ঢাকা, বুধবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৭, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪ সফর ১৪৪২

অর্থনীতি-ব্যবসা

ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে ১০ লাখ টাকা পেলেন সৌদি প্রবাসী 

বিজনেস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৫৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৯
ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে ১০ লাখ টাকা পেলেন সৌদি প্রবাসী 

ঢাকা: মো. ফিরোজ। সৌদি আরব প্রবাসী। বাড়ি লক্ষ্মীপুরের রায়পুর থানার লুদুয়া গ্রামে। সেখানে বসবাসরত তার স্ত্রী, এক মেয়ে ও এক ছেলের জন্য নির্মাণ করেছেন নতুন দালান ঘর। সম্প্রতি ছুটিতে দেশে এসেছেন তিনি। ঘরের জন্য কিনেন ওয়ালটনের নতুন ফ্রিজ। কেনার পরপরই ওয়ালটনের ‘কে হবেন আজকের মিলিয়নিয়ার’ শীর্ষক সুবিধার আওতায় ফ্রিজটি তিনি রেজিস্ট্রেশন করেন। আর তাতেই ওয়ালটনের কাছ থেকে পান ১০ লাখ টাকা। 

এ উপলক্ষে রায়পুর বাজারে ওয়ালটনের পরিবেশক ‘মীম ইলেকট্রনিক্স’ এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে বিজয়ী ফিরোজের হাতে ১০ লাখ টাকার চেক তুলে দেন ওয়ালটন গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক আরিফুল আম্বিয়া।

 

এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- ওয়ালটন ডিস্ট্রিবিউটর নেটওয়ার্কের নোয়াখালী জোনের এরিয়া ম্যানেজার মো. জাহিদ হাসান, ওয়ালটন সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম লক্ষ্মীপুর শাখার ম্যানেজার প্রকৌশলী মো. নূরে আলম, মীম ইলেকট্রনিক্সের মালিক হোসাইনসহ স্থানীয় ব্যক্তিরা।  

অনলাইনে দ্রুত বিক্রয়োত্তর সেবা নিশ্চিত করতে কাস্টমার ডাটাবেজ তৈরি করছে ওয়ালটন। সেজন্য তারা সারাদেশে চালাচ্ছে ডিজিটাল ক্যাম্পেইন। ওই ক্যাম্পেইনে ক্রেতাদের উদ্বুদ্ধ করতে ওয়ালটন ঘোষণা করেছে ‘কে হবেন আজকের মিলিয়নিয়ার’ শীর্ষক সুবিধা। এর আওতায় দেশের যেকোনো ওয়ালটন শো-রুম থেকে ফ্রিজ কিনে রেজিস্ট্রেশন করলে ক্রেতারা পেতে পারেন ১০ লাখ টাকা। রয়েছে এক লাখ টাকাসহ বিভিন্ন অঙ্কের নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার কিম্বা ফ্রিজ, টিভি ও নানা ধরনের ইলেকট্রনিক্স পণ্য ফ্রি পাওয়ার সুযোগ। এসব সুযোগ মিলবে ৩০ শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

এ মিলিয়নিয়ার সুবিধার আওতায় রায়পুর বাজারে মীম ইলেকট্রনিক্স থেকে সম্প্রতি ওয়ালটনের গ্লাস ডোর ডিজাইনের একটি ফ্রস্ট ফ্রিজ কিনেন সৌদি প্রবাসী ফিরোজ। এরপর ফ্রিজের বারকোড নম্বরসহ তার নাম ও মোবাইল নম্বর রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে ওয়ালটন সার্ভারে সংরক্ষিত করা হয়। এর কিছুক্ষণ পরেই ওয়ালটনের কাছ থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে তার রেজিস্টার্ড মোবাইল নম্বরে ১০ লাখ টাকা পাওয়ার ম্যাসেজ পান তিনি।  

এর প্রতিক্রিয়ায় ফিরোজ বলেন, খুব আনন্দ লাগছে, বলে বোঝানো যাবে না। জীবনে এ প্রথম অপ্রত্যাশিতভাবে এত টাকা পেলাম। তাও আবার ফ্রিজ কিনে। অবিশ্বাস্য! সৌদি আরবে দীর্ঘ ২৫ বছর সার্ভিস করেও এত টাকা জমাতে পারিনি। নিজেকে অনেক ভাগ্যবান মনে হচ্ছে। ওয়ালটনকে ধন্যবাদ।

ওয়ালটন ফ্রিজ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সৌদি আরবে থাকতেই বাংলাদেশি চ্যানেলগুলোতে ওয়ালটন পণ্যের বিজ্ঞাপন দেখতাম। তখনই দেখেছি, ওয়ালটন ফ্রিজের কালার ও ডিজাইন অনেক সুন্দর। আছে অসংখ্য লেটেস্ট মডেল। দামও হাতের নাগালে। তখনই ওয়ালটন ফ্রিজ কিনবো বলে ভেবে রাখি। এরপর দেশে এলে দেখি, বাড়ির ভেতরেই চাচা ও অন্যান্য আত্মীয়-স্বজন সবার পরিবারে ওয়ালটন ফ্রিজ। তাই, আমিও ওয়ালটন ফ্রিজ কিনলাম।  

জানা গেছে, ‘কে হবেন আজকের মিলিয়নিয়ার’ সুবিধার আওতায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে ইতোমধ্যে মিলিয়নিয়ার হয়েছেন ২০ জনেরও বেশি ক্রেতা। পাশাপাশি অসংখ্য ক্রেতা এক লাখ টাকা করে পেয়েছেন। এছাড়া হাজার হাজার ক্রেতা পেয়েছেন বিভিন্ন অঙ্কের নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচারসহ ফ্রিজ, টিভি ও নানান ধরনের ইলেকট্রনিক্স পণ্য ফ্রি।  

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৯
আরবি/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa