিচে নামতেই দেওয়া হয়নি। বাংলাদেশে অবস্থানকালীন সময়ে ট্রাকের চালক ও সহকারী চালকরা সবসময় ট্রাকের মধ্যেই অবস্থান করেছে। দ্রুত পাথর আনলোড করে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

কামালপুর স্থলবন্দরের আমদানি ও রাপ্তানিকারক সমিতির সভাপতি কৃষিবিদ আব্দুল্লাহ আল মোকাদ্দেস রিপন বাংলানিউজকে জানান, প্রথম দিনে পাঁচটি ট্রাক বাংলাদেশে অভ্যন্তরে প্রবেশ করে। এ সময় পুরো ট্রাক জীবানুনাশক স্প্রে করা হয়। ট্রাকের চালক ও সহকারী চালকদের ট্রাকের মধ্যে থাকে সমস্ত পাথর আনলোড করা হয়েছে।

জামালপুর রাজস্ব কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান বাংলানিউজকে জানান, প্রথম দিন অনেক সমস্যা ছিল। স্থানীয় স্বাস্থ্যবিভাগ ও প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করে আগামী শনিবার থেকে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনেই এই বন্দরের আমদানি-রপ্তানি পরিচলনা করা হবে।

বকশীগঞ্জ স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বাংলানিউজকে জানান, কামালপুর স্থলবন্দরের আমদানি-রপ্তানি শুরু হয়েছে শুনেছি। আগামী শনিবার থেকে স্বাস্থ্য বিভাগের একটি দল সেখানে অবস্থান করবে।
 
বকশীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আ.স.ম জামশেদ খোন্দকার বাংলানিউজকে জানান, স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্থলবন্দরে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য সংশ্লিষ্ট আমদানি-রপ্তানিকারকসহ ব্যবসায়ীদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

বাংলাদেশ সময়: ১৮২৯ ঘণ্টা, জুন ১৮, ২০২০
এনটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   করোনা ভাইরাস
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-06-18 18:31:38