bangla news

বসুন্ধরা হাউজিং না হলে কেরাণীগঞ্জ হতো উন্নত বস্তি: বিপু

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০২-২২ ৬:৩১:১৬ পিএম
বক্তব্য রাখছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু। ছবি- ডি এইচ বাদল

বক্তব্য রাখছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু। ছবি- ডি এইচ বাদল

কেরাণীগঞ্জ থেকে: কেরাণীগঞ্জে বসুন্ধরা রিভারভিউ হাউজিং প্রকল্পের প্রশংসা করে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু বলেছেন, এই হাউজিং প্রকল্প না হলে কেরাণীগঞ্জ হতো একটা উন্নত বস্তি। 

শনিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ঢাকার অদূরে কেরাণীগঞ্জের পানগাঁওয়ে দেশের প্রথম বেসরকারি বিটুমিন প্ল্যান্ট ‘বসুন্ধরা বিটুমিন প্ল্যান্ট’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন ঢাকা-৩ আসনের (কেরানিগঞ্জ) এ সংসদ সদস্য। 
 
বসুন্ধরা রিভারভিউ হাউজিং প্রকল্পের প্রশংসা করে নসরুল হামিদ বিপু বলেন, ‘এই যে একটা হাউজিং হলো, এটা পরিকল্পিতভাবে হয়েছে। আজকে যদি এই হাউজিংটা না হতো, তাহলে কেরাণীগঞ্জ একটা উন্নত বস্তি হতো। এখানে হাউজিং হয়েছে, রাস্তাঘাট হয়েছে। এখন আমরা এখানে পরিকল্পিতভাবে গ্যাসের লাইন, বিদ্যুতের লাইন দিয়ে দিতে পারবো। পরিকল্পিত নগরায়ন করার পেছনে পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপের কোনো বিকল্প নেই।’ 

দেশের বিভিন্ন স্থানে আবাসন শিল্পের পথিকৃৎ বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের বেশ কয়েকটি হাউজিং প্রকল্প রয়েছে। কেরাণীগঞ্জের হাসনাবাদে ৮ হাজার একর জমিতে বসুন্ধরা রিভারভিউ হাউজিং প্রকল্প ছাড়াও গাজীপুরের মৌচাক ও স্কাউট জাম্বুরির কাছে মৌচাক হাউজিং প্রকল্প, ঢাকা-মাওয়া হাইওয়ের পাশে রিভারভিউ গ্রিন টাউন ও বসুন্ধরা দক্ষিণা প্রকল্প রয়েছে এ গ্রুপের। এছাড়া বসুন্ধরা বারিধারা ও রিভারভিউ প্রকল্পের প্রাইম লোকেশনে আছে বিভিন্ন সাইজের অ্যাপার্টমেন্ট প্রকল্প।

দেশের অর্থনীতি ও কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখা বসুন্ধরা গ্রুপের প্রশংসা ও উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘ওনাদের কিন্তু যথেষ্ট আছে, তারপরও কেন করতেছেন? এটা কেবলমাত্র অর্থের জন্য নয়, মানুষের প্রতি ভালোবাসা, দেশের প্রতি ভালোবাসা থেকে করা। এই টাকা দিয়ে বিদেশে হোটেল বানাতে পারতেন, অনেক কিছু করতে পারতেন। কিন্তু নিজের দেশে নিজে থেকে এত বড় রিস্ক নিয়ে এতো কিছু করা, এটা কিন্তু সহজ কথা নয়।’

‘কেরাণীগঞ্জের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে হাজার হাজার ছেলেমেয়েকে চাকরি দিয়েছে বসুন্ধরা গ্রুপ। এটা একটা বিশাল ব্যাপার। বসুন্ধরার মতো প্রতিষ্ঠানের প্রতি যদি আমরা সহযোগিতার হাত বাড়াতে পারি তাহলে দেশ এগিয়ে যাবে।’

অনুষ্ঠানে বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীরের প্রশংসা করে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আগামীর বাংলাদেশ আর বেশি দূরে নয়। সোবহান সাহেবের ছেলে আনভীর, তার বাবা অনেক প্রতাপশালী, প্রচুর অর্থের মালিক, তারপরও সারা বিশ্ব ঘুরে তিনি বাংলাদেশে ফিরে এসে কাজ করছেন। আমি মাঝে মাঝে চিন্তা করি- বাংলাদেশের ভাগ্য, বিদেশ থেকে ফেরত এসে বাবার সঙ্গে হাত মিলিয়ে বাবার স্বপ্ন বাস্তবায়নে প্রাণপণে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। এটা কিন্তু অনেক বড় জিনিস।’

‘আজকে তার বাবা (আহমেদ আকরব সোবহান) সাকসেসফুল। সোবহান সাহেব একজন শিল্পপতি এটাই তার বড় সাকসেস নয়। বড় সাকসেস হলো তার সন্তান। তিনি আমাকে বলেন- বিপু ভাই এটা করতে হবে, ওটা করতে হবে। তার বিন্দুমাত্র সময় ব্যয় নাই। আমি আশ্চর্য হয়ে যাই। আমি নিজেও ব্যবসা করেছি, কিন্তু এ রকম করে সময় দিইনি।’ যোগ করেন তিনি।

বসুন্ধরা বিটুমিন প্ল্যান্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান, বসুন্ধরা গ্রুপের কো-চেয়ারম্যান সাদাত সোবহান তানভীর, বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফিয়াত সোবহান সানভীর, ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর ও ওয়ালিদ সোবহান।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু, বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান, কো-চেয়ারম্যান সাদাত সোবহান তানভীর, ভাইস চেয়ারম্যান সাফিয়াত সোবহান সানভীর, ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর। ছবি- ডি এইচ বাদল

দেশের চাহিদা মিটিয়ে রপ্তানির লক্ষ্যে যাত্রা শুরু করেছে সর্বাধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন বসুন্ধরা বিটুমিন প্ল্যান্ট। সড়ক নির্মাণে উন্নত বিটুমিনের যোগান দিতে ‘রোড টু দ্য ফিউচার’ স্লোগানে এ প্রকল্প নিয়ে এসেছে দেশের অন্যতম বৃহৎ শিল্প গোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপ।

সড়ক নির্মাণে ব্যবহৃত বিটুমিন মূলত একটি হাইড্রোকার্বন পণ্য। এটি জ্বালানি তেলের একটি বাই-প্রোডাক্ট পণ্য। মূলত রাস্তাঘাট নির্মাণে ব্যবহৃত হয়।

বাংলাদেশে বিটুমিনের চাহিদা বছরে কয়েক লাখ টন। এর প্রায় পুরোটাই আমদানিনির্ভর। এর মধ্যে বিপিসির নিয়ন্ত্রণাধীন ইস্টার্ন রিফাইনারি ৭০ হাজার টন উৎপাদন করে। বাকি বিটুমিন মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি করা হয়। তবে প্রায়ই বিদেশ থেকে নিম্নমানের বিটুমিন আমদানি করে ব্যবহারের কারণে সড়ক টেকসই হচ্ছে না বলে অভিযোগ রয়েছে। এ অবস্থায় দেশেই সর্বোচ্চ মানসম্পন্ন বিটুমিন উৎপাদনের পরিকল্পনা নিয়ে নতুন প্ল্যান্ট স্থাপন করেছে বসুন্ধরা গ্রুপ। এই প্ল্যান্ট থেকে বছরে সাড়ে ৮ লাখ টন বিটুমিন ও পিচ উৎপাদন হবে।

আরও পড়ুন::
বসুন্ধরা বিটুমিন প্ল্যান্টের যাত্রা শুরু
বসুন্ধরার বিটুমিন প্ল্যান্ট নিয়ে আমরা আনন্দিত: অর্থমন্ত্রী
আমাদের সব উৎসাহের মূলে বঙ্গবন্ধু: আহমেদ আকবর সোবহান 
চাহিদা মিটিয়ে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করবে বসুন্ধরা বিটুমিন

বাংলাদেশ সময়: ১৮২৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২০
এমইউএম/এমআইএস/এইচজে

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   বসুন্ধরা গ্রুপ
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-02-22 18:31:16