bangla news
করোনা

বিসিক শিল্পনগরীর কর্মীদের চিকিৎসা সেবা দেওয়ার অনুরোধ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৪-১৮ ৫:০০:৫৩ পিএম
বিসিক লোগো

বিসিক লোগো

ঢাকা: করোনা ভাইরাস সংক্রমণের (কোভিড-১৯) ফলে সৃষ্ট সংকটকালীন সময়ে শিল্পনগরীগুলোতে নিত্য প্রয়োজনীয় ভোগ্য পণ্য, করোনা প্রতিরোধক পণ্য ও ওষুধ সামগ্রী উৎপাদন, সরবরাহ ও মনিটরিংয়ের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে চিকিৎসা সেবা দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক)।

শনিবার (১৮ এপ্রিল) বিসিকের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়৷

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ১৬ এপ্রিল দেশের সব মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ, সব সিভিল সার্জন এবং উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বরাবর চিঠি দিয়ে এ অনুরোধ জানিয়েছেন বিসিকের চেয়ারম্যান মো. মোশতাক হাসান।

চিঠিতে জানানো হয়,  প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবজনিত পরিস্থিতিতে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় করোনা প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করে বিসিকের ৭৬টি শিল্পনগরীর অনেক শিল্প প্রতিষ্ঠান নিয়মিতভাবে করোনা প্রতিরোধমূলক পণ্য  ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই), হ্যান্ড স্যানিটাইজার, অক্সিজেন, মাস্ক, সাবান ও জীবাণুনাশক, ফ্লোর ক্লিনার, নিত্য প্রয়োজনীয় ভোগ্য পণ্য, যেমন- চাল, আটা, ময়দা, ডাল, লবণ, রুটি, চিড়া ও মুড়ি ইত্যাদি, কৃষি ও কৃষিজাত পণ্য , গো-খাদ্য, পোল্ট্রি ফিডস, ফিস ফিডস, সেন্ট্রিফিউগাল পাম্প, কৃষি যন্ত্রপাতি ও যন্ত্রাংশ, কীটনাশক, সার ও ওষুধ সামগ্রীসহ আরও অনেক ধরনের প্রয়োজনীয় উপকরণ উৎপাদন অব্যাহত রেখে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সরবরাহ করছে। এক্ষেত্রে এ সব পণ্য  উৎপাদন, সরবরাহ ও মনিটরিংয়ের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের করোনা ভাইরাসসহ অন্য রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। বিসিক শিল্পনগরীগুলোতে করোনা প্রতিরোধকমূলক উপকরণ, নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য ও ওষুধ সামগ্রী উৎপাদন ও দেশের সর্বত্র এগুলোর সরবরাহ অব্যাহত রাখার স্বার্থে বিসিকের পক্ষ হতে এ অনুরোধ জানানো হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৭০০ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৮, ২০২০
জিসিজি/এবি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   করোনা ভাইরাস
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-04-18 17:00:53