bangla news

ই-কমার্স দিবসে ই-ক্যাবের ‘মানবসেবা’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৪-০৮ ১২:০১:১৩ এএম
ই-কমার্স দিবসে ই-ক্যাবের ‘মানবসেবা’

ই-কমার্স দিবসে ই-ক্যাবের ‘মানবসেবা’

ঢাকা: করোনার কারণে অঘোষিত ‘লকডডাউন’ পরিস্থিতির মধ্যেই অনেকটা ডিজিটাল পদ্ধতিতে ই-কমার্স দিবস পালন করছে ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব)। আর দিবসটিকে কেন্দ্র করে ‘মানবসেবা ডট কম’ নামের একটি উদ্যোগও চালু করেছে দেশের ই-কমার্স খাতের ব্যবসায়ীদের সংগঠনটি।

মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) ‘মানবতার সেবায় ই-কমার্সের ডাক’ স্লোগানকে সামনে রেখে ই-ক্যাবের অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজে এক অনলাইন আলোচনা সভার মাধ্যমে দিবস উদযাপনের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। এতে বক্তব্য দেন বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুন্সী, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, সাবেক জ্যেষ্ঠ সচিব ও ই-ক্যাব উপদেষ্টা নজরুল ইসলাম খান, ‘ই-বাণিজ্য করব নিজের ব্যবসা গড়ব’ প্রকল্প পরিচালক হাফিজুর রহমান, ডাক বিভাগের মহাপরিচালক সুধাংশু শেখর ভদ্র এবং এটুআইয়ের পলিসি অ্যাডভাইজর আনীর চৌধুরীসহ অন্যরা। 

বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, এই সময়ে ই-কমার্স লেনদেন তুলনামূলক নিরাপদ। কারণ ১০০ মানুষ ঘর থেকে বের হওয়ার পরিবর্তে যদি একজন তাদের জরুরি পণ্য ঘরে পৌঁছে দিতে পারে এটা একটা ভালো দিক। করোনার এই সময়ে ই-কমার্স বিস্তৃত হয়ে সাধারণ মানুষের পর্যায়ে সেবা দিচ্ছে এটা একটা বড় সহযোগিতা। সরকার এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতা দিয়ে আমরা এই সেবাদাতাদের পাশে থাকব।
 
ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ২০০৮ সালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যখন ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নের রূপরেখা প্রকাশ করেন, তখন অনেকের কাছে এটা হাস্যকর মনে হয়েছে। কিন্তু সময়ের সাথে ডিজিটাল প্রযুক্তি সেবার বাস্তবতা প্রমাণ হয়েছে। করোনা পরিস্থিতি আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল যে আজকের দুনিয়ায় ডিজিটাল সেবা কতটা অপরিহার্য, যেখানে চাল ডাল তেল নুন পর্যন্ত লোকেরা অনলাইন থেকে কেনাকাটা করছে সেখানে আর এই বিষয়ে বলার অপেক্ষা রাখে না। বর্তমান সময়ে যখন সবকিছু বন্ধ হয়েছে তখন ই-কমার্স এবং ইন্টারনেট সেবা দেশের লাইফ লাইনে পরিণত হয়েছে।
 
ই-ক্যাবের সভাপতি শমী কায়সার বলেন, এই দুর্যোগপূর্ণ সময়ে ই-ক্যাবের সদস্যদের নিয়ে জনগণের পাশে রয়েছে ই-ক্যাব। ই-ক্যাবের পক্ষ থেকে আমরা এই সময়ে ব্যবসাকে প্রাধান্য না দিয়ে মানুষের সেবাকে প্রাধান্য দিয়েছি। প্রায় কয়েক হাজার কোটি টাকার ব্যবসায়িক ক্ষতির মধ্যে পড়েও ই-ক্যাবের কর্মীরা প্রতিদিন ৪০ হাজার পরিবারের কাছে জরুরি নিত্যপণ্য পৌঁছে দিচ্ছে এবং এর পরিসর ক্রমশ বেড়ে চলেছে।
 
ই-ক্যাবের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আব্দুল ওয়াহেদ তমাল বলেন, এই জরুরি পরিস্থিতিতে ই-ক্যাব মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। ‘মানবসেবা’ নামে একটি প্লাটফরর্ম তৈরি করা হয়েছে, যার মাধ্যমে দরিদ্র ও দিন এনে দিন খাওয়া মানুষদের পাশে দাঁড়াচ্ছে ই-ক্যাব। প্ল্যাটফর্মে যারা দরিদ্রদের জন্য দান করতে চান তারা দান করতে পারবেন। আমরা প্রত্যন্ত অঞ্চলে সেগুলোর বিতরণ নিশ্চিত করব। এই জরুরি মুহূর্তে বিভাগীয় কমিশনার, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এটুআইসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন পক্ষের সাথে যোগাযোগ করে লজিস্টিক ও জরুরি পণ্যসেবা দেওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য অনুমতি নিয়ে তাদের সেবা অব্যাহত রাখার জন্য প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।
 
বাংলাদেশ সময়: ২৩৫৯ ঘণ্টা, এপ্রিল ৭, ২০২০
এসএইচএস/ইউবি 

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   করোনা ভাইরাস
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

অর্থনীতি-ব্যবসা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
db 2020-04-08 00:01:13