bangla news

পৌনে ৩ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন অবস্থানে ডিএসই সূচক

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৯-১৮ ৪:২৬:১৭ পিএম
ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের লোগো

ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের লোগো

ঢাকা: সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবস বুধবারও (১৮ সেপ্টেম্বর) পতনে শেষ হয়েছে পুঁজিবাজারের লেনদেন। এদিন দেশের প্রধান বাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সব সূচক কমেছে। মঙ্গলবারও পুঁজিবাজারে সূচকের পতন হয়েছিল।

ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে

এদিকে, চলমান পরিস্থিতি থেকে উত্তরণ ও পুঁজিবাজারে স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনতে গত সোমবার (১৬ সেপ্টেম্বর) অর্থমন্ত্রী স্টেকহোল্ডারসহ বাজার সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বৈঠক করলেও পতন থামছেই না। অব্যাহত পতনে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন সাধারণ বিনিয়োগকারীরা। তাদের দাবি এভাবে পতন চলতে থাকলে শেষ সম্বল রক্ষা হবে না। 

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী সম্মিলিত জাতীয় ঐক্য পরিষদের সভাপতি আতাউল্লাহ নাইম বাংলানিউজকে বলেন, তারল্য ও আস্থা সংকটের কারণে বাজারে স্থিতিশীলতা আসছে না। আস্থার সংকটগুলো চিহ্নিত করে সরাসরি তারল্য যোগানের মধ্য দিয়ে  পুঁজিবাজারে স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনতে হবে বলে তিনি মনে করেন।

অপরদিকে এদিনও ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক কমেছে। এদিন ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৪১ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৮৮৮ পয়েন্টে। ডিএসইর এই সূচকটি ২ বছর ৯ মাসের মধ্যে সর্বনিন্ম অবস্থানে নেমে গেছে। এর আগে ২০১৬ সালের ১২ ডিসেম্বর ডিএসইএক্স সূচক ছিল ৪ হাজার ৮৬৯ পয়েন্টে। আজ ডিএসইর অপর দুই সূচকের মধ্যে শরিয়াহ সূচক ১৬ পয়েন্ট ও ডিএসই-৩০ সূচক ১৬ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ১১৩১ ও ১৭৩৬ পয়েন্টে।

ডিএসইতে এদিন ৩৭১ কোটি ৫৩ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিনের চেয়ে ৬৪ কোটি টাকা কম। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৪৩৫ কোটি টাকার।

ডিএসইতে ৩৫২টি প্রতিষ্ঠান শেয়ার ও ইউনিট লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৯৭টির শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে, কমেছে ২১৪টির এবং ৪১টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

টাকার অংকে ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হওয়া শীর্ষ ১০ কোম্পানি হলো- ন্যাশনাল টিউবস, মুন্নু জুট স্টাফলার্স, স্কয়ার ফার্মা, সিনো বাংলা, লিগ্যাসি ফুটওয়্যার, স্টাইলক্রাফট, জেএমআই সিরিঞ্জ, ফরচুন সুজ, গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স এবং ইউনাইটেড পাওয়ার।

অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ১০১ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৪ হাজার ৮৪৯ পয়েন্টে। এদিন সিএসইতে হাত বদল হওয়া ২৬২টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ৭০টির, কমেছে ১৬২টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩০টির দর। 

এ বাজারে ৩৫ কোটি ৬৫ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিনের চেয়ে ৪ কোটি টাকা কম। আগের দিন সিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৩৯ কোটি টাকার।

বাংলাদেশ সময়: ১৬২৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৯
এসএমএকে/জেডএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   শেয়ার বাজার
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-09-18 16:26:17