bangla news

বাজারে আসছে নাইট্রোজেন সাশ্রয়ী ‘এন পি কম্পাউন্ড’ সার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৫-১৪ ৭:৪৫:৫০ পিএম
ধান কাটছেন চাষিরা।

ধান কাটছেন চাষিরা।

ঢাকা: শতকরা প্রায় ৩০ শতাংশ নাইট্রোজেন সাশ্রয়ী ‘এন পি কম্পাউন্ড’ রাসায়নিক সার বাণিজ্যিকভাবে বাজারজাত করার উদ্দেশে মাঠ পর্যায় প্রদর্শনী খামার করেছে বাংলাদেশ ফার্টিলাইজারস অ্যান্ড অ্যাগ্রোকেমিক্যালস লিমিটেড।   

বর্তমানে কৃষি মন্ত্রণালয় ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে উৎপাদনের লাইসেন্স নিয়ে এন পি কম্পাউন্ড সার বাজারজাতকরণের প্রাথমিক কার্যক্রম চলছে।

বৃহস্পতিবার (১৪) ফার্টিলাইজারস অ্যান্ড অ্যাগ্রোকেমিক্যালস লিমিটেডের পক্ষ থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।  

বিবৃতিতে বলা হয়, কুমিল্লার বুড়িরচং উপজেলা, নড়াইল উপজেলা, দিনাজপুর উপজেলা, রাজশাহীর পবা উপজেলায় এবং বিরি খামারে প্রদর্শনীর মাধ্যমে এ সারের আশানরূপ ফলাফল পাওয়া গেছে। এছাড়া বাংলাদেশ ফার্টিলাইজারস অ্যান্ড অ্যাগ্রোকেমিক্যালস লিমিটেডের ‘এনপি কম্পাউন্ড’ নামীয় রাসায়নিক সারটি মূলত কম্পাউন্ড সার, যা মিশ্র সার থেকে ভিন্ন। এ সারে নাইট্রোজেন অবমুক্ত হয় ধীর গতিতে ফলে গাছে দীর্ঘ সময়ের জন্য নাইট্রোজেন সহজলভ্য হয়। এ সারে নাইট্রোজেন ও ফসফরাসের আনুপাতিক হার ২ অনুপাত ১ আছে, যা জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি বিষয়ক এজেন্সি ফাওএর রিপোর্টের সঙ্গে সামঞ্জ্যপূর্ণ।

বর্তমানে কৃষকরা নাইট্রোজেন ও ফসফরাসের যে অসম ব্যবহার করছেন তাতে ফলন যেমন একদিকে কমছে অন্যদিকে জমির উর্বরতা শক্তিও হারাচ্ছে। এন পি কম্পাউন্ড সার ব্যাবহারে এ ক্ষতি অনেকাংশেই কমানো সম্ভব হবে বলেও উল্লেখ করা হয়।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, এন পি কম্পাউন্ড সারে নাইট্রোজেনের কার্যকারিতা ইউরিয়া সারের চেয়ে অনেক ভালো এবং ধীর গতিতে নাইট্রোজেন অবমুক্ত হয় বিধায় গাছ নাইট্রোজেন দীর্ঘ সময়ে ধরে সংগ্রহ করতে পারে। অতিমাত্রায় চাষাবাদের জন্য মাটিতে অম্লত্ব বেড়ে যাওয়ার প্রবণতাকে এ সার রোধ করে। এছাড়াও আরও দু’টি মাইক্রো নিউট্রিয়েন্ট ক্যালসিয়াম ও সালফার থাকাতে জিপসাম সারের প্রয়োজন নেই।

‘মাঠ পর্যায়ে এন পি কম্পাউন্ড সার ব্যবহার করে শতকরা পাঁচ ভাগের ওপর ফলন বাড়ার ফলাফল পাওয়া গেছে। অন্যদিকে ইউরিয়ার সঙ্গে তুলনা করে দেখা গেছে এ সার ব্যবহারে ৩০ শতাংশ পর্যন্ত নাইট্রোজেন কম ব্যবহার করেও একই ফলন পাওয়া গেছে’।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪৩ ঘণ্টা, মে ১৪, ২০২০
আরকেআর/আরবি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-05-14 19:45:50